ম্যানেজমেন্টের কাছে অতিরিক্ত জনবলের ব্যাখ্যা চায় ডিএসইর পর্ষদ

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ম্যানেজমেন্টের কাছে অতিরিক্ত জনবলের ব্যাখ্যা চেয়েছে এক্সচেঞ্জটির পরিচালনা পর্ষদ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

আজ রবিবার অনুষ্ঠিত ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদ সভায় এ ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।

সূত্র মতে, প্রয়োজনের তুলনায় ৭০-৮০ জন বেশি কর্মী রয়েছে ডিএসইতে। সেই
অতিরিক্ত জনবলের ব্যাখ্যা চেয়েছে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদ। এবং ব্যাখ্যা দেয়ার জন্য ম্যানেজমেন্টকে ৩ কার্যদিবস সময় দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে নিশ্চিত করে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ডিএসইর এক কর্মকর্তা শেয়ারবাজার নিউজকে বলেন, আজকের সভায় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মূল্যায়ন নিয়ে প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়েছে। প্রয়োজনের তুলনায় ডিএসইতে ৭০-৮০ জন বেশি জনবল আছে বলে এই প্রতিবেদনে তথ্য রয়েছে। এই অতিরিক্ত জনবল না থাকলে ডিএসইর কাজে কোনো সমস্যা হবে না।

তিনি বলেন, অতিরিক্ত জনবলের বিষয়ে ম্যানেজমেন্টের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে পরিচালনা পর্ষদ। ম্যানেজমেন্টের প্রতিবেদন আগামী ১৬ জুলাইয়ের মধ্যে পর্ষদ সভায় উপস্থাপন করা হবে। তারপর অতিরিক্ত জনবলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তারপর সি লেভেলের (সিএফও, সিটিও, সিআরও এবং সিওও) বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। সি লেভেল চুক্তিভিত্তিক করার প্রস্তাব দেয়ার বিষয়ে কথা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে ডিএসই লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। তবে কর্মীদের পেছনে কোটি কোটি টাকা খরচ হচ্ছে, কিন্তু প্রতিষ্ঠানের আয় বাড়ছে না। শেয়ারহোল্ডাররা ৫ শতাংশ লভ্যাংশ পাবেন তার নিশ্চয়তা নেই। এ পরিস্থিতিতে খরচ কমানো ছাড়া ডিএসইর সামনে পথ নেই।

এর আগে মানবসম্পদ পর্যালোচনা করার অংশ হিসেবে গত মাসে স্বতন্ত্র পরিচালক সালমা নাসরিনের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে ডিএসই। কমিটির সদস্য হিসেবে রাখা হয়- স্বতন্ত্র পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোস্তাফিজুর রহমান, মুনতাকিম আশরাফ, অধ্যাপক ড. এ কে এম মাসুদ ও ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) কাজী ছানাউল হককে। এ কমিটিকে কর্মীদের কাজের পরিমাণ ও দায়বদ্ধতার ভিত্তিতে বেতন কাঠামো পর্যালোচনা করতে বলা হয়। সেই সঙ্গে বিভাগভিত্তিক কী পরিমাণ মানবসম্পদ প্রয়োজন এবং কী পরিমাণ অতিরিক্ত বা ঘাটতি আছে তাও মূল্যায়ন করতে বলা হয়েছে।

তার ভিত্তিতেই কমিটির দেয়া প্রতিবেদনে ডিএসইতে অতিরিক্ত জনবল থাকার তথ্য উঠে এসেছে, যা ডিএসইর পর্ষদ সভায় তুলে ধরা হয়। অতিরিক্ত এসব জনবল না থাকলে ডিএসইর কাজে কোনো সমস্যা হবে না বলেও পর্ষদ সভায় আলোচনা হয়।

শেয়ারবাজার নিউজ/এন

আপনার মন্তব্য

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top