ফুটবলের চেয়েও যেখান থেকে বেশি আয় রোনালদোর

শেয়ারবাজার ডেস্ক: বিশ্বের শ্রেষ্ঠ দুজন খেলোয়াড়ের একজন তিনি। কী নেই তাঁর? আকাশছোঁয়া খ্যাতি, এন্তার ভক্ত-সমর্থক, অর্থ, প্রতিপত্তি। যে বয়সে খেলোয়াড়েরা বুট রেখে মাইক্রোফোন তুলে নেন বা খেলোয়াড় গড়েন, সে বয়সে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো সমানতালে মাঠ কাঁপিয়ে বেড়াচ্ছেন। আর এর প্রভাব দেখা যাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁর অফিশিয়াল অ্যাকাউন্টে। ইনস্টাগ্রামে তাঁর অনুসরণকারীর সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি। অন্যান্য তারকাদের মতো তাই নিজের অনুসরণকারীদের মাধ্যমেও এখান থেকে আয় হয় রোনালদোর। এখন দেখা যাচ্ছে, তাঁর এই আয়ের পরিমাণ ফুটবল থেকে উপার্জনকৃত অর্থের চেয়েও বেশি!

ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসের হয়ে বছরে ৩৪ মিলিয়ন ডলার বা প্রায় ২৯০ কোটি টাকা আয় করে থাকেন রোনালদো। নতুন এক গবেষণায় জানা গেছে, ইনস্টাগ্রাম থেকে তিনি এর চেয়েও বেশি আয় করে থাকে। বছরে ইনস্টাগ্রাম থেকে তাঁর আয় ৪৭.৮ মিলিয়ন ডলার বা প্রায় ৪০৬ কোটি টাকা। অর্থাৎ ফুটবল খেলে তিনি যা আয় করেন, এর চেয়ে প্রায় ১১৬ কোটি টাকা বেশি আয় করেন ইনস্টাগ্রামে বিভিন্ন ‘পেইড’ পোস্ট থেকে। ইনস্টাগ্রামে বিভিন্ন পণ্যের দূতিয়ালি করার জন্য বিভিন্ন ব্র্যান্ডের কাছ থেকে অর্থ পান রোনালদো। কারণ রোনালদো যা-ই পোস্ট করেন, ইনস্টাগ্রামে তাঁর ১৮ কোটি ৬০ লক্ষ অনুসরণকারীদের কাছে সেটা পৌঁছে যায়। এর থেকে বড় ‘মার্কেটিং’ আর হয় নাকি!

ফুটবল খেলতে খেলতে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নিজেকে এমন একপর্যায়ে নিয়ে গেছেন যে, তিনি চাইলে না খেলেও বিলাসী জীবনযাপন করতে পারবেন

বিভিন্ন কোম্পানিও সেটা বোঝে। বোঝে বলেই রোনালদোকে দিয়ে একটা পোস্ট করানোর জন্য কাঁড়ি কাঁড়ি অর্থ ঢালতেও কার্পণ্য করে না তারা। কিছু কিছু কোম্পানি নাকি রোনালদোকে দিয়ে ইনস্টাগ্রামে একটি পোস্ট দেওয়ার জন্য এক মিলিয়ন ডলার পর্যন্ত খরচ করে। ভাবা যায়!

এসব আয় ছাড়াও বিভিন্ন পণ্যের দূতিয়ালি করেও আয় হয় রোনালদোর। পোশাকের ব্র্যান্ড আরমানি, ঘড়ির ব্র্যান্ড ট্যাগ হিউয়ার, গাড়ির জ্বালানি প্রতিষ্ঠান ক্যাস্ট্রল থেকেও প্রচুর আয় হয় রোনালদোর।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top