খালেদা জিয়ার মুক্তির দুই পথ দেখালেন হানিফ

শেয়ারবাজার ডেস্ক: জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দুইটি পথ দেখিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির দুইটি পথ আছে একটি হলো আইনের প্রক্রিয়ায় মুক্তি আরেকটি হলো নিজের অপরাধ স্বীকার করে মহামান্য রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা পার্থনা করা।যদি মহামান্য রাষ্ট্রপতি ক্ষমা করে। এই দুইটি পথ ছাড়া খালেদা জিয়ার মুক্তির কোন পথ নেই ।

বৃহস্পতিবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গুলশানের ইয়ুথ ক্লাবে ঢাকা মহানগর উওর আওয়ামী লীগের এক বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তবে তিনি এ কথা জানান।

হানিফ বলেন, এতিমের টাকা আত্মসাতের কারনেই আজকে খালেদা জিয়া কারাগারে আর সেই কারাগার থেকেই আইনের লড়াইয়ের মাধ্যমে কারাগার থেকে মুক্ত করতে পারছে না। তাই বিএনপি এখন সকাল বিকাল দাবি করছে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। মুক্তি দিবে কে? প্রতিনিয়ত তথাকথিত বিএনপির নেতাকর্মীরা আন্দোলন করে জনগনকে বিভ্রান্ত করছে। আমরা বলেছি আইনের লড়াইয়ের মাধ্যমে মুক্তি করেন। আপনারা জানেন, বেগম খালেদা জিয়া টাকা আত্মসাত করেছে তাই আইনের মাধ্যমে মুক্তি না করতে পেরে রাস্তায় এসে সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে যাচ্ছেন।আমরা তাই বলেছি এই তথ্যকথিত আন্দোলন করে লাভ হবে না ।বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়ার ক্ষমত সরকারের নাই।

তিনি বলেন, মানুষ এখন নির্বাচন মূখী। একাদশ নির্বাচন উৎসব মূখর হোক জাতি এখন এইটাই চায়। কিন্তু এই নির্বাচনের যখন আর তিন মাস বাকি আছে তখন যদি এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমাদের দেশের একটি রাজনীতিক দল যারা ইতিপূর্বে ক্ষমতায় থেকে নানান রকম দূর্নীতি, সন্ত্রাস করার কারনে জনগন থেকে দিক্ষীত হয়ে আস্তাকুড়ে নিক্ষেপ হয়েছে। জনগনের সমর্থন নেই বলে ২০১৪ সালে নির্বাচনে অংশগ্রহন না করে জনগনের উপর আক্রমন করেছিল সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করেছিলো ঠিক এখন আবার তারা আবার সক্রিয়।

বিএনপি বহুবার আন্দোলনের ডাক দিয়েছে কিন্তু জনগনের কোন সাড়া না পেয়ে ব্যার্থ হয়ে এখন আন্দোলনকে বিদেশ মুখী নিয়ে গেছে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, আমি বিএনপিকে অনুরোধ করবো জনগনের সাথে অনেক ধোকাবাজি করেছেন, মিথ্যাচার, বাওতাবাজী করেছেন এগুলো বন্ধ করুন। আপনারা জানেন আপনাদের আন্দোলনের প্রতি জনগনের কোন সমর্থন নেই। আপনারা বহুবার আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন জনগনের কোন সারা না পেয়ে ব্যার্থ হয়ে এখন আন্দোলনকে আমেরিকা নিয়ে গেছেন।বিএনপি এখন বিদেশীদের কাছে ধন্ন্যা দিয়ে বেড়াচ্ছেন। তাদের অপকর্মের কারনেই জনগন আজকে তাদের কাছ থেকে মুখ ফিড়িয়ে নিয়েছেন।বিএনপির কোন কথা বা কর্মের উপর জনগনের এখন কোন আস্হা নেই।

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা যে উন্নয়ন করেছি আমাদের যে সফলতা আছে তা জনগনের সামনে তুলে ধরতে হবে। যদি আওয়ামী লীগ এক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করে তাহলে বাংলাদেশের এমন কোন রাজনীতিক দল বা কোন শক্তি নেই আওয়ামী লীগকে আগামী নির্বাচনে পরাজিত করতে পারে। তাই আমরা এক্যবদ্ধ হয়ে আগামী সংসদ নির্বাচনে নেতাকে আবারও ক্ষমতায় এনে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাব এটাই হলো আমাদের প্রত্যাশা।

ঢাকা মহানগর উওর এর সভাপতি এ কে এম রহমতুল্লাহ এর সভাপত্বিতে বর্ধিত সভায় আরও উপস্হিত ছিলেন, উওরের সহ-সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, নাজিমুদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত সম্পাদত এস এম মান্নান কচি, দপ্তর সম্পাদক এম সাইফুল্লাহ সাইফুল প্রমুখ।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top