প্রথম দিনে ইন্ট্রাকো’র ৩৩৩ শতাংশ মুনাফা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: লেনদেনের শুরুর প্রথম দিনেই চমক দেখিয়েছে পুঁজিবাজারে সদ্য তালিকাভুক্ত হওয়া কোম্পানি ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশন লিমিটেড। আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় দেশের উভয় শেয়ারবাজারে আনুষ্ঠিানিকভাবে শুরু হয় এ কোম্পানির লেনদেন। আর লেনদেনের প্রথম দিনেই ৩৩৩ শতাংশ মুনাফা পেয়েছেন এ কোম্পানির বিনিয়োগকারীরা। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বিশ্লেষণে দেখা গেছে, বৃহস্পতিবার ডিএসইতে ইন্ট্রাকোর শেয়ার দর বেড়েছে ৩৩.৩০ টাকা বা ৩৩৩ শতাংশ। এদিন এ শেয়ারের দর ৬০.৯০ টাকায় ওপেন হলেও সর্বশেষ লেনদেনটি হয় ৪৩.৩০ টাকায়। দিনভর এ কোম্পানির শেয়ার দর ৪৩ টাকা থেকে ৬৬ টাকায় ওঠানামা করে। দিনশেষে এ কোম্পানির ৯৬ লাখ ৬০ হাজার ৪৭৩টি শেয়ার মোট ২২ হাজার ৩০১ বার হাত বদল হয়। যা টাকার অংকে লেনদেন হয় ৪৪ কোটি ৩০ লাখ ৬৩ হাজার টাকা।

এদিকে দিনশেষে সিএসইতে ইন্ট্রাকোর শেয়ার দর বেড়েছে ৩২.৬০ টাকা বা ৩২৬ শতাংশ। দিনভর এ কোম্পানির শেয়ার দর ৪১.৮০ টাকা থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত ওঠানামা করে এবং সর্বশেষ লেনদেনটি হয় ৪২.৬০ টাকায়। দিনশেষে এ কোম্পানির মোট ৩১ লাখ ৬ হাজার ৩৫২টি শেয়ার মোট ৮ হাজার ৬৪ বার হাত বদল হয়। যা টাকার অংকে লেনদেন হয় ৮ কোটি ৭৭ লাখ ৪ হাজার টাকা।

এন ক্যাটাগরির আওতায় লেনদেন শুরু করা উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে কোম্পানিটির ট্রেডিং কোড ‘‘INTRACO”। ডিএসইতে কোম্পানি কোড হবে ১৫৩২০ আর সিএসইতে কোম্পানি কোড হবে ২০০২০।

এর আগে ১০ মে আইপিও লটারিতে বরাদ্দ পাওয়া শেয়ার সিডিবিএলের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের নিজ নিজ বিও হিসাবে জমা হয়েছে।

জানা যায়, কোম্পানিটি গত ১৭ এপ্রিল (মঙ্গলবার) সকাল ১০টায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তন, রমনা, ঢাকায় এ লটারির ড্র’র অনুষ্ঠিত হয়। আর (১৮ মার্চ) রোববার থেকে কোম্পানির আইপিও আবেদন শুরু হয় এবং যা ২৭ মার্চ, মঙ্গলবার শেষ হয়।

এর আগে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ৬২৪ তম কমিশন সভায় কোম্পানিটিকে অর্থ উত্তোলনের অনুমোদন দেওয়া হয়।

ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশনকে আইপিওর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ৩০ কোটি টাকা উত্তোলন করার অনুমোদন দেন বিএসইসি। কোম্পানিটি ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ৩ কোটি শেয়ার ছেড়ে বাজার থেকে এ অর্থ উত্তোলন করে।

উত্তোলিত টাকায় এলপিজি বোতলজাতকরণ ও ডিস্ট্রিবিউশন প্ল্যান্ট স্থাপন এবং আইপিও সংক্রান্ত খাতে ব্যয় করবে।

গত ৫ হিসাব বছরে কোম্পানিটির সমন্বিত শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৪৩ টাকা। আর ২০১৭ সালের ৩০ জুন সমন্বিত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৩.৮৭ টাকা।

এদিকে তৃতীয় প্রান্তিকের জানুয়ারী-মার্চ’২০১৮ পর্যন্ত অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, কোম্পানিটির আইপিওর আগে শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.২৯ টাকা । আইপিওর পরে সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ০.১৭ টাকা।

আলোচিত সময় কোম্পানিটির মোট সমন্বিত আয় হয়েছে ১ কোটি ৩১ লাখ ১০ হাজার টাকা।

এদিকে জুলাই’২০১৭ থেকে মার্চ’২০১৮ নয় মাসে কোম্পানিটির আইপিওর আগে ইপিএস হয়েছে ০.৭২ টাকা। আইপিওর পরে ইপিএস হয়েছে ০.৪৩ টাকা।

আলোচিত সময় কোম্পানিটির মোট সমন্বিত আয় হয়েছে ৩ কোটি ২৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

৩১ মার্চ ২০১৮ সাল পর্যন্ত কোম্পানির শেয়ার প্রতি সমন্বিত প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৪.৫৯ টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top