যে কারণে বিদেশিদের শেয়ার লেনদেন কমেছে

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের শেয়ারবাজারে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ অনেকটাই কমে গিয়েছে। বাজারে বিদেশীরা শেয়ার ক্রয়ের চেয়ে শেয়ার বিক্রয় করতে বেশি দেখা যাচ্ছে। অর্থাৎ ক্রমেই তারা বাজার ছেড়ে বেড়িয়ে যাচ্ছেন। দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক একচেঞ্জে (ডিএসই) চলতি মাসের প্রথম পক্ষে অর্থাৎ ১৫ দিনে (১-১৫ আগষ্ট) বিদেশীদের শেয়ার লেনদেনে কম অংশগ্রহন করতে দেখা গেছে। চলতি মাসের প্রথম পক্ষে শেয়ারবাজারে বিদেশিদের বিনিয়োগ কমেছে ৬৬.৬৩ শতাংশ বা ২৮৭ কোটি টাকা।

এ বিষয়ে একাধিক মার্চেট ব্যাংকের কর্মকর্তার সাথে কথা বললে তারা বলেন, বিদেশি বিনিয়োগকারীরা খুবই সচেতন। বিদেশিরা সব সময় ঝামেলা এড়িয়ে চলেন। বর্তমানে দেশের পরিস্থিতি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের উপর নজর রেখে বিদেশিরা বিনিয়োগ করছেন। তাছাড়া ডলারের বিপরীতে টাকার মূল্যমান কমে যাওয়া বিষয়টিও বিদেশিদের শেয়ার বিক্রির অন্যতম প্রধান কারণ বলে মনে করছেন তারা।

তারা বলেন, ডলারের ক্রমবর্ধমান বিনিময় হার বিদেশিদের সাম্প্রতিক বিনিয়োগ প্রত্যাহারের একটি বড় কারণ। বিদেশিরা আগে এক ডলার বেচে ৮০ টাকায় শেয়ার কিনেছিলেন। এখন তাদের এক ডলার কিনতে খরচ হচ্ছে ৮৩-৮৪ টাকায়। ফলে বিনিময় হারেই তাদের লোকসান হচ্ছে। এছাড়াও আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের রাজনৈতিক অবস্থা বিবেচনা করে বিনিয়োগ করছেন বিদেশিরা। কেউ কেউ বাজার থেকে চলে যাচ্ছেন। তবে তারা আশা করা যাচ্ছে নির্বাচনের পর নতুন বিনিয়োগ বাড়বে।

ডিএসইর তথ্যানুযায়ী, চলতি জুলাই মাসের প্রথম ১৫দিনে ১০ কার্যদিবস লেনদেন হয়েছে। এ ১০দিনে বিদেশীরা মোট ১৪৩ কোটি ৯০ লাখ ৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন করেছেন। এর আগের পক্ষে অর্থাৎ জুলাই মাসের শেষ ১৫ দিনে (১৬-৩০ জুলাই) বিদেশীরা মোট ৪৩১ কোটি ২৫ লাখ ৮০ হাজার টাকার লেনদেন করেছিল। সে হিসেবে দেখা যাচ্ছে আগের পক্ষের তুলনায় চলতি পক্ষে বিদেশীদের লেনদেন ৬৬.৬৩ শতাংশ কমেছে।

এছাড়াও গত বছরের একই সময় অনুযায়ী বিদেশিদের লেনদেন কমেছে ৬৮.৩৪ শতাংশ। ২০১৭ সালের ১-১৫ আগষ্ট বিদেশীরা লেনদেন করেছে ৪৫৪ কোটি ৫৭ লাখ ৯০ হাজার টাকা।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

Top