যে কারণে বাজার পতন

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: টানা ১৩ কার্যদিবস ধরে ‍শেয়ারবাজারে দরপতন হচ্ছে। নানা ইতিবাচক ইস্যু থাকার পরও কেন বাজার উঠে দাঁড়াতে পারছে না সে দুশ্চিন্তা বিনিয়োগকারীসহ নানা মহলে বিরাজ করছে। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) বাজারের পতনকে ঠেকাতে দৃশ্যত কোনো কাজ করছে না। আর লেনদেন কম হওয়া কিংবা বাজার পতনের জন্য প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী হিসেবে প্রথমেই ইনভেষ্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশকে (আইসিবি) দায়ী করা হয়। আসলে বর্তমান বাজার পতন আইসিবিকেই ঘিরে হচ্ছে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, আইসিবি সোনালী কিংবা জনতা ব্যাংকের কাছ থেকে লোন নিয়ে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করে থাকে। শেয়ার দর বৃদ্ধি পেলে সেগুলো বিক্রি করে লোন পরিশোধ করার পাশাপাশি মুনাফাও করে আইসিবি। কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাংক সম্প্রতি ব্যাংকগুলোকে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দিয়েছে যে, সিঙ্গেল পার্টি এক্সপোজার লিমিট ব্যাংকের পরিশোধিত মূলধনের ১৫ শতাংশের বেশি হতে পারবে না। আর আইসিবিকেও এ আইনের আওতায় বেঁধে রাখা হয়েছে। আগে এ আইনটি বলবৎ থাকলেও আইসিবি এর থেকে বাইরে ছিলো। কিন্তু এক শ্রেণীর বিনিয়োগকারীদের যোগসাজশে আইসিবিকে ফের এই আইনের আওতায় আনা হয়েছে। এখন আইসিবি আগে যেখানে সোনালী ব্যাংকের কাছ থেকে হাজার কোটি টাকা পর্যন্ত লোন নিতে পারতো। এখন সেখানে তার চেয়ে অনেক কম পরিমাণ লোন নিতে পারে। যার ফলে আইসিবি তেমনটা করে আগের মতো মার্কেটে বিনিয়োগ করতে পারছে না। এতো গেলো আইসিবি’র বিনিয়োগের বিষয়।

আগে যারা আইসিবিকে হাজার হাজার কোটি টাকা লোন দিয়েছে তারা এখন এ আইন বাস্তবায়ন করতে আইসিবিকে ঋণ পরিশোধ করতে রীতিমতো চাপ প্রয়োগ করছে। কারণ প্রতিটি ব্যাংকের নির্দেশনা রয়েছে যে তাদের পরিশোধিত মূলধনের ১৫ শতাংশের নিচে সিঙ্গেল পার্টি এক্সপোজার নামিয়ে আনার। বাংলাদেশ ব্যাংকের সেই নির্দেশনা মোতাবেক ব্যাংকগুলো আইসিবি’র কাছ থেকে টাকা উদ্ধারে ব্যস্ত হয়ে পড়ছে। আইসিবি তাদের ঋণ পরিশোধ করার জন্য শেয়ার বিক্রি করছে। বিদেশিদের কাছে বা দেশিওদের কাছে কম দামে শেয়ার বিক্রি করে তাদের লোন পরিশোধ করছে। আর কম দামে শেয়ার কিনে এক শ্রেণীর বিনিয়োগকারীরা বিপুল পরিমাণ মুনাফা সামনে করবে বলে বসে রয়েছেন।  যদিও খোদ অর্থমন্ত্রী আইসিবিকে এই সিঙ্গেল পার্টি এক্সপোজার থেকে অব্যাহতি দিতে  বাংলাদেশ ব্যাংককে জানিয়েছেন। কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাংক এখনো এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে শিগগিরই এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে একটি সিদ্ধান্ত আসতে পারে। যদি আইসিবিকে এই সিঙ্গেল পার্টি এক্সপোজার থেকে অব্যাহতি দেয়া হয় তাহলে আইসিবিকে কম দরে শেয়ার বিক্রি করতে হবে না। বরং আরো অত্যধিক পরিমাণ লোন নিয়ে মার্কেটকে সাপোর্ট দিতে পারবে। আইসিবি’র পক্ষ থেকে বাই প্রেসার আসার পরপরই মার্কেট ঘুরে দাঁড়াবে বলে জানা গেছে।

 

 

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top