ঘোষণা ছাড়া শেয়ার বিক্রি: বিএসইসি’র কঠোর নজরদারি

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে ‍তালিকাভুক্ত বেশকিছু কোম্পানির স্পন্সর-পরিচালক ও প্লেসমেন্ট শেয়ারহোল্ডারদের ঘোষণা ছাড়া শেয়ার হস্তান্তর বা বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। ঘোষণা ছাড়া শেয়ার বিক্রির মাধ্যমে একদিকে যেমন সামগ্রিক পুঁজিবাজারে নেতিবাচক প্রভাব ফেলা হয় অন্যদিকে সরকারকে রাজস্ব থেকে বঞ্চিত করা হয়। আর এসব অনিয়ম রোধ করতে কঠোর অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। ইতিমধ্যে ঘোষণা ছাড়া যেসব কোম্পানির স্পন্সর-পরিচালকদের শেয়ার বিক্রি করা হয়েছে সেগুলোকে নজরদারির আওতায় আনা হয়েছে বলে বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে।

জানা যায়, ঘোষণা ছাড়া যেসব কোম্পানির পরিচালকদের শেয়ার বিক্রি করা হয়েছে এসব কোম্পানির তালিকা তৈরি করতে সেন্ট্রাল ডিপোজেটরি বাংলাদেশ লিমিটেডকে (সিডিবিএল) নির্দেশ দিয়েছে বিএসইসি । এছাড়া প্রতিটি কোম্পানির স্পন্সর পরিচালক এবং প্লেসমেন্ট শেয়ারহোল্ডারদের শেয়ার বিক্রি বা হস্তান্তরেরর আগে বাধ্যতামূলক ঘোষণা দেওয়ার ব্যবস্থা রাখতে সিডিবিএলের প্রতি কমিশনের নির্দেশনা রয়েছে।

এ বিষয়ে সিডিবিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও শুভ্র কান্তি চৌধুরী জানিয়েছেন, ইতিমধ্যে তারা এ বিষয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছেন। তাদের সফটওয়্যারে এমন একটি মডিউল তৈরি করা হচ্ছে যেখানে কোনো স্পন্সর-পরিচালক, প্লেসমেন্ট শেয়ারহোল্ডার তাদের শেয়ার ঘোষণা ছাড়া হস্তান্তর করতে পারবেন না। নিয়ন্ত্রক সংস্থা, স্টক এক্সচেঞ্জ এবং বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব পাবলিকলি লিস্টেড কোম্পানিজ (বিএপিএলসি) সিডিবিএলের এই প্রস্তাব অনুমোদন করেছে বলে জানান তিনি।

সিকিউরিটিজ আইন অনুযায়ী, তালিকাভুক্ত কোম্পানির স্পন্সর পরিচালকদের শেয়ার হস্তান্তরের ওপর তিন বছরের লকইন থাকে। লকইনের সময় শেষ হওয়ার পর স্টক এক্সচেঞ্জে ঘোষণা দেওয়ার মাধ্যমে তারা শেয়ার হস্তান্তর করতে পারে। লিস্টিং রেগুলেশনের ৩৪ ধারা বলা হয়েছে, তালিকাভুক্ত কোম্পানির প্রত্যেক স্পন্সর অথবা পরিচালক অথবা প্লেসমেন্ট শেয়ারহোল্ডার তাদের শেয়ার ক্রয়-বিক্রয় অথবা নিষ্পত্তি করতে একসঙ্গে কমিশন ও স্টক এক্সচেঞ্জে ঘোষণা পত্রের সঙ্গে লিখিত রিপোর্ট প্রদান করবে। স্টক এক্সচেঞ্জ ট্রেডিং চলাকালীন সময়ে স্পন্সর বা পরিচালকদের শেয়ার হস্তান্তরের ঘোষণাপত্র প্রচার করবে।

এ ব্যাপারে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো: সাইফুর রহমান জানান, যদি তালিকাভুক্ত কোনো কোম্পানির স্পন্সর-পরিচালক ঘোষণা ছাড়া শেয়ার বিক্রি করে তাহলে এটি পুরো বাজারে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। এমনকি সরকার ট্যাক্স থেকে বঞ্চিত হয়।

উল্লেখ্য, স্পন্সর-পরিচালকদের শেয়ার বিক্রির ওপর সরকারকে ৫ শতাংশ ট্যাক্স প্রদান করতে হয়।

প্রতিটি মাসের শেষে কোম্পানিগুলোর স্পন্সর-পরিচালক, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী, বিদেশি বিনিয়োগকারী এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ারধারণের সর্বশেষ আপডেট জানানো হয়। আর সেখানেই ঘোষণা ছাড়া কোনো শেয়ার ক্রয়-বিক্রি করা হলে সে সম্পর্কে জানা যায় বলে জানান তিনি।

সাইফুর রহমান আরো বলেন, ঘোষণা ছাড়া শেয়ার বিক্রি এটি সিকিউরিটিজ আইনের সুষ্পষ্ট লঙ্ঘন। ঘোষণা ছাড়া শেয়ার বিক্রি করা হয়েছে এমন কিছু তথ্য ইতিমধ্যে বিএসইসির নজরদারিতে এসেছে। বিএসইসি এসব অনৈতিক কার্যকলাপের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে বলে জানান তিনি।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

Top