পানি পান করেও কমাতে পারেন ওজন

শেয়ারবাজার ডেস্ক: কে না চায় একটু সুস্থ থাকি। সুস্থ থাকতে প্রয়োজন সু-স্বাস্থ্য। আর সু-স্বাস্থ্যের জন্য দরকার একটি সুস্থ শরীর। শরীর সুস্থ রাখতে আপনাকে থাকতে হবে পরিপাটি এবং নিয়মনির্ভর। আজ আমরা পানি পান করেও কিভাবে শরীরের ওজন কমাতে পারি সেই বিষয়টি দেখবো।

শরীরের ওজনের ওপর পানি পান করার ইতিবাচক প্রভাব আছে এ নিয়ে হয়েছে অসংখ্য গবেষণা। আর সবগু গবেষণাই বলে- পানি পান করলে ওজন কমে। কারণ পানি পানে বিপাকক্রিয়া দ্রুত হয়। ফলে ক্যালরি খরচের পরিমাণ বাড়ে ও ক্ষুধাও কমে।

প্রতিদিন আমাদের ৮-১০ গ্লাস পানি পানের ফলে অন্যান্য খাদ্য গ্রহণের চাহিদা তুলনামূলকভাবে কমে যায়। ক্যালরি সমৃদ্ধ খাবার ও পানীয় পানের প্রতি ঝোঁক কমে আসে। খাবার গ্রহণের এক বা দেড় ঘণ্টা আগে যদি ৫০০ মিলিলিটার পানি পান করা হয়, তবে তা ওজন কমাতে খুবই সহায়ক।

কিন্তু এমনও মানুষ আছেন, যাঁদের পানি পান করতে ভালো লাগে না এবং শুধু এ জন্য তাঁদের শরীরের প্রয়োজনীয় পানির ঘাটতি থেকেই যায়।

দৈনিক পানি পানের মাত্রা মাত্র এক কাপ বাড়ালে ওজন কমতে পারে ০.১৩ কেজি।

অন্য পানীয়ের পরিবর্তে পানি পান করতে পারলে ওজন কমতে পারে ০.৫ কেজি।

কুসুম গরম পানি পানের রয়েছে নিজস্ব গুণাগুণ। তবে ওজন কমানোর ক্ষেত্রে ঠাণ্ডা পানিই বেশি কার্যকর। কারণ ঠাণ্ডা পানি দেহের তাপমাত্রায় আনতে শরীরকে ক্যালরি খরচ করতে হবে।

কোনো কিছু খাওয়ার আধা ঘণ্টা আগে পানি পান করলে ক্যালরি গ্রহণ কমবে।

আসলে, পানি পান করলে বিপাকক্রিয়ার গতি বাড়ে মৃদু মাত্রায়। আর খাওয়ার এক থেকে আধা ঘণ্টা আগে পানি পান করলে ক্যালরি গ্রহণের মাত্রা কমে। তবে প্রচুর পানি পান করলেই যে দ্রুত ওজন কমে যাবে তা নয়। এক্ষেত্রে কোষ্ঠকাঠিন্য, বদহজম ইত্যাদি সমস্যা দূরে থাকবে। তবে অতিরিক্ত পানি পানের খারাপ দিকও আছে।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top