সংকটে ৩১ কোম্পানির বিনিয়োগকারীরা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: বিগত বছরগুলোর বাজার পতন, কোম্পানির ব্যবসায়িক দুরাবস্থা, ডিভিডেন্ড না দেওয়া, উৎপাদন বন্ধ থাকা ইত্যাদি কারণে তালিকাভুক্ত ৩১ কোম্পানির শেয়ার দর ফেসভ্যালুর নিচে নেমে এসেছে। এতে কোম্পানির পাশাপাশি বিপত্তিতে রয়েছেন সেকেন্ডারি মার্কেটের বিনিয়োগকারীরা। যারা ফেসভ্যালু বা তার বেশি দিয়ে শেয়ার কিনেছেন তাদের পোর্টফোলিও’ ব্যালেন্স অর্ধেকে নেমে এসেছে। আর যারা মার্জিন ঋণ নিয়ে ব্যবসা করেছেন তাদের অবস্থাতো আরো করুণ। তবে সামগ্রিক পুঁজিবাজার গতিশীল হলে এসব কোম্পানির শেয়ার দর আবার বাড়তে শুরু করবে। এতে সংকটে থাকা বিনিয়োগকারীরা নিজেদের পুঁজি উদ্ধার করতে পারবেন বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, সবচেয়ে বেশি খারাপ অবস্থায় রয়েছে টেক্সটাইল ও আর্থিক খাতের কোম্পানিগুলো। টেক্সটাইল খাতের ১৩ কোম্পানি এবং আর্থিক খাতের ৮ কোম্পানির শেয়ার দর ফেসভ্যালুর নিচে রয়েছে। ব্যাংক খাতের দুই কোম্পানি আইসিবি ইসলামী ব্যাংকের শেয়ার দর ৪ টাকা এবং ন্যাশনাল ব্যাংকের শেয়ার দর ৮.৯০ টাকা। ক্রমাগত লোকসানে থাকায় আইসিবি ইসলামী ব্যাংক এবং মাত্রাতিরিক্ত বোনাস শেয়ার দেওয়ার ফলে ন্যাশনাল ব্যাংকের শেয়ার দর ফেসভ্যালুর নিচে রয়েছে।

প্রকৌশল খাতের দুই কোম্পানি অ্যাপোলো ইষ্পাতের শেয়ার দর ৬.৮০ টাকা এবং গোল্ডেন সনের শেয়ার দর ৯.৪০ টাকা। এ দুই কোম্পানির মধ্যে অ্যাপোলো ইষ্পাত লোকসানে জড়িয়ে পড়া এবং গোল্ডেন সনের লোকসানের পাশাপাশি ডিভিডেন্ড না দেয়ার কারণে হতাশায় রয়েছেন বিনিয়োগকারীরা।

ফেসভ্যালুর নিচে থাকা আর্থিক খাতের ৮ কোম্পানির মধ্যে বিআইএফসি’র শেয়ার দর ৫.১০ টাকা, ফারইস্ট ফাইন্যান্সের শেয়ার দর ৫.৬০ টাকা, এফএএস ফাইন্যান্সের শেয়ার দর ৮ টাকা, ফার্স্ট ফাইন্যান্সের শেয়ার দর ৫.৩০ টাকা, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং ৯.৪০ টাকা, পিপলস লিজিং ৪.৫০ টাকা, প্রিমিয়ার লিজিং ৭.৮০ টাকা এবং প্রাইম ফাইন্যান্সের শেয়ার দর ৯ টাকা। দেশের নন-ব্যাংকিং আর্থিক খাতের অবস্থা আশঙ্কাজনক থাকায় দু-একটি ছাড়া বেশিরভাগ ফিন্যান্স কোম্পানি সংকটের মধ্যে রয়েছে। এর মধ্যে অতিরিক্ত বোনাস শেয়ার ও নো ডিভিডেন্ড ঘোষণায় উল্লেখিত কোম্পানিগুলোর শেয়ার দর তলানিতে পড়ে আছে।

এদিকে মুনাফা থাকা সত্ত্বেও নো ডিভিডেন্ড ঘোষণার কারণে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের জিবিবি পাওয়ারের শেয়ার দর ৯.৫০ টাকা। বিবিধ খাতের ন্যাশনাল ফিড মিলের শেয়ার দর ৮.৫০ টাকা। ওষুধ ও রসায়ন খাতের দুই কোম্পানি বেক্সিমকো সিনথেটিকসের শেয়ার দর ৬ টাকা এবং কেয়া কসমেটিকসের শেয়ার দর ৪.৭০ টাকা।

টেক্সটাইল খাতের ১৩ কোম্পানির শেয়ার দর ফেসভ্যালুর নিচে রয়েছে। এর মধ্যে আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিংয়ের শেয়ার দর ৮.৯০ টাকা, সিএনএ টেক্সটাইল ৩ টাকা, ঢাকা ডাইং ৪.৫০ টাকা, ডেল্টা স্পিনার্স ৬.১০ টাকা, ফ্যামিলিটেক্স বিডি ৩.৯০ টাকা, জেনারেশন নেক্সট ৫.৭০ টাকা, ম্যাকসন স্পিনিং ৬.৫০ টাকা, মেট্রো স্পিনিং ৭ টাকা, আরএন স্পিনিং ৫.৬০ টাকা, তাল্লু স্পিনিং ৫.৫০ টাকা, তুংহাই নিটিং ৩.৯০ টাকা, জাহিন স্পিনিং ৮.৮০ টাকা এবং জাহিনটেক্স এর শেয়ার দর ৮.৩০ টাকা। উৎপাদনে না থাকা, লোকসানে জড়িয়ে পড়া, কৌশলে কোম্পানির মালিকানা পরিবর্তন করার কারণে টেক্সটাইল খাতের উল্লেখিত কোম্পানিগুলোর করুণ অবস্থা চলছে।

এদিকে ভ্রমণ ও অবকাশ খাতের দুই কোম্পানি বিডি সার্ভিসের শেয়ার দর ৫.২০ টাকা এবং ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের শেয়ার দর ২.৮০ টাকায় লেনদেন হচ্ছে।

 

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

Top