বিশ্বকাপ ফাইনালের যে সুক্ষ্ণ কারচুপিটি আড়ালে থেকে গেলো

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: বিশ্বকাপ ফাইনাল ম্যাচের ৪৯তম ওভার শেষ। ইংল্যান্ডের প্রয়োজন শেষ ওভারে ১৫ রান এবং নিউজিল্যান্ডের দুই উইকেট। ক্রিজে রয়েছেন বেন স্টোকস এবং আদিল রশিদ। ট্রেন্ট বোল্টের প্রথম দুই বলে কোনো রান নেই। দরকার ৪ বলে ১৫ রান। তৃতীয় বলে মিড উইকেট দিয়ে বেন স্টোকসের ছক্কা! খেলায় প্রাণ ফিরে পেলো ইংল্যান্ড। জয়ের জন্য প্রয়োজন ৩ বলে ৯ রান। পরের বলেই ঘটলো অঘটন! ডিপ মিড উইকেটে ব্যাট চালালেন বেন স্টোকস। দুই রান নেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা। ফিল্ডার গাপটিল উইকেট কিপারের হাতে বল ছুড়ে দিলেন। কিন্তু বলটি বেন স্টোকসের গায়ে লেগে বাউন্ডারিতে চলে গেলো। আম্পায়ার ৬ রানের ঘোষণা দিলেন। তারপরেই খেলার মোড় ইংল্যান্ডের দিকে ঘুরে গেলো। ২ বলে দরকার ৩ রান। শেষ পর্যন্ত খেলা ড্র। এরপর সুপার ওভারও যখন ড্র হলো তখন বিতর্কিত আইনে ইংল্যান্ড জিতে গেলো বিশ্বকাপ।

এখানে একটি সুক্ষ্ণ কারচুপি করা হয়েছে বলে বিশ্বের বিভিন্ন গণ মাধ্যম এবং ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের টুইট ঝড়ে জানানো হয়েছে। ডিপ মিড উইকেট থেকে গাপটিলের ছোড়া থ্র’তে বেন স্টোকসের গায়ে লেগে যে বাউন্ডারিতে আম্পায়ার ৬ রান দিয়েছেন কারচুপিটা সেখানেই হয়েছে। আম্পায়ারের যুক্তি মতে, ব্যাটসম্যানরা দুই রান নিয়েছেন এর সঙ্গে ৪ রানের বাউন্ডারিসহ মোট ৬ রান হয়েছে। কিন্তু আইন বলছে ভিন্ন কথা।

ক্রিকেটীয় আইন “ওভার থ্র অর উইলফুল (ইচ্ছাকৃত) অব ফিল্ডার অ্যাক্ট এর ১৯.৮ ধারা অনুযায়ী”, ওভার থ্র অথবা ফিল্ডারের ইচ্ছাকৃত কার্যকলাপের কারণে ব্যাটসম্যান যত রান ক্রসড করবে এবং এর সঙ্গে বাউন্ডারি হলে তা প্যানাল্টি হিসেবে যোগ হয়ে মোট রান স্কোরের সঙ্গে যোগ হবে। অর্থাৎ ব্যাটসম্যানরা ওভার থ্র এর কারণে যত রান দৌড়ে নিবে এর সঙ্গে যদি বাউন্ডারি হয় তাহলে ৪ রান যোগ হবে।

কিন্তু খেলার রি-ভিউতে দেখা গেছে বেন স্টোকস এবং আদিল রশিদ দুই রানের জন্য দৌড়ালেও আদিল রশিদ অপর প্রান্তে রান ক্রসড করেনি। অর্থাৎ ওভার থ্র হওয়ার আগে ১ রান সম্পন্ন হয়েছে। তাই ইংল্যান্ডের রানের খাতায় ৬ রান নয় বরং ৫ রান যোগ হওয়ার কথা। কিন্তু আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের কারণে ৬ রান যোগ হয়ে দলের প্রয়োজন হয় ২ বলে ৩ রান। যদি ৫ রান দেওয়া হতো তাহলে ইংল্যান্ডের দরকার হতো ২ বলে ৪ রান। পরের দুই বলে দুটি সিঙ্গেল হওয়াতে ইংল্যান্ড ১ রানে পরাজিত হতো। তাতে নিউজিল্যান্ডই হতো এবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

 

আপনার মন্তব্য

Top