নেইমারকে ঘায়েল করার দায়িত্বে ছিলেন বেহরামি! (ছবিসহ)

শেয়ারবাজার ডেস্ক: ১৯৭৮ সাল অর্থাৎ ৪০ বছর পর এই প্রথম বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে জিতেনি ব্রাজিল। রবিবার (১৭ জুন) রাতে রস্তোভ-অন-ডনে ‘ই’ গ্রুপের ম্যাচটি সুইজারল্যান্ডের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র হয়েছে ব্রাজিল। ফিলিপে কৌতিনিয়ো প্রথমার্ধের ১৯ মিনিটে ব্রাজিলকে এগিয়ে নেয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধের ৪৯ মিনিটে স্টিভেন সুবারের গোলে সমতায় ফেরে সুইজারল্যান্ড।

 

বিশ্বকাপে এ নিয়ে দ্বিতীয়বার মুখোমুখি হলো দল দুটি। ১৯৫০ সালে ব্রাজিল বিশ্বকাপের ম্যাচটি ড্র হয়েছিল ২-২ গোলে।

শতভাগ ফিট না থাকলেও পুরো ম্যাচেই খেলেন নেইমার। দলকে জেতানোর সুযোগ এসেছিল তার সামনে কিন্তু কাজে লাগাতে পারেননি তিনিও। পুরো ম্যাচজুড়ে সদ্য চোট থেকে ফেরা নেইমারকে ঘায়েল করার দায়িত্ব ছিল সুইস মিডফিল্ডার ভ্যালন বেহরামির।

ফলে নিজেকে ঠিকমতো প্রস্ফুটিতই করতে পারেননি নেইমার।

পুরো ম্যাচে দশ-দশবার ফাউলের শিকার হয়েছেন নেইমার। সুইস খেলোয়াড়েরা যেন নেইমারকে লক্ষ্য বানিয়েই মাঠে নেমেছিলেন। নেইমারের কাছে উড়ে আসা কোনো বলই দখল করতে দেননি ভ্যালন বেহরামি।

ভ্যালন বেহরামির কার্যকলাপ দেখেই স্পষ্ট হয়েছে নেইমারকে ঘায়েল করাই ছিল তার মূল লক্ষ্য। পরে অবশ্য বেহরামি একটা হলুদ কার্ড পেলে তাকে মাঠ থেকে উঠিয়ে নেন কোচ ভ্লাদিমির পেতকোভিচ।

গ্রানিত শাকা, স্টেফান লিখটস্টাইনার, ম্যানুয়েল আকাঞ্জি, ফাবিয়ান শায়ের, ডেনিস জাকারিয়া প্রভৃতি খেলোয়াড়দেরও মূল লক্ষ্য ছিলেন এই নেইমার।

তবে সুইজারল্যান্ডের কোচ ভ্লাদিমির পেটকোভিচ দাবি করেছেন, নেইমারকে তারা টার্গেট করেননি।

রবিবার (১৭ জুন) রাতে নেইমারকে যে টার্গেট করা হয়েছিল তার একটা ছোট্ট পরিসংখ্যান দেয়া যাক-

খেলা শুরুর ১৪ মিনিটেই নেইমারকে ডি বক্সের সামনে কঠিন ট্যাকল করে বসেন বেহরামি। বল নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার মুহূর্তে নেইমারের পায়ের সঙ্গে পেঁছিয়ে তাকে ফেলে দেন।

৩১ মিনিটে পেছন থেকে নেইমারকে আঘাত করেন সুইজারল্যান্ডের অধিনায়ক লিচস্টেইনার। ফলে হলুদ কাড দেখতে হয় তাকে।

৬৫ মিনিটে ফ্যাবিয়ান স্কারের পর ৬৮ মিনিটে হলুদ কার্ড দেভেন ভ্যালন বেহরামি।

শেষ দিকে ফার্নান্দিনহো, রেনাতো আগুস্তো এবং রবার্তো ফিরমিনোকে নামিয়েও গোলের দেখা পায়নি ব্রাজিল। বরং ৮৮ মিনিটে দারুণ এক হেড করেও গোলের দেখা পায়নি নেইমার।

গোলরক্ষক সোমের ঠেকিয়ে দেন সেটা। ৯০ মিনিটে নেইমারের ফ্রি কিক থেকে বল পেয়ে ফিরমিনো দারুণ হেড করলেও গোলরক্ষক সোমার সেটি ফিরিয়ে দেন।

উল্লেখ্য, ২০১৪ আসরে দেশের মাটিতে সেমি-ফাইনালে জার্মানির কাছে ৭-১ গোলে উড়ে গিয়েছিল ব্রাজিল।

আগামী শুক্রবার (২২ জুন) নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে কোস্টারিকার বিপক্ষে খেলবে ব্রাজিল। একই দিন সার্বিয়ার মুখোমুখি হবে সুইজারল্যান্ড।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top