মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে পুলিশের ওপর হামলা: কাদের

শেয়ারবাজার ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের অভিযোগ করেছেন, সম্পূর্ণ বিনা উসকানিতে মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে বিএনপির নেতা-কর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা চালিয়েছেন। পুলিশের একটি গাড়ি প্রায় পুড়িয়ে দিয়েছেন। নির্বাচন কমিশন এ ব্যাপারে কী ব্যবস্থা নেয়, তা দেখবে আওয়ামী লীগ।

আজ বুধবার বেলা তিনটায় আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এ মন্তব্য করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, এই উসকানি কারা দিল? নির্বাচন পেছানোর জন্য বিএনপি এই উসকানি শুরু করে দিল? তারা কি জানান দিল যে ২০০১, ২০১৪ যেটা করেছে, সেটাই করবে। তিনি বলেন, আজ সেটাই প্রমাণ হয়েছে। বিএনপি নির্বাচন বানচাল করতে চায়। আজ পুলিশের ওপর সাঁড়াশি হামলা করে ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেওয়া নেতারা স্বরূপ প্রকাশ করেছেন।

বিএনপির নেতা-কর্মীদের একটি মিছিলে পুলিশের বাধা দেওয়ার ঘটনায় আজ বুধবার দুপুরে নয়াপল্টন এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশের অন্তত দুটি গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় আহত হন কয়েকজন।

পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনার কিছু পরই আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সঙ্গে কথা বলেছেন। সেখানে প্রধানমন্ত্রী সবাইকে ধৈর্য ধরতে বলেছেন। বিএনপির আক্রমণের পাল্টা আক্রমণ না করার জন্য পুলিশকে ধন্যবাদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির নেতা-কর্মীরা এ ধরনের অরাজকতা, নাশকতা প্রকাশ্য দিবালোকে করেছেন। এই দুরভিসন্ধির বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের বক্তব্য কী, তা দেখতে-শুনতে চায় আওয়ামী লীগ। তিনি বলেন, নির্বাচন হবে। এই নির্বাচন জনগণের অনেক প্রত্যাশার নির্বাচন। জনগণ ভোট দেওয়ার জন্য উন্মুখ হয়ে আছে। যদি নির্বাচন বানচাল করার বা নির্বাচন নিয়ে চক্রান্ত করা হয়, তাহলে জনগণই এই চক্রান্ত প্রতিহত করবে। তিনি আরও বলেন, কানাডার আদালত দুবার বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে রায় দিয়েছেন। বিএনপি সন্ত্রাসী দল, নাশকতার দল, বোমা সন্ত্রাসের দল, এই দল নির্বাচন চায় না।

এ সময় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ফখরুল ইসলামের মিথ্যাচার আজ প্রকাশিত। বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর পুলিশ হামলা করেছে, এ কথা বলে ফখরুল ইসলাম আজও মিথ্যাচার করেছেন। এত মিথ্যাচারের বেসাতি ফখরুল ইসলাম কেন করলেন?

দলের সিদ্ধান্ত না মানলে বহিষ্কার
আগামী নির্বাচনে প্রার্থীদের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ধানমন্ডিতে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের জায়গা দেওয়া সম্ভব না। এ কারণে সেটি পরিবর্তন করা হয়েছে। সবাই দলের সভানেত্রীর দোয়া নিতে চান। পরে গণভবনে দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের উদ্দেশে শেখ হাসিনা বলেছেন, ঐক্যবদ্ধ থেকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয় ছিনিয়ে আনতে। প্রার্থীরাও কথা দিয়েছেন ঐক্যবদ্ধ থাকবেন। ঐক্যবদ্ধ না থেকে কেউ যদি দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে যান, তাহলে তাঁকে দল থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হবে বলে দলের সভানেত্রী জানিয়েছেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিভিন্ন জরিপ, রিপোর্ট, আন্তর্জাতিক রিপোর্ট, সমীক্ষা সব আওয়ামী লীগের পক্ষে এসেছে। তারুণ্যের শক্তি ও নারীরা এবার আওয়ামী লীগের বিজয়ের হাতিয়ার হবে। এ সময় বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, বিএনপির দেখানোর মতো কোনো কাজ নেই। এমন কোনো উন্নয়ন-অর্জন বিএনপির নেই, যা দেখিয়ে বিএনপি নির্বাচনে ফায়দা লুটতে পারে। জনগণ শেখ হাসিনার উন্নয়ন-অর্জনে খুশি। নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আওয়ামী লীগ আশাবাদী।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী কাদের বলেন, দলের উপজেলা চেয়ারম্যান, মেয়র ও তৃণমূলের প্রতিনিধিদের সংসদ নির্বাচনের প্রার্থী না হওয়ার জন্য বলা হয়েছে। এরপরও কেউ মনোনয়ন ফরম কিনে থাকতে পারেন, তবে তাঁদের মনোনয়ন দেওয়া হবে না।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top