কর ফাঁকির শাস্তি বাড়াতে প্রস্তাব

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেট বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা অনেক বছর ধরেই করের হার আর বাড়াচ্ছি না। বরং করের হার ক্রমান্বয়ে কমছে। এ বছর ব্যাংকিং ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের করহার কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য হলো, কর হার না বাড়িয়ে বরং কর প্রদান নিশ্চিত করে এবং কর ফাঁকি ও কর পরিহার রোধ করে রাজস্ব বাড়ানো। আমাদের বেশিরভাগ করদাতাই আয়করের বিধিবিধান মেনে ঠিক মতো কর দেন। তবে, যারা ফাঁকি দেন তাদের জন্য আমরা বেশ শক্ত পদক্ষেপ নেব। এ লক্ষ্যে আইনি সংস্কারের উল্লেখযোগ্য প্রস্তাবগুলো হলো:

ক. কর আইনের বিভিন্ন বিধান পরিপালনের ব্যর্থতায় আরোপযোগ্য জরিমানার আওতা সম্প্রসারণ ও জরিমানার পরিমাণ বৃদ্ধি করে যৌক্তিক পর্যায়ে উন্নীত করা।

খ. আয়কর কর্তৃপক্ষ কোন ব্যক্তির নিকট তথ্য চাওয়ার পর ঐ ব্যক্তি তথ্য গোপন করলে বা ইচ্ছাকৃতভাবে আয়কর কর্তৃপক্ষকে ভুল তথ্য দিলে তার জন্য শাস্তির বিধান সংযোজন।

গ. কোন করদাতা প্রযোজ্য ক্ষেত্রে উৎস কর রিটার্ন দাখিল না করলে অথবা বেতনভোগী কর্মীদের বেতনভাতার তথ্য বা রিটার্ন দাখিল বিষয়ক তথ্য কর বিভাগের নিকট দাখিল না করলে সে করদাতার আয়কর রিটার্নকে অডিটের আওতায় আনা হবে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top