বড় পতন থেকে রক্ষা পেলো বাজার

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: আইসিবিসহ কিছু প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী বর্তমানে মার্কেট মেকারের ভূমিকায় রয়েছে। বাজার যেন পতনে না যায় সেজন্য বড় বড় শেয়ারের দরপতন রোধে যারপরনাই চেষ্টা চালানো হয়েছে। গ্রামীন ফোন, স্কয়ারের মতো কোম্পানির শেয়ার দর ধরে রেখেছে। যে কারণে আজ মার্কেট বড় পতন থেকে রক্ষা পেয়েছে।

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের নেতিবাচক প্রবণতায় লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিন লেনদেনের শুরুতে সূচক ঊর্ধ্বমুখী থকালেও প্রথম ঘন্টা ৫ খাতের পর সেল প্রেসারে টানা নামতে থাকে সূচক। খাতগুলো হলো: ব্যাংক, সিরামিক, জ্বালানী ও বিদ্যুৎ এবং চামড়া। এরই ধারাবাহিকতায় ৬ কার্যদিবস ধরে পতনে বিরাজ করছে বাজার। আজ সোমবার সূচক কিছুটা কমলেও বেড়েছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। তবে টাকার অংকে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা কমেছে। আজ দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪০২ কোটি টাকা।

আজ দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৫৩১৩ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১২৩৫ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৭ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৯৭৩ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৩৬টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১০০টির, কমেছে ১৮৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫২টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৪০২ কোটি ৫ লাখ ৪৭ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস অর্থাৎ রোববার ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ২৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ৫৩১৬ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১০ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১২২৮ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১৯৬৫ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ৪২৫ কোটি ৪৯ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ২৩ কোটি ৪৪ লাখ ৪২ হাজার টাকা।

এদিকে, দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক সিএসইএক্স ৩১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৯ হাজার ৯০১ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২২১টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৫৭টির, কমেছে ১৩৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩০টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ১৬ কোটি ২১ লাখ ৫৯ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top