এবার আস্থা হারাচ্ছেন বিদেশিরা: ৪১১ কোটি টাকার শেয়ার বিক্রি

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: সাম্প্রতিক পুঁজিবাজারের অবস্থা এমন শোচনীয় পর্যায়ে দাঁড়িয়েছে যে এই বাজারে এখন দেশি-বিদেশি সব ধরণের বিনিয়োগকারীরাই আচ্ছা হারিয়ে ফেলছেন। যে কারণে লোকসান হলেও নিজের হাতে থাকা শেয়ার বিক্রি করে বের হয়ে যাচ্ছেন। এতে সামগ্রিক পুঁজিবাজারে অতিরিক্ত সেল প্রেসার আসছে। ফলশ্রুতিতে মন্দাবাজার ঘুরে দাঁড়ানোর বদলে আরো বেশি মন্দার মুখে পড়ছে।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, গেল দুই মাস ধরে পুঁজিবাজারে বিদেশিরা যে পরিমাণ শেয়ার কিনেছেন তার চেয়ে অনেক বেশি বিক্রি করেছেন। তাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত সেল প্রেসার আসায় নেগেটিভ পুঁজিবাজার আরো নেগেটিভ হয়েছে। গত মাসে অর্থাৎ এপ্রিল,২০১৯ মাসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বিদেশিরা ২৫৭ কোটি টাকার শেয়ার কিনেছেন। অন্যদিকে ৪১১ কোটি টাকার শেয়ার বিক্রি করেছেন। অর্থাৎ গেল মাসে বিদেশিদের শেয়ার ক্রয়-বিক্রয়ের ব্যবধান হলো ১৫৪ কোটি টাকা বা ৫৯.৯২ শতাংশ। বিদেশিদের শেয়ার ক্রয়-বিক্রয়ের এতো বিশাল পরিমাণ অসামঞ্জস্যতা বাজারের জন্য নেতিবাচক বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে ডিএসই থেকে প্রাপ্ত তথ্যে আরো জানা যায়, শুধু এপ্রিল মাসেই নয় মার্চ মাসেও বিদেশিদের শেয়ার ক্রয়-বিক্রয়ের ব্যাপক ব্যবধান ছিলো। মার্চ,২০১৯ মাসে ডিএসই থেকে বিদেশিরা ৩৭৫ কোটি টাকার শেয়ার কিনেছেন। অন্যদিকে ৪৯৮ কোটি টাকার শেয়ার বিক্রি করেছেন। অর্থাৎ মার্চ মাসে বিদেশিরা শেয়ার ক্রয়ের চেয়ে ১২৩ কোটি টাকা বেশি বিক্রি করেছেন। মূলত সামগ্রিক বাজার পরিস্থিতি ভালো না থাকায় পুঁজিবাজারের প্রতি আস্থা হারাচ্ছেন বিদেশিরা। বাজার ভালো হলে পুনরায় বিদেশিদের শেয়ার কেনার প্রতি ঝোঁক বাড়বে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

তারা বলছেন, চলতি মাসে যখন বাজার ভালো ছিলো তখন বিদেশিরা শেয়ার বিক্রির থেকে অনেক বেশি শেয়ার কিনে নিয়েছেন। এখন বাজার খারাপ থাকায় তাদের কাছ থেকে উল্টো আচরণ দেখা যাচ্ছে। উল্লেখ্য, চলতি বছরের শুরুতে বাজার খুব ভালো অবস্থায় ছিলো। জানুয়ারি,২০১৯ মাসে বিদেশিরা ৬১১ কোটি টাকার শেয়ার কিনেছেন। অন্যদিকে একই মাসে শেয়ার বিক্রি করেছেন ৪২৫ কোটি টাকার। অর্থাৎ জানুয়ারি মাসে বিদেশিরা শেয়ার বিক্রির চেয়ে ১৮৬ কোটি টাকার বেশি শেয়ার কিনেছেন। একই ধারা তারপরের মাসেও অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি,২০১৯ মাসেও ছিলো। ফেব্রুয়ারি মাসে বিদেশিরা মোট ৪৩৫ কোটি টাকার শেয়ার কিনেছেন। তার বিপরীতে শেয়ার বিক্রি হয়েছে ১৯৭ কোটি টাকা। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি মাসে বিদেশিরা শেয়ার বিক্রির চেয়ে ২৩৮ কোটি টাকার বেশি শেয়ার কিনেছেন। কিন্তু এরপর থেকে বাজার পরিস্থিতি খারাপ হওয়ায় বিদেশিদের কাছ থেকে ব্যাপক সেল প্রেসার এসেছে।

 

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

Top