চার ফিলিস্তিনিকে হত্যা করল ইসরাইলি বাহিনী

শেয়ারবাজার ডেস্ক: মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা ঘিরে আবারো সংঘাতে ইসরাইল-ফিলিস্তিন। কেবল একই দিনেই চার ফিলিস্তিনিকে গুলি করে হত্যা করেছে ইসরাইলি বাহিনী। জবাবে পশ্চিম তীরসহ বিভিন্ন জায়গায় ইহুদি বাহিনীর ওপর পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটেছে। তবে এতে কোনো নিহতের খবর পাওয়া যায়নি। সহিংস পরিস্থিতির জন্য ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে দায়ী করেছেন ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী। তবে ইসরাইলের যেকোনো আগ্রাসন রুখে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে হামাস।

ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে নিহত ফিলিস্তিনির মরদেহ নিয়ে বৃহস্পতিবার পশ্চিম তীরে বিক্ষোভ করে শত শত ফিলিস্তিনি। এসময় ইসরাইল-বিরোধী স্লোগান দেন তারা। এর আগে, পশ্চিম তীরসহ বিভিন্ন জায়গায় ট্রাম্পের কথিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করে শত শত মানুষ। এসময় বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে রাবার বুলেট ছুড়ে ইহুদি বাহিনী। পাল্টা ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করলে দুপক্ষের সং ঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় পুরো এলাকা। এতে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে একজন নিহত হন। আহত হন আরো বেশ কয়েকজন।

এদিকে, জেরুজালেমে ইসরাইলি সেনাদের ওপর গাড়ি উঠিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে বেশ কয়েকজন ইহুদি সেনা আহত হয়েছে বলে জানায় তেল আবিব। এছাড়া, ইসরাইলি প্রতিরক্ষা বাহিনীকে লক্ষ্য করে এক ফিলিস্তিনির গুলি করার ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে। হা মলায় কোনো সেনা আহত না হলেও ইসরাইলি বাহিনীর পাল্টা গুলিতে ঐ হামলাকারী নিহত হয় বলে জানানো হয়।

অন্যদিকে, গাজা উপত্যকায় একটি ফিলিস্তিনি বাড়ি ভেঙে দেয় ইসরাইলি সেনারা। এতে বাধা দিলে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে মারা যান আরো এক ফিলিস্তিনি। এমন পরিস্থিতিতে যেকোনো মূল্যে ইসরাইলি আগ্রাসন রুখে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে হামাস।

হামাসের মুখপাত্র আব্দেল আল কানৌ বলেন, ‘ইসরাইলের বিরুদ্ধে হামাস তাদের প্রতিরোধ অব্যাহত রেখেছে। তাদের অবৈধ দখলদারিত্ব এবং আগ্রাসন বন্ধ করতে আমরা বন্ধপরিকর। ট্রাম্পের কথিত শান্তি পরিকল্পনা আমরা কোনোভাবেই মেনে নেবো না।’

এদিকে, চলমান সংঘাতময় পরিস্থিতির জন্য ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে দায়ী করেছেন ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু। তিনি বলেন, ‘মাহমুদ আব্বাস যে নীতি অবলম্বন করেছেন তা কাজে দেবে না। ছুরি হা মলা কিংবা গাড়ি তুলে দিয়ে কিছু করতে পারবে না তারা। আমাদের নিরাপত্তায় যা যা করার দরকার তার সবই করা হবে। সীমান্ত সুরক্ষায় ভবিষ্যতে আরো কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে। এজন্য তারা চাইলে আমাদের সাথে থাকতে পারে অথবা নাও থাকতে পারে।’

তবে ফিলিস্তিন-ইসরাইল সংঘাত নিরসনে ১৯৬৭ সালের প্রস্তাব অনুসারে দ্বিরাষ্ট্র সমাধানে জাতিসংঘ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বলে জানিয়েছে সংস্থাটির মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

Top