যে কারণে ইষ্টার্ন ক্যাবলসের অস্বাভাবিক দরপতন

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের ইষ্টার্ন ক্যাবলস লিমিটেডের শেয়ার দর আজ ৮.৭৪ শতাংশ বা ১৭.৫০ টাকা কমে সর্বশেষ ১৮২.৭০ টাকায় লেনদেন হয়েছে। অস্বাভাবিক দরপতনের কারণে কোম্পানিটি টপটেন লুজার তালিকার দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে। মূলত এতোদিন ‘এ’ ক্যাটাগরির হয়ে লেনদেন করা ইষ্টার্ণ ক্যাবলসকে ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে নামিয়ে দিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। আর ‘জেড’ ক্যাটাগরির আওতায় লেনদেন সম্পন্ন হতে ১০ কার্যদিবস সময় নেয় এবং মার্জিন সুবিধা পাওয়া যায় না। যে কারণে এ কোম্পানির শেয়ারে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ কমেছে।

জানা যায়, ৩০ জুন ২০১৭ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য কোম্পানির ঘোষিত ১০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ডের রেকর্ড ডেট গত ৩০ নভেম্বর ২০১৭ তারিখে নির্ধারণ করা হয়। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স,১৯৬৯ এবং ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের লিষ্টিং রেগুলেশনস অনুযায়ী, রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করার ৪৫ দিনের মধ্যে প্রতিটি কোম্পানিকে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) করতে হবে। কিন্তু রেকর্ড ডেট নির্ধারণের ৪৫ দিনের মধ্যে এজিএম করেনি ইষ্টার্ণ ক্যাবলস। ডিএসই’র পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে কোম্পানিকে কারণে দর্শানোর নোটিশ জানানো হয়। নোটিশের জবাবে কোম্পানি বিএসইসি’র কাছ থেকে এজিএম রেকর্ড ডেটের ৪৫ দিন পর অনুষ্ঠিত করার জন্য কোনো অনুমোদন নেয়নি। কোম্পানির এই উত্তরের জবাবে ডিএসই কর্তৃপক্ষ গতকাল ইষ্টার্ণ ক্যাবলসকে আইন পরিপালন না করার জন্য ‘এ’ ক্যাটাগরি থেকে নামিয়ে ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে পাঠিয়ে দেয় যা কার্যকারিতা আজ থেকে শুরু হয়। আর আজ জেড ক্যাটাগরিতে নেমে পড়ায় ইষ্টার্ণ ক্যাবলসের শেয়ারে অস্বাভাবিক দরপতন ঘটে।

এখন কোম্পানির আসন্ন জুন ক্লোজিংয়ের ডিভিডেন্ড ঘোষণার পর এজিএমে শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদন নিয়ে তাদের অ্যাকাউন্টে ডিভিডেন্ড পাঠাতে হবে। যদি এবার ইষ্টার্ণ ক্যাবলস সকল আইন-কানুন পরিপালন করে তাহলে পরবর্তীতে কোম্পানিটিকে ‘জেড’ ক্যাটাগরি থেকে উন্নীত করা হবে বলে ডিএসই সূত্রে জানা গেছে।

১৯৮৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া ইষ্টার্ণ ক্যাবলসের অনুমোদিত মূলধন ৬০ কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ২৪ কোটি টাকা। এর রিজার্ভ ও সারপ্লাসের পরিমাণ ৪৯ কোটি টাকা। এর মোট ২ কোটি ৪০ লাখ শেয়ারের মধ্যে স্পন্সর পরিচালকদের হাতে রয়েছে ০.০১ শতাংশ, সরকারের কাছে ৫১ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ১৩.৫০ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ৩৫.৪৯ শতাংশ শেয়ার।

 

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

Top