মুদ্রানীতি ইস্যুতে পর্যবেক্ষণে বিনিয়োগকারীরা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: আগামী ৩১ জুলাই মুদ্রানীতি ঘোষণা করবে বাংলাদেশ। আর এই মুদ্রানীতি ইস্যুতে সাইডলাইনে রয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। পোর্টফলিও ম্যানেজাররা মুদ্রানীতির অপেক্ষায় বাজার পর্যবেক্ষণ করছেন। যে কারণে দৈনিক লেনদেনে বিরূপ প্রভাব পড়েছে।

আজ সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের পতনে শেষ হয়েছে লেনদেন। এদিন লেনদেনের শুরুতে উত্থান থাকলেও পৌনে দুই ঘন্টা পর সেল প্রেসারে টানা নামতে থাকে সূচক। এরই ধারাবাহিকতায় টানা চার কার্যদিবস ধরে সূচকের পতন হচ্ছে। আজ রোববার সূচকের পাশাপাশি কমেছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকেও লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা কমেছে। আজ দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৫৭৭ কোটি ৩৪ লাখ ৪৭ হাজার টাকা।

আজ দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ২৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৫২৮০ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১২৪৮ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ১১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৮৭৮ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৩৬টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১০৩টির, কমেছে ১৯৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৬টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৫৭৭ কোটি ৩৪ লাখ ৪৭ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স ১৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ৫৩০৫ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১২৫৯ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১৮৯০ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ৮৫৫ কোটি ৬২ লাখ ৫৭ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ২৭৮ কোটি ২৮ লাখ ১০ হাজার টাকা বা ৪৮.২০ শতাংশ।

এদিকে, দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক সিএসইএক্স ৬৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৯ হাজার ৮৪৪ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৪০টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৬১টির, কমেছে ১৫৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৪টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ২৮ কোটি ৪৯ লাখ ১০ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top