কাল শেষ বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী: যা থাকছে প্রস্তাবিত বাজেটে

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আগামীকাল ৭ জুন বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করবেন। এটি বর্তমান সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদের পঞ্চম এবং অর্থমন্ত্রীর ব্যক্তিগত বারতম বাজেট। একাধারে ১০ বার বাজেট দিয়ে আবুল মাল আব্দুল মুহিত অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে যাচ্ছেন। আর কালকেই অর্থমন্ত্রীর জীবনের শেষ বাজেট উপস্থাপন করবেন বলে তিনি ইতিমধ্যে জানিয়েছেন।
এদিকে প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ধরা হয়েছে ৪ লাখ ৬৮ হাজার ২০০ কোটি টাকা। উন্নয়ন বাজেটে এডিপির আকার ১ লাখ ৮০ হাজার ৮৬৯ কোটি টাকা। অনুন্নয়ন বাজেটের সম্ভাব্য আকার ২ লাখ ৮৭ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা। বাজেটে রাজস্ব আয় ৩ লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকা।
সিগারেট ও মোবাইল ফোন কোম্পানিগুলোর কর হার আগের মতোই অপরবর্তীত থাকবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।
এছাড়া পুঁজিবাজারকে দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগের উৎস হিসেবে তৈরি করতে আগামী বাজেটে নীতি সহায়তা থাকবে। আসন্ন বাজেটে করপোরেট ট্যাক্স কমানোর পক্ষে ব্যবসায়ী বিভিন্ন মহল থেকে দাবি উঠে এসেছে। সেই দাবির প্রেক্ষিতে সরকারও এবারের বাজেটে এ বিষয়ে নতুন সিদ্ধান্ত নিতে পারে বলে জানা গেছে।
জানা যায়, আজ ৬ জুনের মধ্যে বাজেট ডকুমেন্টস বি.জি. প্রেস থেকে সংগ্রহ এবং জাতীয় সংসদে পৌছানোর যাবতীয় কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। প্রতিবারের মতো এবারো ডিজিটাল পদ্ধতিতে অর্থাৎ পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে বাজেট উপস্থাপন করা হবে। কাল বাজেট বক্তৃতা: বাজেটের সংক্ষিপ্তসার; বার্ষিক আর্থিক বিবৃতি; সম্পূরক আর্থিক বিবৃতি; মধ্যমেয়াদি সামষ্টিক অর্থনৈতিক নীতি বিবৃতি; বিকশিত শিশু সমৃদ্ধ বাংলাদেশ; ডিজিটাল বাংলাদেশের পথে অগ্রযাত্রাঃ হালচিত্র ২০১৮; জলবায়ু ঝুঁকি মোকাবেলা; জেন্ডার বাজেট প্রতিবেদন; সংযুক্ত তহবিল-প্রাপ্তি; বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমীক্ষা -২০১৮; মঞ্জুরি ও বরাদ্দের দাবীসমূহ (অনুন্নয়ন ও উন্নয়ন); বিস্তারিত বাজেট (উন্নয়ন); মধ্যমেয়াদি বাজেট কাঠামো এবং রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানসমূহের ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট সংক্ষিপ্তসার ওয়েবসাইটে প্রকাশসহ জাতীয় সংসদ হতে সরবরাহ করা হবে। একই সঙ্গে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ প্রণীত ব্যাংক, বীমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের কার্যাবলী- ২০১৭-১৮ জাতীয় সংসদে পেশ করা হবে।
বাজেটকে আরো অংশগ্রহণমূলক করার লক্ষ্যে অর্থ বিভাগের ওয়েবসাইট www.mof.gov.bd-এ বাজেটের সকল তথ্যাদি ও গুরুত্বপূর্ণ দলিল যে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান পাঠ ও ডাউনলোড করতে পারবেন এবং দেশ-বিদেশ থেকে এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফিডব্যাক ফরম পূরণ করে বাজেট সম্পর্কে মতামত ও সুপারিশ প্রেরণ করা যাবে। প্রাপ্ত সকল মতামত ও সুপারিশ বিবেচনা করা হবে। জাতীয় সংসদ কর্তৃক বাজেট অনুমোদনের সময়ে ও পরে তা কার্যকর করা হবে।
শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

Top