নির্দেশনার তোয়াক্কা নেই জাহিন স্পিনিংয়ের: ৮ কোম্পানির পরিচালকরা বিক্রি করেছেন ৩.৬২ কোটি শেয়ার

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৮ কোম্পনির স্পন্সর/পরিচালকরা গত ফেব্রুয়ারি মাসে ৩ কোটি ৬২ লাখ ১ হাজার ৫৮০টি শেয়ার বিক্রি করেছেন। যে কারণে কোম্পানিগুলোর স্পন্সর/পরিচালকদের হোল্ডিংয়ের পরিমাণ কমেছে। অন্যদিকে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্দেশনার কোনো তোয়াক্কা না করেই শেয়ার বিক্রি করেছেন বস্ত্রখাতের জাহিন স্পিনিংয়ের স্পন্সর/পরিচালকরা। নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী প্রতিটি তালিকাভুক্ত কোম্পানির স্পন্সর/পরিচালকদের সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার থাকতে হবে। কিন্তু সে নির্দেশনা ভঙ্গ করে শেয়ার বিক্রি করে ৩০ শতাংশের নিচে নামিয়ে এনেছে জাহিন স্পিনিং।

ডিএসই থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, গেল ফেব্রুয়ারি মাসে জাহিন স্পিনিং লিমিটেড, আরগন ডেনিমস, ড্রাগন সোয়েটার, আইপিডিসি ফাইন্যান্স, ন্যাশনাল পলিমার, প্রগতি ইন্স্যুরেন্স এবং সোনালী আঁশ এই ৮ কোম্পানির পরিচালকদের শেয়ার হোল্ডিংয়ের পরিমাণ কমেছে।

৩১ জানুয়ারি, ২০১৯ তারিখে জাহিন স্পিনিংয়ের স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ ছিলো মোট শেয়ারের ৩১.১০ শতাংশ। অন্যদিকে ২৮ ফেব্রুয়ারি,২০১৯ তারিখে স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৩.৯৪ শতাংশ। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি মাসে জাহিন স্পিনিংয়ের পরিচালকরা ৭.১৬ শতাংশ বা ৭৭ লাখ ৬২ হাজার ১০ টি শেয়ার বিক্রি করেছেন। উল্লেখ্য, কোম্পানিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ১০ কোটি ৮৪ লাখ ৭ হাজার ৯৭০টি। বিএসইসির নির্দেশনা ‍অনুযায়ী, পরিচালকদের সম্মিলিতভাবে ৩০ শতাংশ শেয়ার ধারণের বিধান থাকলেও জাহিন স্পিনিং তা মানেনি।

এদিকে গেল মাসে স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার বিক্রি করা ৮ কোম্পানির মধ্যে আরগন ডেনিমসের স্পন্সর/পরিচালকদের ৩১ জানুয়ারি, ২০১৯ তারিখে শেয়ার ধারণের পরিমাণ ছিলো মোট শেয়ারের ৩৭.১৩ শতাংশ। অন্যদিকে ২৮ ফেব্রুয়ারি,২০১৯ তারিখে স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৬.৫৪ শতাংশ। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি মাসে আরগন ডেনিমসের পরিচালকরা ০.৫৯ শতাংশ বা ৭ লাখ ৭ হাজার ৮৬৬টি শেয়ার বিক্রি করেছেন। উল্লেখ্য, কোম্পানিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ১১ কোটি ৯৯ লাখ ৭৭ হাজার ২০০টি।

৩১ জানুয়ারি, ২০১৯ তারিখে ড্রাগন সোয়েটারের স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ ছিলো মোট শেয়ারের ৩৪.৪৪ শতাংশ। অন্যদিকে ২৮ ফেব্রুয়ারি,২০১৯ তারিখে স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩২.৮০ শতাংশ। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি মাসে ড্রাগন সোয়েটারের পরিচালকরা ১.৬৪ শতাংশ বা ২৬ লাখ ২ হাজার ৬৮০টি শেয়ার বিক্রি করেছেন। উল্লেখ্য, কোম্পানিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ১৫ কোটি ৮৭ লাখ।

৩১ জানুয়ারি, ২০১৯ তারিখে আইপিডিসি ফাইন্যান্সের স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ ছিলো মোট শেয়ারের ৫১.০৫ শতাংশ। অন্যদিকে ২৮ ফেব্রুয়ারি,২০১৯ তারিখে স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪০ শতাংশ। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি মাসে আইপিডিসি ফাইন্যান্সের পরিচালকরা ১১.০৫ শতাংশ বা ২ কোটি ৪১ লাখ ৬ হাজার ৭৭০টি শেয়ার বিক্রি করেছেন। উল্লেখ্য, কোম্পানিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ২১ কোটি ৮১ লাখ ৬০ হাজার ৮১৬টি।

৩১ জানুয়ারি, ২০১৯ তারিখে ন্যাশনাল পলিমারের স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ ছিলো মোট শেয়ারের ৫৭.৫৪ শতাংশ। অন্যদিকে ২৮ ফেব্রুয়ারি,২০১৯ তারিখে স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫৬.৫৭ শতাংশ। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি মাসে ন্যাশনাল পলিমারের পরিচালকরা ০.৯৭ শতাংশ বা ২ লাখ ৯০ হাজার ১৩৯টি শেয়ার বিক্রি করেছেন। উল্লেখ্য, কোম্পানিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ২ কোটি ৯৯ লাখ ১১ হাজার ৩৪০টি।

৩১ জানুয়ারি, ২০১৯ তারিখে প্রগতি ইন্স্যুরেন্সের স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ ছিলো মোট শেয়ারের ৪০.৯৯ শতাংশ। অন্যদিকে ২৮ ফেব্রুয়ারি,২০১৯ তারিখে স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৯.৮৭ শতাংশ। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি মাসে প্রগতি ইন্স্যুরেন্সের পরিচালকরা ১.১২ শতাংশ বা ৬ লাখ ৮৬ হাজার ৫৫৩টি শেয়ার বিক্রি করেছেন। উল্লেখ্য, কোম্পানিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ৬ কোটি ১২ লাখ ৯৯ হাজার ৩৭৯টি।

৩১ জানুয়ারি, ২০১৯ তারিখে সোনালী আঁশের স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ ছিলো মোট শেয়ারের ৫২.৪৮ শতাংশ। অন্যদিকে ২৮ ফেব্রুয়ারি,২০১৯ তারিখে স্পন্সর/পরিচালকদের শেয়ার ধারণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫০.৮০ শতাংশ। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি মাসে সোনালী আঁশের পরিচালকরা ১.৬৮ শতাংশ বা ৪৫ হাজার ৫৬২টি শেয়ার বিক্রি করেছেন। উল্লেখ্য, কোম্পানিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ২৭ লাখ ১২ হাজার।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

Top