আশরাফুলের মুক্তির দিনে নান্নু বিড়ম্বনা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ২০১৩ বিপিএলে ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকায় ২০১৪ সালে তিন বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞাসহ মোট ৮ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছিল জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়ার মো: আশরাফুলকে। তার আপিলের পর সেই শাস্তি কমে হয় ২ বছরের স্থগিতসহ ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা। আজ ১৩ আগস্ট সেই ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে উঠে ভক্তদের মনে নতুন দোলা দিতে শুরু করেছে আশরাফুল। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এখন আশরাফুল বন্দনা চলছে। গেল ঘরোয়া ক্রিকেট লিগে ৫টি সেঞ্চুরি করা আশরাফুলকে ওপেনার তামিম ইকবালের যোগ্য সঙ্গী হিসেবে চাইছে। কিন্তু সেই চাওয়ায় চিড়ে ধরালো প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

আর তাতেই যত বিপত্তি লেগে গেলো ভক্তদের মনে। ফেসবুকে তীব্র সমালোচনার মধ্যে রয়েছেন মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। ক্রিকেটার নান্নু দলের জন্য কি করেছে আর আশরাফুল দলের জন্য কি করেছে সেই পরিসংখ্যানও তুলে ধরছে ভক্তরা।

উল্লেখ্য, আশরাফুল প্রসঙ্গে প্রধান নির্বাচক বলেছেন, এই মুহূর্তে আশরাফুলের দলে কোনো জায়গা নেই। এখনই তাকে বিবেচনার সময় দেখছেন না তিনি। তার মতে,  ফিটনেসের অবস্থা দেখে প্রক্রিয়াগুলো পার করলে অন্তত বছরখানেক পর আশরাফুলকে নিয়ে ভাবা যায়।

সে অনেক ধরেই আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নেই। সুতরাং ঘরোয়া ক্রিকেটে সব ফরম্যাটে তাকে খেলতে হবে। ওর ফিটনেস আন্তর্জাতিক পর্যায়ের জন্য ঠিক আছে কিনা, সেটা দেখতে হবে। সাসপেসশন যাওয়ার পর সব ফরম্যাটে খেলুক, তারপর এক বছর যাওয়ার পর বুঝতে পারব তার ফিটনেস কোন লেভেলে আছে। এইচপি থেকে শুরু করে ‘এ’ দল ও জাতীয় দলের ফিটনেসের সাথে সে অ্যাটাচড না। এই জায়গায় আসতে হলে তাকে কিছু সময় দিতে হবে। এই লেভেলটা যদি থাকে, তাহলে চিন্তা করা যাবে। সুতরাং এই মুহূর্তে আমরা চিন্তা ভাবনা করছি না।”

নিষেধাজ্ঞা যখন কাটছে, আশরাফুল পেরিয়ে গেছেন ৩৪। তবে বয়সকে কোনো সমস্যা মনে করছেন না প্রধান নির্বাচক। তিনি চোখ রাখবেন ফর্ম ও ফিটনেসে। জাতীয় দলে এখন তুমুল প্রতিযোগিতা। মিনহাজুল তাই মনে করিয়ে দিলেন, আশরাফুলকে ফিরতে হলে করতে হবে বিশেষ কিছু।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

 

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top