শেয়ারবাজার ছাড়ছেন বিদেশিরা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের শেয়ারবাজারে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ ধীরে ধীরে কমে যাচ্ছে। বাজারে বিদেশীরা শেয়ার ক্রয়ের চেয়ে শেয়ার বিক্রয় করতে বেশি দেখা যাচ্ছে। অর্থাৎ ক্রমেই তারা বাজার ছেড়ে বেড়িয়ে যাচ্ছেন। দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জে (ডিএসই) গত জুলাইয়ে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা শেয়ার বিক্রয়ের চেয়ে বিক্রি করছে বেশি। এর ফলে গত মাসে বিদেশিদের শেয়ার লেনদেন কমেছে ২৪৩ কোটি টাকা।

ডিএসই’র তথ্য মতে, জুলাই মাসে বিদেশিদের মোট লেনদেন হয়েছে ৮৫৬ কোটি ৭৯ লাখ ২ হাজার ২৬৪ টাকা। এর আগের মাসে অর্থাৎ জুনে লেনদেন হয়েছিলো ১ হাজার ৯৯ কোটি ৮৬ লাখ ৭৩ হাজার ৫৫১ টাকা। সে হিসেবে জুন মাসের তুলনায় জুলাইয়ে লেনদেন বিদেশি লেনদেন কমেছে ২৪৩ কোটি ৭ লাখ ৭১ হাজার ২৮৭ টাকা।

গত জুলাই মাসে বিদেশিরা শেয়ার কিনেছেন ৪১২ কোটি ৪ লাখ ১৯ হাজার ৪৫১ টাকার। তার বিপরীতে বিক্রি করেছেন ৪৪৪ কোটি ৭৪ লাখ ৮২ হাজার ৮১৩ টাকার। এর আগের মাস জুনে বিদেশিরা শেয়ার কিনেছেন ৬৫৩ কোটি ২৯ লাখ ৩ হাজার ৯৬০ টাকার আর বিক্রি করেছেন ৪৪৬ কোটি ৫৭ লাখ ৬৯ হাজার ৫৮৮ টাকার শেয়ার।

শেয়ার কেনার চেয়ে বিক্রি বেড়ে যাওয়ায় চলতি বছরের জুনের চেয়ে জুলাই মাসে বিনিয়োগকারীদের নিট বিনিয়োগ ১৭৪ কোটি ৭১ হাজার ১৩ টাকা থেকে কমে দাঁড়িয়েছে ৩২ কোটি ৭ লাখ ৬৩ হাজার ৩৬২ টাকায়। এর আগের মাস জুনে নিট বিনিয়োগ হয়েছিলো ২০৬ কোটি ৭১ লাখ ৩৪ হাজার ৩৭৫ টাকা।

শুধু জুন মাস নয়, এর আগের মাস মে ও এপ্রিল মাসের চেয়েও লেনদেন কমেছে চলতি বছরের জুলাই মাসে। মে মাসে বিদেশিদের মোট লেনদেন হয়েছিলো ৯৬৫ কোটি ৯৯ লাখ ১৪ হাজার ৪২২ টাকা। আর এপ্রিল মাসে বিদেশিদের মোট লেনদেন হয়েছিলো ১ হাজার ৩০ কোটি ৭৪ লাখ ৫১ হাজার ৩৪৪ টাকা। এর ফলে লেনদেন ও প্রকৃত বিনিয়োগের পরিমাণও অনেক কমেছে বলে মনে করেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। আর এর বড় কারণ হিসেবে দেশের ব্যাংক ও বন্ডের সুদহার বেড়ে যাওয়াকে দায়ী করছের তারা।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলেন, বিদেশি বিনিয়োগকারীরা খুবই সচেতন। বিদেশিরা সব সময় ঝামেলা এড়িয়ে চলেন। বাজারে বিনিয়োগের আগে তারা অনেক দিক বিশ্লেষণ করে বিনিয়োগ করেন। বর্তমানে দেশের পরিস্থিতি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের উপর নজর রেখে বিদেশিরা বিনিয়োগ করছেন। তাছাড়া ডলারের বিপরীতে টাকার মূল্যমান কমে যাওয়া বিষয়টিও বিদেশিদের শেয়ার বিক্রির অন্যতম প্রধান কারণ বলে মনে করছেন তারা।

তারা বলেন, ডলারের ক্রমবর্ধমান বিনিময় হার বিদেশিদের সাম্প্রতিক বিনিয়োগ প্রত্যাহারের একটি বড় কারণ। বিদেশিরা আগে এক ডলার বেচে ৮০ টাকায় শেয়ার কিনেছিলেন। এখন তাদের এক ডলার কিনতে খরচ হচ্ছে ৮৪ টাকা থেকে ৮৪.৫০ টাকায়। ফলে বিনিময় হারেই তাদের লোকসান হচ্ছে। এছাড়াও আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের রাজনৈতিক অবস্থা বিবেচনা করে বিনিয়োগ করছেন বিদেশিরা। কেউ কেউ বাজার থেকে চলে যাচ্ছেন। তবে তারা আশা করছেন নির্বাচনের পর নতুন বিনিয়োগ বাড়বে।

গত কয়েকমাস ধরে বিদেশিদের নিট বিনিয়োগ কমে যাওয়ার কারণ সম্পর্কে ডিএসই’র পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমনকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, বর্তমানে দেশের পরিস্থিতি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের উপর নজর রেখে বিদেশিরা বিনিয়োগ করছেন। ডলারের বিপরীতে টাকার মূল্যমান কমে যাওয়ায় বিদেশিরা একটু সচেতনতার সাথে শেয়ার ক্রয়-বিক্রয় করছেন। এছাড়াও আগামী জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিদেশিদের মধ্যে নতুন করে শঙ্কা তৈরি হয়েছে। আর এ কারণেই বিদেশিরা শেয়ার বিক্রি করছেন বেশি।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

 

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top