ডোরিন পাওয়ারের স্পন্সর শেয়ারের লইকন খুলেছে: আসছে ১১৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ডোরিন পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড সিস্টেমস লিমিটেড এর প্লেসমেন্ট শেয়ারহোল্ডারদের লকইন খুলেছে বলে বাজারে গুজব ছড়িয়েছে। অথচ কোম্পানিটির কোনো প্লেসমেন্ট শেয়ারহোল্ডারই নেই। তবে চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে এ কোম্পানির স্পন্সর পরিচালকদের ধারণকৃত শেয়ারের লকইন খুলেছে। ২০১৬ সালের ৭ জানুয়ারি তালিকাভুক্তির অনুমোদন পাওয়া ডোরিন পাওয়ারের স্পন্সর শেয়ারের তিন বছরের লকইন গত ৬ জানুয়ারি খুলেছে। উল্লেখ্য, ডোরিন পাওয়ারের বর্তমান ১১ কোটি ৬১ লাখ ৬০ হাজার শেয়ারের মধ্যে স্পন্সর পরিচালকদের হাতে রয়েছে ৭২.৬৩ শতাংশ শেয়ার। অবশ্য স্পন্সর পরিচালকদের শেয়ারের লকইন খুললেও সাধারণত তাদের শেয়ার বিক্রি করতে দেখা যায় না।

এদিকে সম্প্রতি ডোরিন পাওয়ারের শেয়ার দরে ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে। আজ ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) কোম্পানিটির শেয়ার দর ৫.০৯ শতাংশ বা ৪.৭০ টাকা বৃদ্ধি পেয়ে সর্বশেষ ৯৭ টাকায় লেনদেন হয়েছে। এ কোম্পানির পিই রেশিও ৮.৮৮। অন্যদিকে পুরো পাওয়ার সেক্টরের পিই রেশিও দাঁড়িয়েছে ১১.২৮। মূলত আগামী জুন মাসে কোম্পানিটির ১১৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের কার্যক্রম শুরু করার সম্ভাবনা রয়েছে। যে কারণে এ কোম্পানির শেয়ার দর বাড়ছে বলে জানা গেছে।

জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৬ মে স্টক এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে চাঁদপুরে ১১৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের খবর জানায় ডোরিন পাওয়ার। ঐ খবরে বলা হয়, চাঁদপুরে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য কোম্পানিটিকে এইচএফও পাওয়ার জেনারেশন ফ্যাসিলিটি  অনুমোদন দেয়ার প্রাথমিক কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এ সংক্রান্ত বিষয়ে ডোরিন পাওয়ারের সঙ্গে  বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভোলপমেন্ট বোর্ড (বিপিডিবি) এর সঙ্গে চুক্তি হয়েছে। আর এই চুক্তি হওয়ার পর ১৮ মাসের মধ্যে কোম্পানিটি বানিজ্যিক উৎপাদনে যেতে পারবে। বিপিডিবি’র সঙ্গে ডোরিন পাওয়ারের এই পাওয়ার পার্চেজ এগ্রিমেন্ট (পিপিএ) ১৫ বছরের জন্য হবে। যেহেতু ইতিমধ্যে নতুন পাওয়ার প্লান্ট তৈরির ১৮ মাস সময় পেরিয়ে গেছে। তাই শিগগিরই কোম্পানিটির ১১৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হবে। তবে আগামী জুন মাসে এই প্রক্রিয়ার বাস্তবায়ন হতে পারে বলে জানা গেছে।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

Top