অর্ধবার্ষিকে ইপিএসে শীর্ষে রয়েছে যারা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জুন ক্লোজিং হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে অধিকাংশই ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রথমার্ধের (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এর মধ্যে বেশিরভাগ কোম্পানি আগের বছরের তুলনায় শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে। সবচেয়ে বেশি ও ভাল ইপিএস দিয়েছে ১৫ কোম্পানি। কোম্পানিগুলো হলো- ইনটেক অনলাইন, সেন্ট্রাল ফার্মাসিটিক্যাল, এনভয় টেক্সটাইল, বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল, মুন্নু জুট স্ট্যাফলার্স, মুন্নু সিরামিক, প্রিমিয়ার সিমেন্ট, ওয়াটা কেমিক্যাল, সায়হাম টেক্সটাইল, মেঘনা সিমেন্ট, এসকে ট্রিমস, অ্যাডভেন্ট ফার্মাসিটিক্যাল, দ্য পেনিনসুলা চিটাগাং, ডেসকো এবং ন্যাশনাল পলিমার লিমিটেড। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রে মতে, কোম্পানিগুলোর মধ্যে আগের বছরের তুলনায় সবচেয়ে বেশি ইপিএস বেড়েছে ইনটেক অনলাইনের। অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৪০ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.০১ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ১.৩৯ বা ১৩৯০০ শতাংশ।

এরপরেই রয়েছে বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবলস কোম্পানি। অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৪৩ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.০৬ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ১.৩৭ টাকা বা ২২৮৩.৩৩ শতাংশ।

মুন্নু জুট স্ট্যাফলার্সের অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৮.০৭ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১.৫৩ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ১৬.৫৪ টাকা বা ১০৮১ শতাংশ।

মুন্ন সিরামিকের অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮.১৩ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১.৬৯ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ৬.৪৪ টাকা বা ৩৮১.০৬ শতাংশ।

ওয়াটা কেমিক্যালের অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫.৫৬ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ১.৩১ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ৪.২৫ টাকা বা ৩২৪.৪২ শতাংশ।

প্রিমিয়ার সিমেন্টের অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৭৪ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি সমন্বিত আয় ছিল ০.৬২ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ১.১২ টাকা বা ১৮০.৬৪ শতাংশ।

সায়হাম টেক্সটাইলের অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৪৭ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.৫৩ টাকা বা ১১২.৭৬ শতাংশ।

এসকে ট্রিমসের অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৪৪ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৬৮ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.৭৬ টাকা বা ১১১.৭৬ শতাংশ।

মেঘনা সিমেন্টের অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৭৩ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৩৫ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.৩৮ টাকা বা ১০৮.৫৭ শতাংশ।

ন্যাশনাল পরিমারের অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৯৪ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৯২ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ১.০১ টাকা বা ১০৮.৬০ শতাংশ।

অ্যাডভেন্ট ফার্মার অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.১৮ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৫৭ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.৬১ টাকা বা ১০৭.০১ শতাংশ।

ডেসকোর অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৭৬ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৮৬ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.৯০ টাকা বা ১০৪.৬৫ শতাংশ।

দ্য পেনিনসুলার চিটাগাং-এর অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৬৪ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৩২ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.৩২ টাকা বা ১০০ শতাংশ।

এনভয় টেক্সটাইলের অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর’১৮) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৭২ টাকা। এর আগের বছর একই সময়ে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ০.৯৪ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ০.৭৮ টাকা বা ৮২.৯৭ শতাংশ।

শেয়ারবাজারনিউজ/এম.আর

আপনার মন্তব্য

Top