মিউচ্যুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগকারীর লোকসান প্রায় সাড়ে ৩০০ কোটি টাকা

mutualfundশেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত মেয়াদি ৩৩টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৩৪৮ কোটি ৫৭ লাখ টাকা লোকসানে পড়েছে সংশ্লিষ্ট বিনিয়োগকারীরা।

ফান্ডগুলোর নীট সম্পদ মূল্য (এনএভি) ক্রয় মূল্যের তুলনায় বর্তমান বাজার মূল্য কমে যাওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এই ৩৩টি ফান্ডের মধ্যে ক্রয় মূল্যের তুলনায় বাজার মূল্যে এনএভি কমেছে ২৮টি ফান্ডের। এই হিসেবে মাত্র ৫টি ফান্ডের এনএভি বিনিয়োগের অনুকুলে রয়েছে অর্থাৎ তাদের ক্রয় মূল্যের তুলনায় বাজার মূল্য বেড়েছে।

এর মধ্যে সম্পদ ব্যবস্থাপক আইসিবিএএমসিএল পরিচালিত ১০টি ফান্ডের মধ্যে সবগুলোরই বাজার মূল্য কমেছে। রেস পরিচালিত ১০টি ফান্ডের মধ্যে ৯টি ফান্ডেরই বাজার মূল্য কমেছে। এলআর গ্লোবাল পরিচালিত ৬টি ফান্ডের মধ্যে সবগুলোরই বাজার মূল্য কমেছে। এশিয়ান টাইগার অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট পরিচালিত একমাত্র ফান্ডটিরও বাজার মূল্য কমেছে। ভিআইপিবি  পরিচালিত ২টি ফান্ডেরই বাজার মূল্য কমেছে। এইমস পরিচালিত ৪টি ফান্ড এবং রেস পরিচালিত একটি ফান্ড মিলিয়ে মাত্র ৫টি ফান্ডের ক্রয় মূল্যের তুলনায় বাজার মূল্য বেড়েছে।

অপরদিকে এই ৩৩টি ফান্ডের মধ্যে ২০টি ফান্ডের এনএভি ফেসভ্যালুর (অভিহিত মূল্য) নিচে নেমে এসেছে।

৭ মে, ২০১৫ পর্যন্ত সমাপ্ত হিসাব শেষে প্রকাশিত ফান্ডগুলোর এনএভি ও ক্রয়মূল্যে এবং বাজারমূল্যে মোট সম্পদের পরিমাণ পর্যালোচনা করে এ তথ্য জানা গেছে।

রাষ্ট্রায়ত্ত্ব আইসিবি পরিচালিত আটটি ফান্ডকে বাদ দিয়ে এ পর্যালোচনা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, মিউচ্যুয়াল ফান্ডের বিনিয়োগকে সম্পদ হিসেবে ধরা হয়। অন্যদিকে মেয়াদি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মেয়াদ শেষে আইন অনুযায়ী নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠান দ্বারা বর্তমান বাজারমূল্যে নির্ধারিত এনএভি অনুযায়ী ইউনিট হোল্ডাররা তাদের বিনিয়োগকৃত টাকা ফেরত পাবেন। কিন্তু এ ২৮ ফান্ডের এনএভি’র বর্তমান বাজারমূল্য ক্রয়মূল্যের তুলনায় কম হওয়ায় এসব ফান্ডের বিনিয়োগকারীরা লোকসানে আছেন।

আইসিবিএএমসিএল: এই সম্পদ ব্যবস্থাপকের অধীনে তালিকাভুক্ত ১০টি মেয়াদি ফান্ড রয়েছে।

আইসিবি সোনালী ব্যাংক মিউচ্যুয়াল ফান্ড ওয়ান: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৮.৭২ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৮৭ কোটি ১৭ লাখ ৮৬ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.১৭ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১১১ কোটি ৬৯ লাখ ৭৮ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২৪ কোটি ৫১ লাখ ৯২ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৫.৫০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

আইএফআইএল ইসলামিক ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৮.৬১ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৮৬ কোটি ৫ লাখ ৩৫ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৪৮ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১১৪ কোটি ৭৭ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২৮ কোটি ৭২ লাখ ২১ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৫.৫০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

আইসিবি৩য়এনআরবি: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৬.৩০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৬২ কোটি ৯৮ লাখ ৩৪ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৪১ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১১৪ কোটি ৫ লাখ ১৭ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৫১ কোটি ৬ লাখ ৮২ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.৪০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

ফোনিক্স ফাইন্যান্স১ম মিউচ্যুয়াল ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৬.৬০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৩৯ কোটি ৬০ লাখ ১৫ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৫৬ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৬৯ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২৯ কোটি ৭৫ লাখ ৮৬ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.২০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

প্রাইমব্যাংক ১ম মিউচ্যুয়াল ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৭.০৩ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৭০ কোটি ২৮ লাখ ২১ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৭৪ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১১৭ কোটি ৩৯ লাখ ৫১ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৪৭ কোটি ১১ লাখ ২৯ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.১০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

আইসিবি এমপ্লয়েজ প্রভিডেন্ড ফান্ড ওয়ান: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৬.৭৫ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৫০ কোটি ৬২ লাখ ৭৫ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৮১ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৮৮ কোটি ৫৭ লাখ ৫৮ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৩৭ কোটি ৯৪ লাখ ৮২ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.৩০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

আইসিবিএএমসিএল২য় ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৬.৯৭ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৩৪ কোটি ৮২ লাখ ৫৮ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১৩.০৯ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৬৫ কোটি ৪৩ লাখ ৯৫ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৩০ কোটি ৬১ লাখ ৩৭ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.২০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

১ম প্রাইম ফাইন্যান্স ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৮.১০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১৬ কোটি ২০ লাখ টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১৫.৯১ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৩১ কোটি ৮২ লাখ ৩৮ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১৫ কোটি ৬২ লাখ ৩৫ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে।

আইসিবি ২য় এনআরবি: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.০৪ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৯০ কোটি ৩৬ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১৪.৯৫ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১৪৯ কোটি ৪৮ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৫৯ কোটি ১১ লাখ ৮৭ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৬.৪০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

আইসিবি১ম এনআরবি: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ২০.০৭ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ২০ কোটি ৭ লাখ ১১ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ৩৪.১৭ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৩৪ কোটি ১৬ লাখ ৬৭ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১৪ কোটি ৯ লাখ ৫৬ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে।

রেস: এই সম্পদ ব্যবস্থাপকের অধীনে তালিকাভুক্ত ১০টি মেয়াদি ফান্ড রয়েছে।

এবিবি১ম ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ১১.৪৭ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ২০১ কোটি ৬৬ লাখ ১৪ হাজার টাকা। ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.০১ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১৯৩ কোটি ৬০ লাখ ৪৭ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৮ কোটি ৫ লাখ ৬৭ হাজার টাকা মুনাফায় রয়েছে। কিন্তু ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.৯০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

ইবিএলএনআরবি ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.৭০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১৭২ কোটি ৩৯ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১০.৯১ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১৯৩ কোটি ৭৬ লাখ ৩২ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২১ কোটি ৩৬ লাখ ৭৮ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.২০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

পিএইচপি মিউচ্যুয়াল ফান্ড ওয়ান: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.৬৭ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ২১১ কোটি ৪৪ লাখ ৬৩ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৫৫ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ২৫২ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৪১ কোটি ১৪ লাখ ৪১ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.২০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

পপুলার লাইফ ১ম ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ১০.৪১ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ২৩৫ কোটি ৩৫ লাখ ৫১ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৬০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ২৬২ কোটি ৩৩ লাখ ৩৬ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২৬ কোটি ৯৭ লাখ ৮৪ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.৩০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

এক্সিম ব্যাংক ১ম ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ১০.৩৮ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১১৪ কোটি ৬৬ লাখ ৮৪ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১০.৬৯ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১১৮ কোটি ৬ লাখ টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৩ কোটি ৩৯ লাখ ১৭ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৬.০০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

ফার্স্ট বাংলাদেশ ফিক্সড ইনকাম ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ১০.৪৭ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৬২৭ কোটি ৮৮ লাখ ৪২ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১০.৭২ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৬৪৩ কোটি টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১৫ কোটি ১২ লাখ ৬২ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৫.৮০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

১ম জনতা ব্যাংক ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ১০.২৪ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ২২৭ কোটি ৪১ লাখ ৩৩ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৩১ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ২৫১ কোটি ১১ লাখ ২৬ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২৩ কোটি ৬৯ লাখ ৯৩ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.৪০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

আইএফআইসি১ম ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.৯৪ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১৪০ কোটি ২৮ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.২১ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১৫৮ কোটি ১৯ লাখ ২০ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১৭ কোটি ৯০ লাখ ৭৬ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.৫০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

ট্রাস্ট ব্যাংক১ম ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.৯৯ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ২৩৬ কোটি ৭৫ লাখ ৩৪ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১০.৯০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ২৫৮ কোটি ১৬ লাখ ৯৩ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২১ কোটি ৪১ লাখ ৫৮ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.৬০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

ইবিএল১ম মিউচ্যুয়াল ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.২৫ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১০০ কোটি ৯৪ লাখ ৮০ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৫৮ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১২৬ কোটি ৪৩ লাখ ৮৮ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২৫ কোটি ৪৯ লাখ টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.৬০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

এলআর গ্লোবাল: এই সম্পদ ব্যবস্থাপক কোম্পানির অধীনে তালিকাভুক্ত ৬টি মেয়াদি ফান্ড রয়েছে।

এনসিসি ব্যাংক মিউচ্যুয়াল ফান্ড ওয়ান: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.২২ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১০০ কোটি ৩ লাখ ৪৫ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১০.৮৮ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১১৮ কোটি ৬ লাখ টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১৮ কোটি ২ লাখ ৬১ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৩.৮০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

এলআর গ্লোবাল মিউচ্যুয়াল ফান্ড ওয়ান: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.৬৬ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৩০০ কোটি ৩৮ লাখ ৮২ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১০.৯৭ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৩৪১ কোটি ১৭ লাখ ১১ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৪০ কোটি ৭৮ লাখ ২৯ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৩.৯০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

এমবিএল১ম ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.২২ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৯২ কোটি ১৭ লাখ ৯৪ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১০.৯৩ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১০৯ কোটি ২৫ লাখ ৪৬ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১৭ কোটি ৭ লাখ ৫১ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৩.৭০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

এআইবিএল ১ম ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.৪২ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৯৪ কোটি ১৫ লাখ ৩২ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১০.৯০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১০৮ কোটি ৯৭ লাখ ১১ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১৪ কোটি ৮১ লাখ ৭৮ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.০০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

গ্রীণডেল্টা মিউচ্যুয়াল ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.৩৮ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১৪০ কোটি ৭৩ লাখ ১৬ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১০.৬০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১৫৯ কোটি টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১৮ কোটি ৩১ লাখ ৯১ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.০০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

ডিবিএইচ১ম মিউচ্যুয়াল ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৯.১০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১০৯ কোটি ১৪ লাখ ৫৫ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১০.৮৬ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১৩০ কোটি ৩৭ লাখ ১১ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২১ কোটি ২২ লাখ ৫৬ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৪.২০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

এশিয়ান টাইগার অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট: এ সম্পদ ব্যবস্থাপকের অধীনে তালিকাভুক্ত একটি মেয়াদি মিউচ্যুয়াল ফান্ড রয়েছে। যা চলতি বছরে তালিকাভুক্ত হয়েছে। লেনদেনের শুরুতেই ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে আসে। অপরদিকে ফান্ডটির এনএভি’ও ক্রয় মূল্যের তুলনায় কমেছে।

এশিয়ান টাইগার সন্ধানি লাইফ গ্রোথ ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ১১.৬৯ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৭০ কোটি ৮৫ লাখ ২১ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৮৮ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৭১ কোটি ৯৯ লাখ ১৬ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১ কোটি ১৩ লাখ ৯৫ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৬.৩০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

এইমস: এই সম্পদ ব্যবস্থাপকের অধীনে তালিকাভুক্ত ৪টি মেয়াদি ফান্ড রয়েছে।

রিল্যায়েন্স ওয়ান: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ১২.১০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৭৩ কোটি ২০ লাখ ৯৭ হাজার টাকা। ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৬৬ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৭০ কোটি ৫৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২ কোটি ৬৬ লাখ ৬৭ হাজার টাকা মুনাফায় রয়েছে। কিন্তু ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৫.৯০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

গ্রামীণ স্কীম টু: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ১৮.৬২ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ২৯৪ কোটি ৪২ লাখ ৮৭ হাজার টাকা। ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১১.৩০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১৭৮ কোটি ৬৮ লাখ ১২ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১১৫ কোটি ৭৪ লাখ ৭৫ হাজার টাকা মুনাফায় রয়েছে।

গ্রামীণ ওয়ান: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ২৯.৮৫ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৯৮ কোটি ৯৪ লাখ ৩২ হাজার টাকা। ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১২.৩২ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৪০ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৫৮ কোটি ১০ লাখ ২৪ হাজার টাকা মুনাফায় রয়েছে।

এইমস১ম মিউচ্যুয়াল ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ৩৬.৯০ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ২২৯ কোটি ৪২ লাখ ২২ হাজার টাকা। ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১৪.২৯ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৮৮ কোটি ৮৪ লাখ ৮০ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ১৪০ কোটি ৫৭ লাখ ৪১ হাজার টাকা মুনাফায় রয়েছে।

ভিআইপিবি: এই সম্পদ ব্যবস্থাপকের অধীনে তালিকাভুক্ত ২টি মেয়াদি ফান্ড রয়েছে।

এনএলআই ১ম ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ১২.২৪ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ৬১ কোটি ৬১ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১২.৬৬ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ৬৩ কোটি ৭১ লাখ ৩৭ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ২ কোটি ৯ লাখ ৭০ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৮.৩০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

এসইবিএল১ম মিউচ্যুয়াল ফান্ড: বর্তমান বাজার মূল্যে ফান্ডটির এনএভি হয়েছে ১১.৭২ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির মোট সম্পদ মূল্য হয়েছে ১১৬ কোটি ৯২ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। অথচ ক্রয় মূল্যে ফান্ডটির এনএভি ছিল ১২.২৩ টাকা। এই হিসাবে ফান্ডটির সম্পদ মূল্য ছিল ১২২ কোটি ৬ লাখ ৫৪ হাজার টাকা। সুতরাং বিনিয়োগকারীরা এ ফান্ডে বিনিয়োগ করে ৫ কোটি ১৩ লাখ ৭৫ হাজার টাকা লোকসানে রয়েছে। তাছাড়া ফান্ডটির ইউনিট দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে বর্তমানে ৮.০০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

লোকসান প্রসঙ্গে প্রাইম অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক শেয়ারবাজারনিউজ ডট কমকে বলেন, পুঁজিবাজারে মন্দাভাবের কারণে অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারদর কমেছে। তাই ফান্ডগুলোরও সম্পদ মূল্য কমেছে। তাছাড়া রাজনৈতিক অস্থিরতায় দেশের বিনিয়োগ পরিস্থিতিও অনুকূলে ছিল না। যার প্রভাব মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ওপর পড়েছে। তবে অধিকাংশ ফান্ডের ইউনিট দর এনএভির নিচে থাকায় ফান্ডগুলো এখনও বিনিয়োগ উপযোগী অবস্থায় রয়েছে।

পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. আবু আহমেদ এ বিষয়ে শেয়ারবাজার নিউজ ডট কমকে বলেন, ‘চলমান মন্দাবস্থা থেকে মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলো বের হতে পারছে না। যা তাদের সম্পদ ব্যবস্থাপকদের অদক্ষতারই প্রমাণ দেয়। তাছাড়া এসব ফান্ড খুব বেশি ডিভিডেন্ডও দিতে পারছে না। আর মিউচ্যুয়াল ফান্ডগুলোর ব্যর্থতার মূল্য কিন্তু সাধারণ বিনিয়োগকারীদেরকেই দিতে হচ্ছে। তাই এ অবস্থা থেকে উত্তোরণের জন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) তদারকি জোরদার করা জরুরি।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/তু/অ/সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top