শর্ট সেলসহ তিন আইনের খসড়া প্রকাশ: ডেডলাইন ১২ মে

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজার উন্নয়নে নতুন তিনটি আইন প্রণয়ন করার উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। আইনগুলো হলো: বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (এক্সচেঞ্জ ট্রেডেড ডেরিভেটিভস) রুলস, ২০১৯, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ইনভেস্টমেন্ট সুকুক) রুলস,২০১৯ এবং বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (শর্ট-সেল) রুলস, ২০১৯। ইতিমধ্যে কমিশন উল্লেখিত তিন আইনের খসড়া প্রকাশ করেছে। আগামী ১২ মে উল্লেখিত আইনগুলোর জনমত জরিপের শেষ দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে পুঁজিবাজার স্টেকহোল্ডাররা উল্লেখিত আইনের খসড়ার ওপর মতামত জানাতে পারবেন। গত ২৩ এপ্রিল কমিশনের ৬৮৩তম সভায় উল্লেখিত তিন আইনের খসড়া অনুমোদন দেওয়া হয়। বিএসইসি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

উল্লেখ্য, স্বর্ণ, রূপা, বেজ মেটাল অথবা কৃষি পণ্যকে ডেরিভেটিভস ইন্সট্রুমেন্ট ধরে কমোডিটি ডেরিভেটিভস বোঝানো হয়েছে। ডেরিভেটিভ হচ্ছে  সিকিউরিটি যা ডেব্ট ইন্সট্রুমেন্ট, শেয়ার, সিকিউরড্ অথবা আন-সিকিউরড্ লোন, রিস্ক ম্যানেজমেন্ট অথবা বিভিন্ন মূল্যমান কন্ট্রাক্টকে বোঝানো হয়েছে। আর এক্সচেঞ্জের মধ্যে উল্লেখিত ডেরিভেটিভসগুলো তালিকাভুক্ত এবং লেনদেন হওয়াকেই মূলত এক্সচেঞ্জ ট্রেডেড ডেরিভেটিভস বলে। আর এই এক্সচেঞ্জ ট্রেডেড ডেরিভেটিভস আইনে কিভাবে ডেরিভেটিভ পণ্য তালিকাভুক্তির আবেদন করবে, প্রডাক্ট ডিজাইন কিভাবে হবে, কন্ট্রাক্ট নির্দিষ্টকরণ, ইলিজিবিলিট ক্রাইটেরিয়া, কমপ্লায়েন্স রিপোর্টিং, রিস্ক ম্যানেজমেন্ট ইত্যাদি বিষয়ে বিভিন্ন নিয়ম উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে ইনভেস্টমেন্ট সুকুক বা সুকুক (আরবি: صكوك‎‎, আরবী শব্দ صك (সাক)এর বহুবচন, “আইনী দলিল, দলিল, চেক”) সূদী বন্ডের ইসলামি বিকল্পকে বলে। মৌলিকভাবে এটি অর্থনৈতিক চুক্তিপত্র কিংবা দলিলের আরবি প্রতিশব্দ হলেও বর্তমানে এটি ইসলামি বন্ডের ক্ষেত্রেই ব্যবহৃত হয়।সুকুক হলো ইসলামি আইনের আলোকে গঠিত প্রচলিত ঋণপত্রের বিকল্প। ইনভেস্টমেন্ট সুকুক আইনে সুসুক গভর্ন্যান্স এবং ব্যবস্থাপনা কাঠামো, ইনভেস্টমেন্ট সুসুক ইস্যু করার ক্ষেত্রে কি কি যোগ্যতা এবং প্রয়োজনীয়তা রয়েছে, শরিয়া বোর্ডের বিভিন্ন নিয়ম উল্লেখ করা হয়েছে।

আর ইতিমধ্যে শর্ট-সেল নিয়ে শেয়ারবাজারনিউজে শর্ট সেলের আদ্যোপান্ত প্রকাশ করা হয়েছে। এই শর্ট-সেল আইনের খসড়ায়, কমিশনের অনুমোদন সাপেক্ষে শর্ট-সেলিং, শর্ট-সেলের ফ্রেমওয়ার্ক, ম্যাকানিজম, রেকর্ডস সংরক্ষণ, শর্ট-সেলিংয়ের জন্য সিকিউরিটিজ ধার নেয়া এবং দেয়া,  শর্ট-সেলিংয়ের ফরম ইত্যাদি বিভিন্ন নিয়ম উল্লেখ করা হয়েছে।

উল্লেখিত তিন আইনের পুরো খসড়া পেতে নিচে ক্লিক করুন:

০১. বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (এক্সচেঞ্জ ট্রেডেড ডেরিভেটিভস) রুলস, ২০১৯:

০২. বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ইনভেস্টমেন্ট সুকুক) রুলস,২০১৯:

০৩. বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (শর্ট-সেল) রুলস, ২০১৯:

 

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

 

 

 

আপনার মন্তব্য

Top