কোম্পানি অ্যানালাইসিস: ইউনাইটেড পাওয়ার

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানি ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড। ২০১৫ সালের ৫ এপ্রিল পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির পর থেকেই কোম্পানিটি একদিকে যেমন মুনাফা বাড়াচ্ছে অন্যদিকে বিনিয়োগকারীদেরও বিপুল পরিমাণ ডিভিডেন্ড দিয়ে যাচ্ছে। সম্পূর্ণ ঋণমুক্ত কোম্পানি হিসেবে ইউনাইটেড পাওয়ার দেশে বিদ্যুৎতের চাহিদা পূরণে শীর্ষে রয়েছে। নিম্নে কোম্পানির ওভারভিউ থেকে শুরু করে ফান্ডামেন্টাল এবং টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস তুলে ধরা হলো:

একনজরে ইউনাইটেড পাওয়ার:

ট্রেডিং কোড: UPGDCL

লিস্টিংয়ের তারিখ: ৫ এপ্রিল, ২০১৫

সেক্টর: বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

মার্কেট ক্যাটাগরি: “এ”

ইয়ার ইন্ড: ৩০ জুন

মূল ব্যবসা: ইলেকট্রিসিটি জেনারেশন এবং ডিস্ট্রিবিউশন

অনুমোদিত মূলধন: ৮০০ কোটি টাকা

পরিশোধিত মূলধন: ৫২৬ কোটি ৯৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা

মোট শেয়ার সংখ্যা: ৫২ কোটি ৬৯ লাখ ৯৫ হাজার ৭০১টি

বাজার মূলধন: ১২ হাজার ৩০৫ কোটি ৩৪ লাখ ৯৬ হাজার টাকা (২২-১২-২০১৯)।

শেয়ারহোল্ডিং:

মোট শেয়ার সংখ্যা: ৫২ কোটি ৬৯ লাখ ৯৫ হাজার ৭০১টি

(৩০ নভেম্বর,২০১৯ অনুযায়ী)

স্পন্সর পরিচালক ৯০% : ৪৭ কোটি ৪২ লাখ ৯৬ হাজার ১৩১টি

ইন্সটিটিউশন ৬.৯৪%: কোটি ৬৫ লাখ ৭৩ হাজার ৫০১টি

বিদেশি ০.০৫%: লাখ ৬৩ হাজার ৪৯৮টি

সাধারণ বিনিয়োগকারী ৩.০১%: কোটি ৫৮ লাখ ৬২ হাজার ৫৭০টি

শেয়ার প্রতি আয়:

২০১৫-২০১৬ (১৮ মাস): ১৫.৫৭ টাকা

২০১৬-২০১৭: ১১.৫০ টাকা

২০১৭-২০১৮: ১১.৫১ টাকা

২০১৮-২০১৯: ১৬.০৮ টাকা

৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ (প্রথম প্রান্তিক): ৩.৩৭ টাকা।

পি/রেশিও:

প্রাইস আর্নিং রেশিও (প্রাইস/ইপিএস) সর্বশেষ প্রান্তিক প্রতিবেদনের ইপিএস অনুযায়ী: ১৭.৩২

প্রাইস আর্নিং রেশিও (প্রাইস/ইপিএস) সর্বশেষ নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনের ইপিএস অনুযায়ী: ১৪.৫২

সেক্টর পি/ই রেশিও: ১২.০৪।

নেট অ্যাসেট ভ্যালু (এনএভি)

২০১৩ অর্থবছর : ২৩.৬৪ টাকা।

২০১৪ অর্থবছর: ৩১.৯৪ টাকা।

২০১৫-২০১৬ অর্থবছর (১৮ মাস): ৩৭.৫৫ টাকা।

২০১৬-২০১৭ অর্থবছর: ৪১.২২ টাকা।

২০১৭-২০১৮ অর্থবছর: ৪০.৮০ টাকা।

২০১৮-২০১৯ অর্থবছর: ৬২.৮০ টাকা।

 

পিবি রেশিও:

প্রাইস/এনএভি: ২৩২/৬২.৮০= ৩.৬৯ টাইমস।

প্রফিট ট্রেন্ড এবং ডিভিডেন্ড

২০১৫-২০১৬ অর্থবছর (১৮ মাস): কর পরিশোধের পর মুনাফা ৫৬০ কোটি ৬১ লাখ ৫০ হাজার টাকা, ডিভিডেন্ড ১২৫% ক্যাশ।

২০১৬-২০১৭ অর্থবছর: কর পরিশোধের পর মুনাফা ৪১৭ কোটি ৪৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা, ডিভিডেন্ড ৯০% ক্যাশ, ১০% স্টক।

২০১৭-২০১৮ অর্থবছর: কর পরিশোধের পর মুনাফা ৪৫৯ কোটি ৬৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা, ডিভিডেন্ড ৯০% ক্যাশ, ২০% স্টক।

২০১৮-২০১৯ অর্থবছর: কর পরিশোধের পর মুনাফা ৭৭০ কোটি ৪৬ লাখ ২০ হাজার টাকা, ডিভিডেন্ড ১৩০% ক্যাশ, ১০% স্টক। গত বছরের তুলনায় প্রফিট ৬৭.৬২% বৃদ্ধি। তালিকাভুক্তির পর এ বছর কোম্পানিটি সর্বোচ্চ ডিভিডেন্ড দিয়েছে।

ডিভিডেন্ড ইল্ড: ৫.৬১% এবং পে আউট রেশিও: ৮০.৮৫%অর্থাৎ কোম্পানি যে পরিমাণ মুনাফা করেছে তার ৮০.৮৫% ডিভিডেন্ড আকারে প্রদান করেছে।

ডেবট ইক্যুইটি রেশিও: (টোটাল লায়াবিলিটি/ টোটাল শেয়ারহোল্ডারস ইক্যুইটি)

ডেবট ইক্যুইটি রেশিও: ১১৯৪৪২৭০২৬৮/৩০০৮৭৭৩৭৭৪৭= ০ টাইমস

(ডেবট জিরো টাইমস, অর্থাৎ এক্সিলেন্ট পারফরমেন্স। ডেবট ইক্যুইটি রেশিও কম হওয়ায় নতুন ফান্ড বৃদ্ধির অনেক সুযোগ রয়েছে যা ব্যবসায়ের পরিধি বৃদ্ধি করবে।)

ইন্টারেস্ট কাভারেজ রেশিও:(অপারেটিং প্রফিট/ ফিন্যান্সিয়াল এক্সপেন্স অথবা ইন্টারেস্ট এক্সপেন্স)

যেহেতু কোম্পানির ঋণ নেই তাই এর ইন্টারেস্ট ব্যয় জিরো। আর এটি কোম্পানি তথা বিনিয়োগকারীদের জন্য অত্যন্ত ভালো দিক।

রিটার্ন অন ইক্যুইটি: (কর পরিশোধের পর মুনাফা/ টোটাল শেয়ারহোল্ডারস ইক্যুইটি)

রিটার্ন অন ইক্যুইটি: ৭৭০৪৬২০০০০/৩০০৮৭৭৩৭৭৪৭= ২৫.৬২% (এক্সিলেন্ট পারফরমেন্স)

রিটার্ন অন অ্যাসেটস: ((কর পরিশোধের পর মুনাফা/ টোটাল অ্যাসেটস)

রিটার্ন অন অ্যাসেটস: ৭৭০৪৬২০০০০/৪২০৩২০০৮০১৫= ১৮.৩৩% (এক্সিলেন্ট পারফরমেন্স)

রিটার্ন অন ক্যাপিটাল এমপ্লয়েড (আরওসিই): {ইবিআইটি/(টোটাল অ্যাসেটস- কারেন্ট লায়াবিলিটিস)

দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের জন্য এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ইন্ডিকেটর। এটির মাধ্যমে জানা যায়, কোম্পানিটি তার অ্যাসেটসকে দক্ষভাবে পারফর্ম করতে পারছে কিনা।

রিটার্ন অন ক্যাপিটাল এমপ্লয়েড (আরওসিই):

৭৮৮১০৬৮৬৯৪/৩৭১৫০২১৪৪২৮ (৪২০৩২০০৮০১৫-৪৮৮১৭৯৩৫৮৭) = ২১.২১% (এক্সিলেন্ট পারফরমেন্স)

নেট প্রফিট মার্জিন রেশিও: কর পরিশোধের পর মুনাফা/ টোটাল রেভিনিউ

৭৭০৪৬২০০০০/১১২৫৩৩৬১৩৬৬= ৬৮.৪৭% (এক্সিলেন্ট পারফরমেন্স)। অর্থাৎ ১০০ টাকা যদি টোটাল রেভিনিউ বা সেলস হয়ে থাকে সেখান থেকে কোম্পানিটি ৬৮ টাকা প্রফিট করতে পারছে।

শেয়ার দর

গত এক বছরে কোম্পানিটির সর্বোচ্চ শেয়ার দর ছিল ৪২২.৫০ টাকা এবং সর্বনিম্ন ২২৫ টাকা। বর্তমানে কোম্পানিটির শেয়ার দর ২৩০ টাকা। অর্থাৎ বছরের সর্বনিম্ন দরের আশে পাশে কোম্পানিটির শেয়ার দর রয়েছে। উপরোক্ত তথ্য পর্যালোচনায় কোম্পানিটি খুবই মৌলভিত্তি সম্পন্ন কোম্পানি।

 

তথ্যসূত্র: ডিএসই’র ওয়েবসাইটে কোম্পানির প্রোফাইল এবং কোম্পানির সর্বশেষ ৩০জুন,২০১৯ সমাপ্ত অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

 

 

 

 

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top