ডিএসই লিস্টিং রেগুলেসনস: পর্ব-৩

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: শেয়ারবাজারের সঙ্গে সম্পৃক্ত সকলকেই লিস্টিং রেগুলেশনস মেনে চলতে হয়। শেয়ারবাজার শিক্ষা এই বিভাগে আজকের পর্বটি সাজানো হয়েছে “ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (লিষ্টিং) রেগুলেশনস,২০১৫” এই প্রবিধানটি নিয়ে। পাঠকের ধৈর্য্যচ্যুতির বিষয়টি লক্ষ্য রেখে সম্পূর্ণ এই প্রবিধানটি বিভিন্ন পর্বে প্রকাশ করা হবে। আজ ৩য় পর্ব দেওয়া হলো: ০১. প্রথম পর্বের লিঙ্ক ০২. দ্বিতীয় পর্বের লিঙ্ক

‘সিকিউরিটিজ লিস্টিংয়ের ক্ষেত্রে যেসব ডকুমেন্টস জমা দিতে হয়

০৬. সিকিউরিটিজ তালিকাভুক্তির ক্ষেত্রে তথ্য ও ডকুমেন্টস: তালিকাভুক্তির আবেদনের সময় ইস্যুয়ার নিম্নোক্ত দলিলাদি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে যথাযথভাবে সত্যায়িত করবে এবং ইস্যু ম্যানেজারের মাধ্যমে তা এক্সচেঞ্জে জমা দেবে।

(১) ইক্যুইটি সিকিউরিটিজের তালিকাভুক্তি: ইক্যুইটি সিকিউরিটিজ লিস্টিংয়ের জন্য ইক্যুইটি সিকিউরিটিজের ইস্যুয়ার নিম্নোক্ত দলিলাদি দাখিল করবে। তবে শর্ত থাকে যে, পাবলিক ইস্যু রুলস অনুযায়ী গণ প্রস্তাবের (পাবলিক অফারিং) আবেদনের সময়ে দাখিল করা দলিলাদি পুনরায় জমা দেওয়ার প্রয়োজন নেই।

(ক) প্রেসক্রাইবড অনুযায়ী লিস্টিংয়ের আবেদন (তফসিল-এ এর এনেক্সয়ার-২)।

(খ) রেজিস্টার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মস (আরজেএসসি) কর্তৃক সার্টিফাইড মেমোরেন্ডাম এবং আর্টিক্যালস অব অ্যাসোসিয়েশন এর কপি।

(গ) রেজিস্টার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মস (আরজেএসসি) কর্তৃক সার্টিফাইড সার্টিফিকেট অব ইনকরপোরেশন এর কপি।

(ঘ) রেজিস্টার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মস (আরজেএসসি) কর্তৃক সার্টিফাইড সার্টিফিকেট অব কমেন্সমেন্ট অব বিজনেস (ব্যবসা আরম্ভের সার্টিফিকেট) এর কপি।

(ঙ) নতুন প্রজেক্টের ক্ষেত্রে সম্ভাব্যতা রিপোর্ট।

(চ) বিনিয়োগ বোর্ড অথবা সংশ্লিষ্ট যে কোন কর্তৃপক্ষের অনুমোদিত ইন্ডাষ্ট্রিয়াল ইউনিটসের রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেটের কপি।

(ছ) কোন পার্টি, মেশিনারিজ সাপ্লাইয়ার এবং কোন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কোনো চুক্তি, সম্মতি পত্রের কপি।

(জ) মূলধন যন্ত্রপাতি অথবা মূলধনী পণ্য আমদানি করার ক্ষেত্রে ইমপোর্ট ডকুমেন্টসের কপি।

(ঝ) কমিশন কর্তৃক ইস্যুকৃত মূলধন বৃদ্ধির কনসেন্ট লেটারের (অনুমোদন পত্র) কপি।

(ঞ) পরিচালকদের নাম এবং স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত অন্য কোনো কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদে থাকলে সেগুলোর বিবরণ।

(ট) কমিশন কর্তৃক অনুমোদিত চূড়ান্ত প্রসপেক্টাস।

(ঠ) প্রমোটার্স/পরিচালক/সাবসিডিয়ারি/অ্যাসোসিয়েটস কর্তৃক যে পরিমাণ মূলধনের যোগান দেওয়া হয়েছে সেটির অডিটর্স (নিরীক্ষক) সার্টিফিকেট।

(ড) যদি নগদ অর্থ ছাড়া অন্যকিছুর বিনিময়ে সিকিউরিটিজ ইস্যু করা হয় তাহলে সেই চুক্তিপত্রের কপি।

(ঢ) আন্ডাররাইটিংয়ের চুক্তিপত্র এবং ক্যাপিটাল এডুকুয়েসি (মূলধন পর্যাপ্ততা) সংক্রান্ত আন্ডাররাইটারের ঘোষণাপত্রের কপি।

(ণ) সদ্য গত হওয়া ৫ বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অথবা বাণিজ্যিক উৎপাদনের সময় এর চেয়ে কম হলে পুরো সময়ের ( যেদিন থেকে বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু,সেদিন থেকে বর্তমান) নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন।

(ত) দেখানো প্রজেক্ট মূল্যের প্রতিবেদন এবং তার অর্থায়নের উৎস।

(থ) যদি আয়কর অধ্যাদেশ,১৯৮৪ অনুযায়ী (১৯৮৪ সালের ৩৬ নং অর্ডিন্যান্স) ট্যাক্স হলিডে প্রাপ্ত হয় তাহলে সেটির কপি।

(দ) প্রেসক্রাইবড অনুযায়ী (তফসিল-এ এর এনেক্সয়ার-৩) আন্ডারটেকিং এবং ফিস প্রদানের পূরণকৃত ফর্ম।

(ধ) ক্রেডিট রেটিং রিপোর্ট, যদি থাকে।

(ন) লিস্টিংয়ের পূর্বে শেয়ার বরাদ্দের বিবরণী যা রেজিস্টার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ অ্যান্ড ফার্মস (আরজেএসসি) কর্তৃক সার্টিফাইড করা।

(প) ইস্যুয়ারের ট্যাক্স, ভ্যাট, অন্যান্য ট্যাক্স ও ডিউটিস প্রদানের বিবরণী।

(ফ) দ্য এক্সচেঞ্জ অথবা কমিশন কর্তৃক প্রয়োজন অনুসারে (সময় সময়ে) চাহিদা মাফিক যে কোন ডকুমেন্টস অথবা চুক্তিপত্র অথবা এ সংক্রান্ত যেকোন দলিলাদি।

পরবর্তী পর্বে থাকছে “মিউচ্যুয়াল ফান্ড তালিকাভুক্তির ক্ষেত্রে যেসব ডকুমেন্টস জমা দিতে হয়”

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top