কখনোই লস এভারেজ করবেন না: রহস্যজনক ট্রেডিং এক্সপার্ট উইলিয়াম ডেলবার্ট গ্যান

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: ইতিহাসে যেসকল বিখ্যাত ফিন্যান্সিয়াল ট্রেডারের নাম রয়েছে তাদের মধ্যে উইলিয়াম ডেলবার্ট গ্যান (জুন ৬,১৮৭৮- জুন ১৮, ১৯৫৫) ছিলেন সবচেয়ে রহস্যনজক ট্রেডিং এক্সপার্ট। জ্যামিতি, জ্যোতিষশাস্ত্র এবং প্রাচীন গনিত বিদ্যা ব্যবহার করে ফিন্যান্সিয়াল মার্কেটের ভবিষ্যত নির্ধারণ করতেন ডব্লিউ.ডি.গ্যান। তিনি গ্যান এনজেল্স নামে ট্যাকনিক্যাল অ্যানালাইসিসের উন্নয়ন ঘটান যার লেনদেনের কৌশল আজ বিশ্বব্যাপী ব্যবহৃত হচ্ছে।

বাল্যজীবন, ব্যক্তিগত জীবন ও শিক্ষা: 

১৮৭৮ সালের ৬ জুন আমেরিকার টেক্সাস লুফকিনে একজন তুলাচাষীর ঘরে জন্মগ্রহণ করেন উইলিয়াম ডেলবার্ট গ্যান। তার পিতার ১১ সন্তানের মধ্যে তিনি ছিলেন সবার বড়। হাইস্কুলে না যাওয়া ডেলবার্ট গ্যানের মূল বিদ্যা অর্জিত হয় খ্রীষ্টানদের ধর্মীয় গ্রন্থ পবিত্র বাইবেল থেকে। টেক্সারখানায় একটি ব্রোকারেজ হাউজে গ্যান তার কর্মজীবন শুরু করেন এবং রাতে বিজনেস স্কুলে পড়াশুনা করেন। ১৯০২ সালে ২৪ বছর বয়সেই তিনি ট্রেডিং শুরু করেন। তারপরের বছরই তিনি নিউইয়র্ক চলে আসেন এবং ওয়াল স্ট্রীট ব্রোকারেজ ফার্মে যোগ দেন। সেখান থেকে অভিজ্ঞতা নিয়ে খুব অল্প সময়েই গ্যান নিজের ব্রোকারেজ ফার্ম খুলে ফেলেন যার নাম ডব্লিউ.ডি.গ্যান অ্যান্ড কোম্পানি। তার ব্রোকারে বিনিয়োগকারীদের লেনদেন তিনি পর্যবেক্ষণ করতেন এবং তাদের ভুল থেকে তিনি শিক্ষা নিয়ে একজন ব্রোকার হিসেবে নিজের বিনিয়োগ কৌশল উন্নতি করেন।

উইলিয়াম ডেলবার্ট গ্যানের বিনিয়োগ কৌশল:

গ্যান বিশ্বাস করতেন মার্কেটে যাই কিছু ঘটছে তার সব কিছুরই অতিত ইতিহাস রয়েছে। আজ যা কিছু ঘটছে তা সামনে আবার পুনরাবৃত্তি ঘটবে। তাই কখন কোন সময়ে মার্কেট কেমন আচরণ করতো তার পর্যবেক্ষণে তিনি প্রাচীন জ্যামিতি, গনিত এবং জ্যোতিষ বিদ্যা অধ্যায়ন করতেন। এ সম্পর্কে গ্যান বলেছেন, “ সফল হতে হলে আপনাকে অবশ্যই অতিত রেকর্ড দেখতে হবে। কারণ ভবিষ্যতের মার্কেট অতিতের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটাবে। যদি আমার কাছে অতিতের সঠিক তথ্য থাকে তাহলে ভবিষ্যতে কখন কি হবে তা আমি বলতে পারবো। সবই চক্রাকারে চলছে।

গ্যান টাইম সাইকেলের ওপর বেশি গুরুত্ব দিতেন। এ বিষয়ে তিনি বলেছেন, “ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সাইকেল যা প্রতি ৬০ বছরে অথবা তৃতীয় ২০তম বছরের শেষে পুনরাবৃত্তি হয়।” উল্লেখ্য, ১৮৬১ থেকে ১৮৬৯ পর্যন্ত যুদ্ধ চলাকালে ১৮৬৯ সালে মার্কেটে প্যানিক সৃষ্টি হয়। তার ৬০ বছর পরে ১৯২১-১৯২৯ এই সময়ে ইতিহাসের সবচেয়ে বড় বুল মার্কেটের সৃষ্টি হয়। গ্যান ভবিষ্যত বানী করেছিলেন ১৯২৯ সালের সেপ্টেম্বর ৩ তারিখে প্যানিক সৃষ্টি হবে। তার ভবিষ্যত বাণী অনুযায়ী ঠিকই ১৯২৯ সালের ২৪ অক্টোবর বাজারে প্যানিক সৃষ্টি হয় এবং মার্কেটে ব্যাপক ধ্বস নেমে আসে।

বিনিয়োগ সম্পর্কে উইলিয়াম গ্যানসের পরামর্শ:

০১. কোনো একক লেনদেনে (একটি কোম্পানি) কখনোই আপনার ট্রেডিং ক্যাপিটালের ১০ শতাংশের বেশি রিস্ক নেবেন না।

০২. সবসময় স্টপ লস অর্ডার ব্যবহার করুন।

০৩. কখনোই অতিরিক্ত ট্রেড করবেন না।

০৪. স্রোতের বিপরীতে কখনোই লেনদেন করবেন না। ট্রেন্ড না বুঝা পর্যন্ত লেনদেন করা থেকে বিরত থাকুন।

০৫. যখনই সন্দেহ হয়, বের হয়ে পড়ুন। সন্দেহের মধ্যে থাকা ঠিক নয়।

০৬. কোনো যৌক্তিক কারণ ছাড়া লেনদেন বন্ধ করবেন না।

০৭. ছোটো মুনাফা এবং বড় ঝুঁকি এড়িয়ে চলুন।

০৮. অন্ধলোকের উপদেশ গ্রহন করবেন না। আপনি তার কথাতেই বিশ্বাস করুন যার ট্রেডিং সিস্টেম কাজ করে।

০৯. কখনোই লস এভারেজ করবেন না। যদি কোনো কোম্পানির শেয়ার দর পড়ে যায় সেটা কিনে লোকসান কাভার করার মানে পুনরায় লোকসানে পড়া।

১০. আপনার সফল লেনদেন থেকে আসা অতিরিক্ত টাকা আলাদা অ্যাকাউন্টে রাখুন।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top