সোনালী পেপার নিয়ে কলকাঠি নাড়ছে কারা?

ওভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) মার্কেট থেকে মূল মার্কেটে ফিরতে সোনালী পেপার অ্যান্ড বোর্ড মিলস লিমিটেডকে অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। যদিও মূল মার্কেটে লেনদেন করতে যেরকম যোগ্যতা থাকা লাগে সোনালী পেপারের তা নেই। অবশ্য কিছু নিয়ম পরিপালন থেকে সোনালী পেপারকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু মূল মার্কেটে ফেরার আগেই এই কোম্পানিকে ঘিরে অদৃশ্য চক্র মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। কোম্পানির শেয়ার ওটিসি থেকে অতিরিক্ত দর দিয়ে কিনে এক শ্রেণীর বিনিয়োগকারী হাতিয়ে নিচ্ছে যাতে মূল মার্কেটে ফিরে আরেকটি ওয়াটা কেমিক্যালস তৈরি করা যায়। খুবই ছোট মাপের একটি কোম্পানির যার মুনাফা হয় বছরে মাত্র ৩ কোটি টাকা সেই কোম্পানির শেয়ার সাধারণ পাবলিকের হাতে ধরিয়ে দিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ মার্কেট থেকে তুলে নেওয়ার ফন্দি করছে কেউ কেউ। অন্যদিকে শেয়ার দর অতিরিক্ত থাকায় কোম্পানির স্পন্সর পরিচালকরা তাদের হাতে থাকা ৬৯.৩ শতাংশ শেয়ার থেকেও বিক্রি করে মোটা অঙ্কের টাকা মার্কেট থেকে তুলে নেওয়ার সুযোগ হতে যাচ্ছে।

১০ টাকার সোনালী পেপারের শেয়ার এখন ওটিসিতেই বিক্রি হচ্ছে ২৬০ টাকায়। এর বর্তমান পিই রেশিও ১২৭.৪৫। গেল দুই বছর ধরে কোন ডিভিডেন্ড নেই। সোনালী পেপারের মূল প্রতিযোগি কোম্পানি বসুন্ধরা পেপারের বছরে যেখানে মুনাফা হয় ৭০ কোটি টাকা সেখানে এই কোম্পানির মুনাফা বছরে মাত্র ৩ কোটি টাকা। অথচ বসুন্ধরা পেপারের শেয়ার দর ৫০ টাকার নিচে অন্যদিকে সোনালী পেপারের শেয়ার দর ২৬০ টাকা!

ওয়াটা কেমিক্যালস আইসিবি’র পৃষ্ঠপোষকতায় মূল মার্কেটে ফিরে কি হইচই ফেলে দিয়েছিল সেই চিত্র কমবেশি সবারই জানা। সোনালী পেপারের মোট শেয়ার সংখ্যা ১ কোটি ৫১ লাখ ২৬ হাজার ৩৫০টি শেয়ারের মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে মাত্র ১০.৪০ শতাংশ অর্থাৎ ১৫ লাখ ৭৩ হাজার। এই অল্প পরিমাণ শেয়ারে খুব সহজেই মুন্নু জুট স্ট্যাফালার্স এর মতো অস্বাভাবিক করা যায়। সেই পরিকল্পনায় এক শ্রেণীর বিনিয়োগকারী এগিয়ে চলেছে। তাই সোনালী পেপার নিয়ে কলকাঠি কারা নাড়ছে সেটি খুঁজে বের করা জরুরি। ওটিসিতে থাকতেই কোম্পানির শেয়ার দর অস্বাভাবিক হয়ে গেছে। মূল মার্কেটে আসার পর বাবল তৈরি আশঙ্কা রয়েছে। তাই বিনিয়োগকারীদের সচেতন হওয়ার আগে স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষকে সচেতন হতে হবে। কোম্পানিকে মূল মার্কেটে ফেরানোর আগে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের স্বার্থের বিষয়টি আগে বিবেচনা করা জরুরি।

 

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top