হিসাব মান মানেনি ৪ মিউচ্যুয়াল ফান্ড: সঞ্চিতি ঘাটতি প্রায় ৮৪ কোটি টাকা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: হিসাব মান মেনে আর্থিক প্রতিবেদন তৈরি করেনি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত চার মিউচ্যুয়াল ফান্ড। পাশাপাশি শেয়ারে বিনিয়োগে ক্ষতির বিপরীতে যথাযথ সঞ্চিতি রাখেনি তারা। তাদের সঞ্চিতি ঘাটতি ৮৩ কোটি ৬০ লাখ ৫৯ হাজার টাকা। আবার যে টাকা সঞ্চিতি করেছে সে টাকা লায়াবিলিটিসে না দেখিয়ে ইক্যুইটিতে দেখিয়ে প্রকৃত সম্পদ মূল্য বাড়িয়ে দেখানো হয়েছে। পরিণতিতে বিনিয়োগকারীরা এমন আর্থিক প্রতিবেদনের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন বলে মতামত দিয়েছে চার ফান্ডের নিরীক্ষক। আর নিরীক্ষক তাদের এই মতামত উভয় স্টক এক্সচেঞ্জকে জানিয়েছে। চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ সূতে এ তথ্য জানা গেছে।

৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষায় নিরীক্ষক এমন মতামত জানিয়েছে।

রাষ্ট্রায়ত্ত্ব আইসিবি’র সাবসিডিয়ারি আইসিবি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট এই চার ফান্ড পরিচালনা করছে। ফান্ড চারটি হলো: ফোনিক্স ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড; আইসিবি থার্ড এনআরবি; আইএফআইএল ইসলামিক মিউচ্যুয়াল ফান্ড এবং আইসিবি সোনালী।

নিরীক্ষকের মতে, ফান্ডগুলো ক্রয়মূল্যে শেয়ারে বিনিয়োগ তথ্য পর্যালোচনা করেছে। কিন্তু হিসাব মান অনুযায়ী ক্রয়মূল্যের পাশাপাশি বর্তমান বাজার দরেও শেয়ার মূল্য পর্যালোচনা করতে হয়। কিন্তু তারা সেটা করেনি।

ফোনিক্স ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড: শেয়ারে বিনিয়োগে ক্ষতির বিপরীতে ফান্ডটি সঞ্চিতি করেছে ৫ কোটি ৯৬ লাখ ৯৭ হাজার ২৫৫ টাকা। কিন্তু হিসাব মতে তার প্রকৃত সঞ্চিতি করতে হতো ২২ কোটি ২৮ লাখ ৯৬ হাজার ৪৬৩ টাকা। সঞ্চিতি ঘাটতি ১৬ কোটি ৩১ লাখ ৯৯ হাজার ২০৮ টাকা। এছাড়া সঞ্চিতির ৫ কোটি ৯৬ লাখ ৯৭ হাজার ২৫৫ টাকা লায়াবিলিটিসে না দেখিয়ে ফান্ডটি ইক্যুইটিতে এ টাকা দেখিয়েছে। তাতে ফান্ডটির এনএভি বাড়িয়ে দেখানো হয়েছে কিন্তু লায়াবিলিটিস কম হয়েছে। এতে হিসাব মান লঙ্ঘন হয়েছে।

আইসিবি থার্ড এনআরবি: শেয়ারে বিনিয়োগে ক্ষতির বিপরীতে ফান্ডটি সঞ্চিতি করেছে ৯ কোটি ৬০ লাখ ৩৩ হাজার ৬৯৮ টাকা। কিন্তু হিসাব মতে তার প্রকৃত সঞ্চিতি করতে হতো ৩৯ কোটি ৯৭ লাখ ৯৬ হাজার ৬৭৮ টাকা। সঞ্চিতি ঘাটতি ৩০ কোটি ৩৭ লাখ ৬২ হাজার ৯৮০ টাকা। এছাড়া সঞ্চিতির ৯ কোটি ৬০ লাখ ৩৩ হাজার ৬৯৮ টাকা লায়াবিলিটিসে না দেখিয়ে ফান্ডটি ইক্যুইটিতে এ টাকা দেখিয়েছে। তাতে ফান্ডটির এনএভি বাড়িয়ে দেখানো হয়েছে কিন্তু লায়াবিলিটিস কম হয়েছে। এতে হিসাব মান লঙ্ঘন হয়েছে।

আইএফআইএল ইসলামিক মিউচ্যুয়াল ফান্ড: শেয়ারে বিনিয়োগে ক্ষতির বিপরীতে ফান্ডটি সঞ্চিতি করেছে ৫ কোটি ৩৯ লাখ ২২ হাজার ২৯৭ টাকা। কিন্তু হিসাব মতে তার প্রকৃত সঞ্চিতি করতে হতো ২৫ কোটি ২৬ লাখ ১৮ হাজার ৪৬১ টাকা। সঞ্চিতি ঘাটতি ১৯ কোটি ৮৬ লাখ ৯৬ হাজার ১৬৪ টাকা। এছাড়া সঞ্চিতি-সহ ৬ কোটি ৪০ লাখ ১২ হাজার ২০৯ টাকা লায়াবিলিটিসে না দেখিয়ে ফান্ডটি ইক্যুইটিতে এ টাকা দেখিয়েছে। তাতে ফান্ডটির এনএভি বাড়িয়ে দেখানো হয়েছে কিন্তু লায়াবিলিটিস কম হয়েছে। এতে হিসাব মান লঙ্ঘন হয়েছে।

আইসিবি সোনালী মিউচ্যুয়াল ফান্ড: শেয়ারে বিনিয়োগে ক্ষতির বিপরীতে ফান্ডটি সঞ্চিতি করেছে ৫ কোটি ৩০ লাখ ৮৮ হাজার ১৬৩ টাকা। কিন্তু হিসাব মতে তার প্রকৃত সঞ্চিতি করতে হতো ২২ কোটি ৩৪ লাখ ৮৯ হাজার ৭০২ টাকা। সঞ্চিতি ঘাটতি ১৭ কোটি ৪ লাখ এক হাজার ৫৩৯ টাকা। এছাড়া সঞ্চিতির ৫ কোটি ৩০ লাখ ৮৮ হাজার ১৬৩ টাকা লায়াবিলিটিসে না দেখিয়ে ফান্ডটি ইক্যুইটিতে এ টাকা দেখিয়েছে। তাতে ফান্ডটির এনএভি বাড়িয়ে দেখানো হয়েছে কিন্তু লায়াবিলিটিস কম হয়েছে। এতে হিসাব মান লঙ্ঘন হয়েছে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/আ

আপনার মন্তব্য

Top