নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন শাকিল রিজভি

timthumb.phpশেয়ারবাজার রিপোর্ট : ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) দ্বিতীয় দফা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াবেন বর্তমান শেয়ারহোল্ডার পরিচালক শাকিল রিজভী। বুধবার বিকেলে বর্তমান চারজন শেয়ারহোল্ডার পরিচালকের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে তিনি ফেব্রুয়ারি মাসে অনুষ্ঠেয় নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

তবে শাকিল রিজভীকে দ্বিতীয় দফা নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য অধিকাংশ ট্রেকহোল্ডার ও বর্তমান পরিচালকদের অনেকে অনুরোধ জানিয়েছেন বলে জানা গেছে।

ব্যবস্থাপনা থেকে মালিকানা পৃথককরণ (ডিমিউচুয়ালাইজেশন) পরবর্তী ডিএসইতে দ্বিতীয় দফায় শেয়ারহোল্ডার পরিচালক বাছাইয়ের নির্বাচন আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ডিমিউচুয়ালাইজেশন আইনানুসারে, দ্বিতীয় দফায় ডিএসই পর্ষদে নির্বাচিত চারজন পরিচালকের মধ্যে থেকে একজনকে অবসর নিতে হবে। আর ওই পদেই নির্বাচন হবে। একইভাবে তৃতীয় দফায়ও নতুন নির্বাচিত পরিচালক বাদে তিনজনের মধ্যে থেকে একজন অবসরে যাবে এবং ওই পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তবে চতুর্থ দফায় ডিএসইর তিনজন পরিচালকের মেয়াদ তিন বছর সম্পন্ন হওয়ায় চারজনের মধ্যে থেকে দুইজনকে অবসরে যেতে হবে। ফলে দুটি পরিচালক পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এ বিষয়ে ডিএসইর পরিচালক শাকিল রিজভী বলেন, ‘ডিএসইর বর্তমান পরিচালকদের সঙ্গে আলোচনা করেই আমি পরিচালক পদ থেকে অবসরে যাচ্ছি।’

জানা গেছে, আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

ডিএসইর নির্বাচন সংক্রান্ত বিষয়ে তিন সদস্যের নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছে। কমিটির প্রধান সুপ্রিম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. আব্দুস সামাদ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেন। নির্বাচন কমিশনের অন্য দুই সদস্য হলেন- হারুন সিকিউরিটিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. হারুন-উর-রশিদ এবং মিকা সিকিউরিটিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এ মনিরুজ্জামান।

নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য মনোনয়নপত্র আগামী ১২ জানুয়ারি থেকে ১৮ জানুয়ারি বিকাল, ৩টা পর্যন্ত সংগ্রহ করা যাবে। মনোনয়নপত্র ১৮ জানুয়ারি, বিকাল ৫টা পর্যন্ত জমা দেওয়া যাবে। তবে মনোনয়নপত্র বাছাই শেষ হবে ২২ জানুয়ারি। আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ১ ফেব্রুয়ারি। একইসঙ্গে নির্বাচনে বৈধ প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে ১ ফেব্রুয়ারি।

এদিকে প্রার্থীদের সিআইবি সংক্রান্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া যাবে ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত।

এ ছাড়া নির্বাচনের ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে ১২ জানুয়ারি। ভোটার তালিকার বিরুদ্ধে অভিযোগ ও আপিল করা যাবে ১৪ জানুয়ারি এবং এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে ১৫ জানুয়ারি।

নির্বাচনের পর আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি ডিএসইর ৫৩তম বার্ষিক সাধারণ সভায় ভোটের ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

আপনার মন্তব্য

Top