ডিএসই পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমনকে জেল হাজতে প্রেরণ


শেয়ারবাজার রিপোর্ট: রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারের অভিযোগে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমনকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন আদালত। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে র‌্যাবের করা এক মামলায় বুধবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এদিন রাতেই তাকে রমনা থানায় হস্তান্তর করা হয়।
আজ ৭ মে ঢাকার সিএমএম কোর্টে শুনানী শেষে বাদি পক্ষ্য‌ের রিমান্ডের আবেদন এবং বিবাদী পক্ষ্য‌ের জামিন আবেদন উভয়ই নামঞ্জুর করে মিনহাজ মান্নান ইমনকে কারাগারে প্রেরণ করেছেন আদালত। আদালত সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
জানা যায়, তার সঙ্গে একই মামলার আসামী কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর, রাষ্ট্রচিন্তার সদস্য দিদারুল ভূঁইয়া, ব্যবসায়ী মুশতাকসহ মোট ১১ জন রয়েছেন। অন্য আসামিরা হচ্ছেন-দিদারুল ভূঁইয়া, আসিফ মহিউদ্দিন, তাসনিম খলিল, সায়ের জুলকারনাইন, আসিফ ইমরান,স্বপন ওয়াহিদ, সাহেদ আলম ও ফিলিপ শুমাখার।

মামলায় মূল আসামী করা হয়েছে কিশোর ও মুশতাককে।

আসামিদের মধ্যে আসিফ মহিউদ্দিন একজন ব্লগার, যিনি জার্মানিতে থাকেন। পেশায় তাসনিম খলিল থাকেন সুইডেনে।

উল্লেখ্য, ডিএসই পরিচালক ইমনকে বুধবার (৬ মে) ঢাকার বনানী থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন র‌্যাব-৩ এর কর্মকর্তা সহকারী পুলিশ সুপার আবু জাফর মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ।

বুধবার রাতে মিনহাজ মান্নান ইমনকে রমনা থানায় তাকে হস্তান্তর করা হয়। একই সঙ্গে থানায় তুলে দেওয়া হয় আগের দিন বাসা থেকে তুলে নেওয়া দিদারুলকে।

রাত পৌনে ৮টার দিকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এই দুজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে থানায় হস্তান্তর করা হয় বলে জানা গেছে।

মিনহাজ মান্নান ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সদস্য প্রতিষ্ঠান (ব্রোকার) বিএলআই সিকিউরিটিজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। তিনি শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির খালাত ভাই।

মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে ফেইসবুক ব্যবহার করে জাতির জনক,মুক্তিযুদ্ধ,করোনাভাইরাস মহামারী সম্পর্কে গুজব,রাষ্ট্র/সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার অভিপ্রায়ে অপপ্রচার বা বিভ্রান্তি ছড়ানো, অস্থিরতা-বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পাঁয়তারার অভিযোগ আনা হয়েছে।

ফেইসবুকে ‘I am Bangladeshi’ পেইজে সম্পৃক্ত হিসেবে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কিশোর, মুশতাক, দিদারুলকে, যে পেইজ থেকে রাষ্ট্রের সুনাম ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতে বিভিন্ন পোস্ট দেওয়া হচ্ছিল বলে র‌্যাবের দাবি।

হোয়াটস অ্যাপ ও ফেইসবুক মেসেঞ্জারে কিশোর ও মুশতাকের সঙ্গে তাসনিম খলিল, সায়ের জুলকারনাইন, শাহেদ আলম, আসিফ মহিউদ্দিনের ‘ষড়যন্ত্রমূলক চ্যাটিংয়ের প্রমাণ’ পাওয়ার দাবিও করেছে র‌্যাব।

দিদারুল ও মিনহাজ ফেইসবুকে মুশতাকের ‘ফ্রেন্ড’ উল্লেখ করে এজাহারে বলা হয়েছে,’তাদের সাথে হোয়াটস অ্যাপ ও ফেইসবুক মেসেঞ্জারে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক চ্যাটিংয়ের প্রমাণ পাওয়া গেছে।’

শেয়ারবাজারনিউজ/ম.সা

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top