বড় কোম্পানি থেকে মুনাফা তুলেছেন বিনিয়োগকারীরা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের পতন দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিন লেনদেনের শুরুতে উত্থান থাকলেও ১০ মিনিট পর সেল প্রেসারে নামতে থাকে সূচক। বৃহস্পতিবার সূচকের পাশাপাশি কমেছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকেও লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা কমেছে। আজ দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৮৫২ কোটি ৯৭ লাখ ৫৮ হাজার টাকা।

বিভিন্ন সিকিউরিটিজ হাউজ ও মার্চেন্ট ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বললে তারা জানান, বাজারের হেভিওয়েট কোম্পানি বলতে প্রথমেই রয়েছে ব্যাংক খাতের কোম্পানিগুলো। কারণ বাজার মূলধনের একটি বড় অংশ ব্যাংক সেক্টরের দখলে। ব্যাংক খাতে দরপতনের কারণে পুরো বাজারে নেতিবাচক পড়েছে। শেয়ার ক্রয়ের চেয়ে বিক্রয়ের পরিমাণ বেশি হওয়ায় বাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। আবার কেউ কেউ বাজারে কারেকশনের অপেক্ষায় রয়েছেন বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। তবে এ অবস্থা খুব একটা স্থায়ী নয় পাশাপাশি আজকের লেনদেন ৮‘শো কোটির ঘরে থাকায় ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন তারা।

আজ দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ২০ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৫৩৫৮ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ০.৩৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১২৬৭ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৯০৬ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৩৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৯১টির, কমেছে ২২২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৫টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৮৫২ কোটি ৯৭ লাখ ৫৮ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স ৭ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ৫৩৭৯ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১২৬৬ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ১৯১৫ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ১১৫ কোটি ২৯ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ২৬২ কোটি ৩২ লাখ ২১ হাজার টাকা।

এদিকে, দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক সিএসইএক্স ৭৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৯ হাজার ৯৯৪ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৫৯টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৬৪টির, কমেছে ১৮১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৪টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৪৮ কোটি ১৭ লাখ ১০ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top