আবারো ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বীমা খাত

শেয়ারবাজার রিপোর্টঃ আজ সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের পতনে লেনদেন শেষ হয়েছে। সূচকের সঙ্গে এদিন বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর এবং টাকার পরিমাণে লেনদেনও কমেছে। আজ ডিএসইতে সাড়ে ৩ মাসের মধ্যে সবচেয়ে কম লেনদেন হয়েছে। তবে এতো খারাপের মধ্যেও সবচেয়ে বেশি লেনদেন করেছে বীমা খাতের কোম্পানি গুলো। এতে করে লেনদেনের আধিপত্য ফিরে পেলো বীমা খাত।

গত কিছু দিন ধরে একটু খারাপ করলেও আবারও ঘুড়ে দাঁড়াতে শুরু করেছে বীমা খাতের কোম্পানি গুলো। তারই ধারাবাহিকতায় সব গুলো খাতকে পিছনে ফেলে এগিয়ে চলেছে বীমা খাতের কোম্পানি গুলো।

এ বিষয়ে বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনা কারনে এ বছর অধিকাংশ কোম্পানিই তাদের ব্যবসায়িক কার্যক্রম কিছুটা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। প্রভাব কোম্পানিগুলোর ঘোষিত ডিভিডেন্ডে লক্ষ্য করা গেছে। তবে বীমা খাতের কোম্পানিগুলো প্রান্তিক প্রতিবেদন প্রকাশে হাতে গোনা কয়েকটি ছাড়া অধিকাংশই ইপিএস আগের বছরের তুলনায় কিছুটা হলেও ভালো দেখিয়েছে। তাছাড়া এ খাতটির প্রতি সরকারের ও বিশেষ সুদৃষ্টি রয়েছে। ডিসেম্বর ক্লোজিং কোম্পানিগুলো ডিভিডেন্ড ঘোষণার সময় ও এগিয়ে আসছে। তাই বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের তালিকায় এ খাতটির প্রাধান্য লক্ষ্যনীয় বলে সংশ্লিষ্টরা মতবাদ ব্যক্ত করেছেন।

ডিএসই থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, আজ দিন শেষে বীমা খাতের ৪৮টি কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ৪৭.৯২ শতাংশ বা ২৩টি কোম্পানির। দর কমেছে ৪৩.৭৫ শতাংশ বা ২১টি কোম্পানির। দর অপরিবর্তিত রয়েছে ৮.৩৩ শতাংশ বা ৪টি কোম্পানির। এদিন ডিএসইতে মোট লেনদেনের ২০.৬২ শতাংশ বা ৯৫ কোটি টাকা লেনদেন করেছে এ খাতের কোম্পানি গুলো। আর এ কারণেই খাতভিত্তিক লেনদেনের শীর্ষ অবস্থানে ওঠে এসেছে বীমা খাত।

এছাড়াও, ফার্মা খাতে লেনদেন হয়েছে ৯৩ কোটি টাকা। মিউচ্যুয়াল ফান্ডে লেনদেন হয়েছে ৬৩ কোটি টাকা। প্রকৌশল খাতে লেনদেন হয়েছে ৪৪ কোটি টাকা। ব্যাংক খাতে লেনদেন হয়েছে ২৮ কোটি টাকা। বিবিধ খাতে লেনদেন হয়েছে ২২ কোটি টাকা। ফুয়েল এন্ড পাওয়ার খাতে  লেনদেন হয়েছে ২১ কোটি টাকা। বস্ত্র খাতে লেনদেন হয়েছে ১৮ কোটি টাকা। আইটি খাতে লেনদেন হয়েছে ১৭ কোটি টাকা। আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতে লেনদেন হয়েছে ১৫ কোটি টাকা। খাদ্য ও বিবিধ খাতে লেনদেন হয়েছে ১০ কোটি টাকা।

১০ কোটি টাকার কমে লেনদেন হওয়া খাত গুলোর মধ্যে রয়েছে টেলিকমিনিকেশন খাত, আবাসন খাত, সিরামিক খাত, সিমেন্ট খাত, ভ্রমণ খাত, পেপার এন্ড প্রিন্টিং খাত, চামড়া খাত এবং পাট খাত।

শেয়ারবাজারনিউজ/মা

আপনার মন্তব্য

Top