স্বস্তির সপ্তাহ পার করলো বিনিয়োগকারীরা

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: সাপ্তাহিক ব্যবধানে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের উত্থান ঘটেছে। সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া ৫ কার্যদিবসের মধ্যে ৩ দিনই বেড়েছে সূচক। বাকি ২ কার্যদিবস কমলেও এর মাত্র ছিলো সামান্য। এরই ধারাবাহিকতায় গত সপ্তাহে প্রায় সব ধরনের সূচকের উত্থান ঘটে। এদিকে সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকেও গত সপ্তাহে লেনদেনের পরিমান কিছুটা বেড়েছে। আলোচিত সপ্তাহটিতে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ১৬.৮৫ শতাংশ।

এদিকে, চলতি সপ্তাহের প্রথম দুই কার্যদিবস পতন হয়েছে পুঁজিবাজারে। তবে ১০ ফেব্রুয়ারি পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের জন্য ব্যাংকগুলোকে ২০০ কোটি টাকা করে দেয়ার জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক এক সার্কুলার জারি করে। ওই সার্কুলারের পর মঙ্গলবার থেকে পুঁজিবাজার ঘুরে দাঁড়ায়। এর প্রভাবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বাজার মূলধন সাড়ে ৬ হাজার কোটি টাকা বেড়েছে।

জানা গেছে, বিদায়ী সপ্তাহে ৫ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ২ হাজার ৫৯৬ কোটি ৫০ লাখ ৪৯ হাজার ৯৫৯ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের সপ্তাহ থেকে ৩৭৪ কোটি ৪৪ লাখ ১৮ হাজার ৭৮২ টাকা বা ১৬.৮৫ শতাংশ বেশি হয়েছে। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ২২২ কোটি ৬ লাখ ৩১ হাজার ১৭৭ টাকার।

ডিএসইতে বিদায়ী সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছে ৫১৯ কোটি ৩০ লাখ ৯ হাজার ৯৯১ টাকার। আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছিল ৪৪৪ কোটি ৪১ লাখ ২৬ হাজার ২৩৫ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে গড় লেনদেন ৭৪ কোটি ৮৮ লাখ ৮৩ হাজার ৭৫৬ টাকা বেশি হয়েছে।

বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন ৬ হাজার ৬১৯ কোটি ৫ লাখ ৬৮ হাজার টাকা বা ১.৯৪ শতাংশ বেড়েছে। আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস ডিএসইর বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৪০ হাজার ৪৭০ কোটি ৯ লাখ ৬৮ হাজার টাকা। আর বিদায়ী সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়ে ৩ লাখ ৪৭ হাজার ৬৬ কোটি ১৫ লাখ ২৬ হাজার টাকায় দাঁড়িয়েছে।

বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১১২ পয়েন্ট বা ২.৫০ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৫৬৫ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ১৮ পয়েন্ট বা ১.৭৯ শতাংশ, সিএসই-৩০ সূচক ২৩ পয়েন্ট বা ১.৫০ শতাংশ এবং সিডিএসইটি সূচক ১২ পয়েন্ট বা ১.৩২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০৪৬, ১৫৩৭ ও ৯১৬ পয়েন্টে।

বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে মোট ৩৫৮টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ১১৮টি বা ৩৩ শতাংশের, কমেছে ২১৮টির বা ৬১ শতাংশের এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২২র বা ৬ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর।

অপরদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সপ্তাহজুড়ে ১৫৪ কোটি ৭২ হাজার ৫৫ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৯৬ কোটি ৯৯ লাখ ৭৭ হাজার ২৭৮ টাকার। এ হিসাবে সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসইতে টাকার পরিমাণে লেনদেন ৫৭ কোটি ৯৪ হাজার ৭৭৭ টাকা বা ৫৮.৭৭ শতাশ বেড়েছে।

বিদায়ী সপ্তাহে সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৩৬১ পয়েন্ট বা ২.৬৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৯০৩ পয়েন্টে। এছাড়া সিএসসিএক্স ২২০ পয়েন্ট বা ২.৬৮ শতাংশ, সিএসই-৩০ সূচক ২৯৭ পয়েন্ট বা ২.৫৪ শতাংশ, সিএসই-৫০ সূচক ১৮ পয়েন্ট বা ১.৮৯ শতাংশ এবং সিএসআই ১৮ পয়েন্ট বা ২.০৪ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ৮ হাজার ৪৩২ পয়েন্ট, ১১ হাজার ৯৫৮ পয়েন্ট, ১০০৭ পয়েন্ট এবং ৯০৩ পয়েন্টে।

বিদায়ী সপ্তাহে সিএসইতে মোট ৩০৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের হাত বদল হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ২৩২টির বা ৭৫ শতাংশ, দর কমেছে ৬৩টির বা ২১ শতাংশ এবং দর অপরিবর্তিত রয়েছে ১৩টির বা ৪ শতাংশ।

শেয়ারবাজারনিউজ/মু

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top