আইপিও হোল্ডারদের অ্যাকাউন্টে ন্যূনতম ৫০ হাজার টাকা থাকা দরকার

বাংলাদেশ এর শেয়ার বাজারে লেনদেন ঘাটতি ও অস্হিতিশীলতা দুটোই নিত্য ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। শেয়ার বাজারের ইতিহাসে সেই ২০১০ সালেই ধসের পূর্বক যেটা হয়েছিল সেটাই শেষ। যদিও কেউই এটার পুনরাবৃত্তি চায়না, তবুও সবাই চায় অন্তত বাজারে স্হিতিশীলতা আসুক এবং লেনদেন বাড়ুক। কিন্তু নির্দিষ্ট কিছু কারনেই আজ তা সম্ভব হচ্ছে না।
বাজারের প্রতি নতুন ও পুরাতন বিনিয়োগকারীদের আস্থা না পাওয়া এর একটি অন্যতম কারণ। অথচ সামান্য একটি সহজ সরল উপায়ে এই লেনদেন ও আস্থা ফেরানো সম্ভব। সেটা হলো: বাজারে যে সব মৌসুমী BO account আছে এই account গুলোকে সচল রাখার পদক্ষেপ নেওয়া। এখানে মৌসুমী account বলতে সেই account যেসব account শুধু নতুন IPO আসার সময় ঐ Account গুলোতে IPO এর টাকা জমা রাখা হয়। এই Account গুলোতে বছরের পর বছর শুধু IPO করার জন্য সচল রাখা হয় ।
আর IPO তে ঐ account শেয়ার লটারি তে নাম উঠলে সেই শেয়ার বাজারের দরে বিক্রি করে তারা বাজার থেকে বেরিয়ে যায়। আর সেই শেয়ার নিয়ে সেকেন্ডারি মার্কেটে প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে যায়। এটা এক ধরনের বৈষম্য। ঐসকল বিওধারী বাজারে সামান্য ৫ হাজার টাকা নিয়ে এসে IPOতে শেয়ার পেয়ে সেই শেয়ার গুলো সাধারন বিনিয়োগকারী দের হাতে ধরিয়ে ৫গুন বা কোন কোন সময় ১০ গুন টাকা লাভ করে নিয়ে যায়।
আর এই অবস্থা দীর্ঘদিন ধরে আমাদের শেয়ার বাজারে বিদ্যমান ।
আমরাও চাই IPO হোক। নতুন নতুন শেয়ার বাজারে আসুক। কিন্তু এই IPO শিকারীদের হাত থেকে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের এই মরার উপর খাড়ার ঘা থেকে বাঁচানোর জন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে উদ্যোগ নিতে হবে। তা না হলে এই অবস্থা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব নয় ।
আর এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ উপায় হলো: যারা যারা এখন থেকে IPO তে অংশগ্রহণ করবে তাদের account কমপক্ষে ৫০ হাজার অথবা এক লাখ টাকার যে কোন কোম্পানির শেয়ার তার BO তে থাকতে হবে।
তাছাড়া সেই account থেকে IPO আবেদন করা যাবে না । আর এই সিদ্ধান্ত নিলেই বাজারে তারল্য সংকট দূর হবে, লেনদেন বাড়বে। সাধারণ বিনিয়োগকারীদেরও উপকার হবে সামগ্রিক বাজারে এর ইতিবাচক প্রভাব পড়বে । আর এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করলেও IPO শিকারীদের IPO করা বন্ধ হবে না।
আর যদি কেউ কমও অংশ নেন তাহলে সেটা সাধারণ বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণে উৎসাহ যোগাবে। তাই সমস্ত বাজারে বিরাট সাফল্য এনে দিতে নিয়ন্ত্রক সংস্থার এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করার জোর দাবি জানাচ্ছি।
লেখক ও গবেষকঃ মোঃ আব্দুল মতিন চয়ন।
investor -গ্লোব সিকিউরিটিজ লিঃ রাজশাহী
শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top