শেয়ারবাজার লেজেন্ড রাধা কৃষাণ ধামানি: একেবারে আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: শেয়ার ব্যবসায় আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হওয়া যায় সেই বাক্যটির জলন্ত উদাহরণ দেখালেন ভারতের রাধা কৃষান ধামানি। জিরো থেকে হিরো হওয়া ভারতের শেয়ারবাজার লিজেন্ড হিসেবে রাধা কৃষাণ ধামানি খুব পরিচিত নাম। একেবারে শুণ্য হাতে শুরু করা রাধা কৃষাণ এখন বিলিনিয়রের কাতারে পৌছে গেছেন। ভারতের ডি-মার্টের প্রতিষ্ঠাতা, ইনভেষ্টর,স্টক ব্রোকার এবং ট্রেডার হিসেবেই মূলত তিনি পরিচিত। “মি: হোয়াইট অ্যান্ড হোয়াইট” উপাধীতে ভূষিত ধামানি হচ্ছেন ভারতের আরেক শেয়ারবাজার লিজেন্ড রাকেশ ঝুনঝুনওয়ালার গুরু।

২০১৭ সালের ২১ মার্চ ছিলো এভিনিউ সুপার মার্টের (ডি-মার্টে প্যারেন্ট কোম্পানি) স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্তির দিন। ২৯৯ রুপি দিয়ে শেয়ার লেনদেন শুরু হলেও দিনশেষে তা গিয়ে দাঁড়ায় ৬৪৮ রুপিতে। অর্থাৎ একদিনের ব্যবধানেই শেয়ারটির দর ১১৬ শতাংশ বৃদ্ধি পায়। আর এভিনিউ সুপার মার্টের আইপিও দিয়ে মাত্র দু’দিনেই ৬ হাজার ১০০ কোটি রুপি আয় করেন রাধা কৃষাণ ধামানি। এভিনিউ সুপার মার্টের ৫২ শতাংশ শেয়ার ধারণ করছে ধামানি এবং তারই বিনিয়োগকৃত প্রতিষ্ঠান ব্রাইট স্টার ইনভেষ্টমেন্ট ধরে আছে ১৬ শতাংশ শেয়ার‌।

শেয়ার মার্কেটে আরকে ধামানির পদচারণা সত্যিই অনুপ্রেরণামূলক। সে স্টক মার্কেটে সবসময় জড়িত ছিলেন না। বল বেয়ারিংয়ের ট্রেডার হিসেবে তার ক্যারিয়ার শুরু হয়। যদিও স্টক মার্কেটে প্রবেশের তার ঐরকম ইচ্ছা না থাকা স্বত্ত্বেও ভাগ্যই তাকে শেয়ারবাজারের দিকে টেনে এনেছে।

৩২ বছর বয়সে রাধা কৃষাণ ধামানির বাবা মারা যান। অনেকটা বাধ্য হয়েই তাকে তার বল বেয়ারিং ব্যবসা বন্ধ করতে হয়েছে। তার ভাইয়ের সঙ্গে বাবার উত্তরাধিকারসূত্রে পাওয়া স্টক ব্রোকারিং ব্যবসা শুরু করতে হয়। ঐসময় আরকে ধামানির শেয়ার ব্যবসা সম্পর্কে  কোনো ধারণা ছিলো না। শেয়ারবাজার সম্পর্কে তার জ্ঞান ছিলো খুবই সীমিত এবং তাকে জিরো থেকেই শুরু করতে হয়। শেয়ার দরকে প্রলুব্ধ করতে প্রথমেই বেশকিছু ভুল করে বসেন তিনি। এরপরই তিনি বুঝতে পারেন আসলে যারা জীবনের ভাগ্য অনেক উন্নতির দিকে নিতে চান তাদের জন্য শেয়ার ব্যবসা হচ্ছে স্বর্গ।

শেয়ারবাজারে প্রবেশের পর অন্য বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের ধরণ থেকে আরকে ধামানি বুঝতে পারলেন যে, সে তাদের পদ্ধতি ব্যবহার করে শেয়ারবাজার থেকে প্রত্যাশিত টাকা উপার্জন করতে পারবেন না। পরিশেষে তিনি দীর্ঘমেয়াদে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিলেন। ধীরে ধীরে ধামানির চিন্তা-ধারণা সঠিক হতে লাগলো এবং কয়েক বছরের মধ্যে ধামানি স্টক মার্কেটের সফল বিনিয়োগকারীর কাতারে নিজের নাম লেখালেন।

আরকে ধামানির বিনিয়োগ কৌশল ছিলো খুবই সিম্পল। তিনি সবসময় বলেন, দীর্ঘমেয়াদে বিনিয়োগ করুন যেমন: ৫ থেকে ১০ বছর। কোনো কোম্পানিতে বিনিয়োগের পূর্বে ধামানি ঐ কোম্পানির ভবিষ্যত দেখেন। ঐ কোম্পানির প্রতি ধামানি আকৃষ্ট হন যেসব কোম্পানির পণ্যের ভবিষ্যত উজ্জ্বল।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

One Comment;

  1. Nayel said:

    Your comment…kob shondor news hoise r o ekjon legend k niye news koren,asha kori taratari korben besi din wait korte hobe na.

*

*

Top