চার কোম্পানির আইপিও নিয়ে বিপাকে বিনিয়োগকারীরা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: মাত্র কিছুদিন হলো ভিএফএফ থ্রেড ডাইংয়ের আইপিও আবেদন শেষ হয়েছে। কোম্পানিটির আইপিও লটারি আগামীকাল অনুষ্ঠিত হবে। অর্থাৎ এ কোম্পানির আইপিও আবেদন করা বিনিয়োগকারীদের টাকা আটকে রয়েছে। এখন চলছে এমএল ডাইংয়ের আইপিও আবেদন। আগামীকাল কোম্পানিটির আইপিও আবেদন শেষ হবে। এর লটারি, সাবস্ক্রিপশন ও রিফান্ডের আগ পর্যন্ত এ কোম্পানিতেও বিনিয়োগকারীদের টাকা আটকে থাকবে। তারওপর এতোদিন স্থগিত থাকা ইন্দোবাংলা ফার্মাসিউটিক্যালসের আইপিও আবেদন আগামী ২২ জুলাই থেকে শুরু হয়ে ২৬ জুলাই পর্যন্ত চলবে। ইন্দোবাংলার আইপিও আবেদন শেষ হওয়ার একদিন পরেই অর্থাৎ আগামী ২৯ জুলাই শুরু হবে সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালসের আইপিও আবেদন।

একই মাসে একসঙ্গে চার কোম্পানির আইপিও আবেদনের তারিখ নির্ধারণ হওয়ায় বিপাকে রয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। বিনিয়োগকারীরা বলছেন, পুঁজিবাজারে নতুন কোম্পানি আসলে বাজারের গভীরতা বৃদ্ধি পায়। ফেসভ্যালু বা ১০ টাকার আইপিওতে বিনিয়োগকারী ভালো পরিমাণ মুনাফা করতে পারে। কিন্তু একসঙ্গে বেশি কোম্পানির আইপিও চললে একদিকে যেমন বিনিয়োগকারীরা আবেদন করতে নগদ অর্থের সংকটে থাকেন অন্যদিকে সেকেন্ডারি লেনদেন চললেও এগুলো থেকে তেমনটা মুনাফা অর্জন করা যায় না। তাই একসঙ্গে এতোগুলো কোম্পানির আইপিও না দেয়ার পক্ষে রয়েছেন বিনিয়োগকারীরা।

ফেসভ্যালুতে আবেদনের সুযোগ থাকায় এর থেকে ভালো মুনাফার প্রত্যাশা করছেন আইপিও আবেদনকারীরা। কারণ সেকেন্ডারি মার্কেটে সরাসরি বিনিয়োগের চেয়ে প্রাইমারি মার্কেটে বিনিয়োগ নিরাপদ হওয়ায় এই আইপিওকে ঘিরেই বিনিয়োগকারীদের নানা প্রত্যাশা তৈরি হয়।

সাধারণত বিনিয়োগকারীরা একটি আইপিও আবেদন শেষ হওয়ার পর সেটির টাকা দিয়ে অন্যটির আবেদন করে থাকেন। কিন্তু একসঙ্গে এতোটি আইপিও থাকায় নগদ অর্থের সংকটে থাকা বিনিয়োগকারীরা আবেদন করা নিয়ে সংশয়ে রয়েছেন। তাই এ বিষয়টি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) পুন:বিবেচনা করা দরকার বলে মনে করছেন ভুক্তভোগিরা।

উল্লেখ্য, ভিএফএস থ্রেড ডাইং ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ২ কোটি ২০ লাখ শেয়ার ইস্যু করে ২২ কোটি টাকা তুলবে। এ টাকা দিয়ে কোম্পানিটি প্ল্যান্ট ও মেশিনারিজ ক্রয়, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ ও আইপিও খরচে ব্যয় করবে। এমএল ডাইং ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ২ কোটি সাধারণ শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ২০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। উত্তোলিত টাকা দিয়ে কোম্পানিটি যন্ত্রপাতি ও কলকব্জা ক্রয় এবং স্থাপনের পাশাপাশি আইপিওতে খরচ করবে।

ইন্দো-বাংলা ফার্মা আইপিওর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ২০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। কোম্পানিটি ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ২ কোটি শেয়ার ছেড়ে বাজার থেকে এ অর্থ উত্তোলন করবে। সিলভা ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেডের আইপিও আবেদন ২৯ জুলাই জুলাই কোম্পানিটির আইপিও আবেদন শুরু হবে। আগামী ৫ আগষ্ট পর্যন্ত বিনিয়োগকারীরা এ কোম্পানির শেয়ারে আবেদন করতে পারবেন। কোম্পানিটি ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ৩ কোটি সাধারণ শেয়ার ইস্যু করে ৩০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। উত্তোলিত অর্থে সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস মেশনারিজ ও যন্ত্রপাতি ক্রয়, কারখানা ভবন নিমার্ণ,  ব্যাংক ঋণ পরিশোধ এবং আইপিওর খরচ বাবদ এ টাকা ব্যয় করবে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top