শেয়ারবাজার শিক্ষা: করপোরেট গভর্ন্যান্স কোড (পর্ব-৬)

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: তালিকাভুক্ত প্রতিটি কোম্পানিতে সুশাসন নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ (বিএসইসি) কর্তৃক প্রণীত করপোরেট গভর্ন্যান্স কোড বাধ্যতামূলকভাবে অনুসরণ করতে হয়। শেয়ারবাজারনিউজের এই কলামে ইতিমধ্যে করপোরেট গভর্ন্যান্স কোড নিয়ে ৫টি পর্ব প্রকাশিত হয়েছে। আজ প্রকাশিত হচ্ছে ৬ষ্ঠ পর্ব-

(৩) এনআরসি’র চেয়ারপারসন:

(ক) বোর্ড এনআরসি কমিটির চেয়ারপারসন হওয়ার জন্য একজন সদস্য নির্বাচিত করবেন যিনি স্বাধীন পরিচালক হবেন।

(খ) এনআরসি কমিটির চেয়ার পারসনের অনুপস্থিতে অবশিষ্ট সদস্যরা নির্দিষ্ট সভার জন্য তাদের মধ্য থেকে একজনকে চেয়ারপারসন হিসেবে মনোনীত করতে পারেন এবং নিয়মিত চেয়ারপারসনের অনুপস্থিতির কারণ যথাযথভাবে মিনিটসে রেকর্ড থাকবে।

(গ) শেয়ারহোল্ডারদের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য এনআরসি কমিটির চেয়ারপারসন বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) উপস্থিত থাকবেন। তবে শর্ত থাকে যে, এনআরসি কমিটির চেয়ারপারসনের অনুপস্থিতে  শেয়ারহোল্ডারদের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য এনআরসি কমিটি থেকে যেকোন সদস্য এজিএমে উপস্থিত থাকার জন্য নির্বাচিত হবেন এবং এনআরসি কমিটির চেয়ারপারসনের অনুপস্থিতির কারণ এজিএমের মিনিটসে রেকর্ড থাকবে।

(৪) এনআরসি’র সভা:

(ক) এনআরসি এক অর্থবছরে কমপক্ষে ১টি (একটি) সভা পরিচালনা করবে।

(খ) এনআরসি কমিটির যেকোন সদস্যের অনুরোধে এনআরসি’র চেয়ারপারসন জরুরি সভার আহবান করতে পারে।

(গ) এনআরসি কমিটি সভার কোরাম দুইজন সদস্য অথবা কমিটির দুই-তৃতীয়াংশ সদস্য যেটি বড় তা দিয়ে গঠিত হবে যেখানে স্বাধীন পরিচালককে অবশ্যই উপস্থিত থাকতে হবে {শর্ত নং ৬(২)(জ)}।

(ঘ) প্রত্যেক মিটিংয়ের আলোচনা মিনিটসে যথাযথভাবে রেকর্ড করতে হবে এবং এনআরসি’র পরবর্তী মিটিংয়ে তা নিশ্চিত করতে হবে।

(৫) এনআরসি’র ভূমিকা:

(ক) বোর্ড এবং শেয়ারহোল্ডারদের প্রতি এনআরসি স্বতন্ত্র হবে এবং জবাবদিহি করতে বাধ্য থাকবে।

(খ) এনআরসি নিম্নোক্ত বিষয়াদি তদারকি করবে এবং বোর্ডের কাছে সুপারিশ সহকারে প্রতিবেদন জমা দেবে-

(i) পরিচালকের যোগ্যতা, ইতিবাচক গুণ এবং স্বাতন্ত্র্য নির্ণয়ের জন্য ক্রাইটেরিয়া প্রণয়ন এবং বোর্ডের কাছে পলিসির সুপারিশ করবে। পরিচালক, টপ লেবেল এক্সিকিউভদের রেমিউনেরেশনের (সম্মানী) জন্য নিম্নোক্ত বিষয়াদি বিবেচনা করবে-

(ক) কোম্পানিকে সফলভাবে পরিচালনায় উপযুক্ত পরিচালকদের প্রলুব্ধ করতে, ধরে রাখতে এবং অনুপ্রেরণা দিতে রেমিউনেরেশনের লেবেল এবং কম্পজিশনের যৌক্তিকতা এবং পর্যাপ্ততা।

(খ) কর্মক্ষমতার (পারফরমেন্স) প্রতি রেমিউনেরেশনের সম্পর্কের বিষয়টি সুষ্পষ্ট এবং যথাযথ পারফরমেন্স বেঞ্চমার্ক পূরণ করা।

(গ) পরিচালক এবং টপ লেবেল এক্সিকিউটিভদের রেমিউনেরেশন ফিক্সড এবং ইনসেনটিভ বেতনের মধ্যে ব্যালেন্স হবে যা কোম্পানির কাজ এবং উদ্দেশ্য অর্জনে তাদের স্বল্প এবং দীর্ঘমেয়াদি পারফরমেন্সে প্রভাব পড়ে।

(ii) বোর্ডে বৈচিত্র্য আনতে বয়স, লিঙ্গ, অভিজ্ঞতা, জাত, শিক্ষাগত ব্যাকগ্রাউন্ড এবং জাতীয়তা বিবেচনায় পলিসির উদ্ভাবন করবে।

(iii) প্রণীত ক্রাইটেরিয়া অনুসারে যারা টপ লেবেল এক্সিকিউটিভ এবং পরিচালক হওয়ার যোগ্য তাদের চিহ্নিত করণ এবং তাদের নিয়োগ ও অপসারণের বিষয়ে বোর্ডের প্রতি সুপারিশ করবে।

(iv) বোর্ড এবং স্বাধীন পরিচালকদের কর্মক্ষমতা মূল্যায়নের জন্য ক্রাইটেরিয়া প্রণয়ন করবে।

(v) বিভিন্ন লেবেলের কর্মচারীদের জন্য কোম্পানির প্রয়োজন চিহ্নিতকরণ এবং তাদের সিলেকশন, ট্রান্সফার অথবা রি-প্লেসমেন্ট এবং প্রমোশন ক্রাইটেরিয়া নির্ধারণ।

(vi) বছরে কোম্পানির হিউম্যান রিসোর্স এবং ট্রেনিং পলিসি’র উন্নয়ন, সুপারিশ এবং পর্যালোচনা করা।

(গ) কোম্পানি তার বার্ষিক প্রতিবেদনে এক ঝলকে নমিনেশন এবং রেমিউনেরেশন পলিসি এবং এনআরসি’র কার্যাবলী ও মূল্যায়ন ক্রাইটেরিয়া তুলে ধরবে।

চলবে…..

প্রথম পর্বের লিঙ্ক:

দ্বিতীয় পর্বের লিঙ্ক:

তৃতীয় পর্বের লিঙ্ক:

চতুর্থ পর্বের লিঙ্ক:

পঞ্চম পর্বের লিঙ্ক:

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top