এতো আকাঙ্খার বাজেট বিনিয়োগকারীদের কি দিলো?

Editorialমে মাসের ১৭ তারিখ বিকালে “দুধ-দধি-ঘি খাবেন আর গরুটিকে এক মুঠো ঘাসও খাওয়াবেন না সেটা অমানবিক”শিরোনামে অর্থমন্ত্রীর বাজেট বক্তৃতার ওপর একটি আগাম সম্পাদকীয় প্রকাশ করেছিলাম। ওই লেখাটিতে শেয়ার বাজার নিয়ে অর্থমন্ত্রীর তুচ্ছ তাচ্ছিল্য বক্তব্য এবং এই বিশাল মার্কেটটির ব্যাপারে সরকারের নিস্পৃহ থাকার বিষয়টি জোরালো বক্তব্য দিয়ে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। সম্পাদকীয়টি লেখা শেষ করেই সেটি প্রকাশের দায়িত্ব অন্য একজনকে দিয়ে ওই দিন আমি অফিস ত্যাগ করি।

পরের দিন ১৮ মে সোমবার অফিসে আসতেই আমার সহকর্মীরা একযোগে লেখাটির ব্যাপারে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পাঠক বিনিয়োগকারীদের টেলিফোনে এবং সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে পাঠানো মন্তব্য ও তাদের প্রশংসার বিষয়টি অবহিত করে। লেখাটি নিয়ে মানুষের মধ্যে অনেক বেশি প্রতিক্রিয়া হওয়ায় ভেবেছিলাম সবার মনের কথাটিই সম্ভবত লিখতে পেরেছি এবং আশা করেছিলাম বাজারের এই পরিস্থিতি এবং অর্থনীতির সার্বিক প্রেক্ষাপটে এবারের বাজেটটি অন্তত বিনিয়োগকারী বান্ধব হবে।

লাখ লাখ বিনিয়োগকারীর এই দুর্দিনের সময় নিয়ে অন্তত একটি দুটি লাইন অর্থমন্ত্রী মহোদয় বাজেট বক্তৃতায় জুড়ে দেবেন। আগামি দিনগুলোতে কষ্টে থাকা এই মানুষগুলোর সুদিন ফিরে আসবে এমন আশার বাণী শোনাবেন। কিন্তু ৪ জুন মন্ত্রীর বাজেট বক্তৃতার পুঁজিবাজার অংশটুকু পড়ে যেন একেবারেই হতাশ হলাম। ওনার ১২৮ পৃষ্ঠার বক্তৃতার দুটি প্যারা এবং একটি সারনির কোথাও বিনিয়োগকারী শব্দটি উচ্চারনই করেননি। তারপরও ভালো আর্থিক খাতের একটি প্যারার মধ্যে একটি বা দুটি লাইনেই এবার পুঁজিবাজার অংশ শেষ করে দেননি। দয়া করে একটি সারনি সংযোগ করেছেন এবং বইটির ৬০ ও ৭২ পৃষ্ঠায় দুটি অনুচ্ছেদ পৃথক করে লিখে বিনিয়োগকারীদের ধণ্য করেছেন।

শুধু বিনিয়োগকারী বলবো এই জন্য যে এ সংশ্লিষ্ট স্টেক হোল্ডাররা ইতিমধ্যে তোষামোদের আকারে বাজেটকে পুঁজিবাজার বান্ধব বলে বলে ঢেকুর তোলা শুরু করেছেন। আমাদের বরিশাল অঞ্চলে একটি প্রবাদ আছে, “যার বিয়া তার খবর নাই পাড়া পড়শির ঘুম নাই”। ওই স্টেক হোল্ডারদের ভাবখানা এমন যেনো অর্থমন্ত্রী এবার বাজেট বাজেট বলে অনেক নেচেছেন। তাই তারা এখন মন্ত্রীর ওপর খুবই প্রীত এবং কৃতজ্ঞ। তবে ডিএসইর এমডি সাহেব একটি কাজ করেছেন যার জন্য তাকে ধন্যবাদ দিতেই হয়। তিনি তৈল যতটুকু মর্দনের তা করার পরে আমতা আমতা করে হলেও বলেছেন, বাজেটে আরো ৬টি বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হলে ভালো হতো।

যার মধ্যে তিনি উল্লেখ করেছেন, ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন পরবর্তী স্টক এক্সচেঞ্জের কর অবকাশ সুবিধা, ফাইন্যান্সিয়াল রিপোটিং অ্যাক্ট বাস্তবায়ন,স্ট্যাম্প ডিউটি বাদ দেয়ার প্রস্তাব বাস্তবায়ন, বন্ড মার্কেট উন্নয়নে অ্যাসেসমেন্ট ভিত্তিক করারোপ, তালিকাভুক্ত কোম্পানির ৩০ শতাংশ বা ততোধিক লভ্যাংশ প্রদানের ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ আয়কর রেয়াত বহাল এবং ব্যাংক,বীমা ব্যতীত তালিকাভুক্ত কোম্পানিকে কমপক্ষে ১৫ শতাংশ লভ্যাংশ না দিলে বন্টিত মুনাফার উপর ৫ শতাংশ হারে অতিরিক্ত কর প্রদানের ব্যবস্থা করা।

একইভাবে সিএসইর এমডি মহোদয় বাজেটের গুনাগুন বর্ননা করে এতে আরো দুটি বিষয় অন্তর্ভুক্ত থাকলে ভালো হতো বলে মন্তব্য করেছেন। তার উল্লেখিত বিষয়দুটি হলো: বিদেশী বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে কর সুবিধা ও স্টক এক্সচেঞ্জকে শতভাগ কর মওকুফ করা।
বাজেট নিয়ে যে যার দৃষ্টিভঙ্গি অনুযায়ী মন্তব্য করবে এবং দাবী জানাবে এতে আমরা দোষের কিছু দেখিনা। আমরা দোষের দেখি অর্থমন্ত্রী বিনিয়োগকারীদের না চিনলেও ডিএসই-সিএসই যদি বিনিয়োগকারীদের না চিনেন এবং তাদের বিষয় নিয়ে কোনো কথা না বলেন সেখানে।

আমরা আরো একটি বিষয় সবাইকে বিনয়ের সাথে বিবেচনায় রাখতে অনুরোধ জানাবো তা হলো: এই বিশাল বাজার কিংবা হাজার হাজার কোটি টাকার লেনদেন কিংবা সরকারের কোষাগারে জমা হওয়া শত শত কোটি টাকার রাজস্ব এসবই বিনিয়োগকারীদের অবদান। এরা ১৯৯৬ সালের সেই দু:সময়ে বাজার ছেড়ে উধাও হয়ে যায়নি, ২০১০ সালের মহা ধসের পরও মুনাফা নিয়ে পালিয়ে যায়নি বরং সেই বিধধস্ত অবস্থার ভেতরেও এই বিনিয়োগকারীরাই খেয়ে না খেয়ে মিছিল, মিটিং, মামলা-মোকদ্দমা মাথায় নিয়ে আজো পর্যন্ত বাজারটিকে টিকিয়ে রেখেছেন। অথচ পুঁজিবাজার নিয়ে সর্বক্ষেত্রে এই বিনিয়োগকারীদেরই বঞ্চিত করা হচ্ছে। ৩ লাখ কোটি টাকার বাজেটে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের যেমন কোন উল্লেখ নেই তেমনি তলানিতে ঠেকে যাওয়া নি:স্ব বিনিয়োগকারীদের মূলধন ফিরে পাবার কোনো উপায়ও বাজেটে বলা নেই।

আমরা এই বঞ্চনার অবসান চাই। আমরা মনে করি বাজেট হবে যতটা না পুঁজিবাজার বান্ধব তার চেয়েও বেশি বিনিয়োগকারী বান্ধব। বিনিয়োগকারীদের উন্নয়নইতো পুঁজিবাজারের উন্নয়ন। কোম্পানীকে সুবিধা দিলে কিংবা স্ট্রেক হোল্ডারদের সুযোগ করে দিলে তার ছিটে ফোটাওযে বিনিয়োগকারীরা পাননা তার অনেক উদাহরণ আমরা ইতিপূর্বে বহুবার দেখেছি। কাজেই আমাদের বক্তব্য সুষ্পষ্ট যদি কিছু করতেই হয় বিনিয়োগকারীদের উন্নয়নে কিছু করুন।

 

শেয়ারবাজারনিউজ/ও.র/সা

আপনার মন্তব্য

*

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top