ম্যাচ বাঁচাতে একটু সাপোর্ট চেয়েছিলেন সাইফুদ্দিন

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে টিকে থাকার লড়াইয়ে গতকাল ভারতের দেওয়া ৩১৫ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ৩৯ রানে তামিম এবং ৭৪ রানে সৌমের আউটের পর হাল ধরে রাখেন সাকিব আল হাসান। মুশফিক ও লিটনের সঙ্গে অল্পকিছু করে পার্টনারশীপ করে এক পাশ ধরে খেলে যাচ্ছিলেন সাকিব। অল্পকিছু রানের ব্যবধানে এতো উইকেট পড়ার পর ভারতীয় শিবিরে কোনো আনন্দ ছিলো না। কারণ সাকিব আল হাসান তখনো ক্রিজে ছিলো। কিন্তু যেই মাত্র দলীয় ১৭৯ রানে সাকিব আউট হয়ে যায় তখনই জয় নিশ্চিত জেনে খেলতে থাকে ভারত। সাকিব আউট হওয়ার ৮ম উইকেটে খেলতে নামেন মো: সাইফুদ্দিন। সাব্বির রহমানের সঙ্গে মোটামুটি একটি ভালো জুটি গড়ে ফেলেন। অন্যদিকে জয়ের দিকে এগুতে থাকে বাংলাদেশ দল। সাইফুদ্দিন বার বার সাব্বিরকে বোঝানোর পরও মাথা গরম সাব্বির বুমরার বলে বোল্ড আউট হয়ে যায়। সাইফুদ্দিন হয়ে পড়েন একা। এরপর ক্যাপ্টেন মাশরাফি ভুবেনম্বর কুমারের বলে ৬ মেরে পরের বলেই ধোনির কাছে ক্যাচ তুলে দেন।  কিন্তু হাল না ছেড়ে রুবেলকে সঙ্গে নিয়ে লড়াই চালিয়ে যান।

সাইফুদ্দিন এমন একটি পরিস্থিতি তৈরি করে পুরো ভারতীয় শিবিরে কাঁপন ধরিয়ে দেন। সর্তীথদের বার বার বোঝাচ্ছেন সে খেলা বের করতে সক্ষম তাকে শুধু যেন একটু সাপোর্ট দেওয়া হয়। কিন্তু বুমরাহ’র বলে রুবেল এবং মোস্তাফিজুর রহমানের বোল্ড আউটে সব স্বপ্ন ভেসে যায় সাইফুদ্দিনের। তার সব চেষ্টাই বৃথা হয়ে যায়। ভারতীয় ক্রিকেটাররা জয়ের আনন্দে যখন ড্রেসিংরুমে ফিরছেন, সাইফউদ্দিন হতবাক, বাক্‌রুদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে রইলেন উইকেটে। তাঁর পা যেন চলছে না। চোখ ফেটে নেমে আসতে চাইছে জলধারা। এতটা লড়াইয়ের পর যদি সইতে হয় পরাজয়ের যন্ত্রণা, ছিটকে পড়তে হয় টুর্নামেন্ট থেকে—তাহলে লড়াইটা চালিয়ে কী লাভ হলো? সাইফউদ্দিন অনুচ্চারে যেন সতীর্থদের বলতে চাইলেন, ‘তোমরা কেউ একজন শুধু অন্য প্রান্তে দাঁড়িয়ে থাকতে, বাকিটা আমি দেখতাম।’

 

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top