আইপিও সাধারণ মানুষের বিনিয়োগের আগ্রহ বাড়ায় – কমিশনার শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ

শেয়ারবাজার রিপোর্ট: আইপিও সাধারণ মানুষকে বিনিয়োগের আগ্রহ বাড়ায়। আর এই আগ্রহ দেশের শিল্প কারখানায় বড় ভূমিকা রাখে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কমিশনার শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ।

আজ সোমাবার ‘আইপিওর সাবক্রিপশন নিয়ে গণশুনানি’ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

কমিশনার বলেন, আমাদের দেশে ক্যাপিটাল মার্কেটে আইপিও একটি বেশি উচ্চারিত শব্দ। সবাই বেশি আগ্রহী হয় আইপিওতে অংশগ্রহণের জন্যে। সর্বশেষ আইপিও তে সাড়ে ১২ লক্ষ বিও অ্যাকাউন্ট থেকে আবেদন করেছে।

শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, আমাদের দেশে শেয়ারবাজারে যে পরিমান অংশ গ্রহণ রয়েছে তা জিডিপির রেশিয় হিসেবে অনেক কম। বর্তমান কমিশন এই রেশিয়টিকে বৃদ্ধি করার চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, আইপিওতে আবেদন করার জন্য সহজ প্রক্রিয়া, আবেদনের খরচ যাতে কমে আসে এবং আইপিও’র জন্য আইন কানুনের কিছু সংশোধনী নিয়ে কাজ করছে বর্তমান কমিশন।

তিনি আরও বলেন, প্রাইজিং মেকানিজম যেন আরো ইনপ্রুভ হয় এবং বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে কিভাবে কাজ করলে বিডারদের সুবিধা হয় তা নিয়েও কমিশন কাজ করছে। আইপিও আবেদন ডিজিটালাইজ করার চেষ্টা রয়েছে। ডিজিটালট্রেকের মাধ্যমে আইপিও যত দ্রুত সম্ভব, কম খরচের মাধ্যমে বাজারে নিয়ে আসা যায় তা নিয়ে কাজ করা হচ্ছে।

এছাড়া শুনানিতে যোগ্য বিনিয়োগকারীরা আইপিওতে রোড-শো আইন বাতিল করা, বিএসইসি কোনো কোম্পানিকে আইপিওর বিডিং অনুমোদন দেওয়ার পর চূড়ান্ত অনুমোদন নিয়ে একটি প্রসপেক্টাস তৈরি করার প্রস্তাব করেন।

এবং সাবস্ক্রিপশন পদ্ধতির সময় কমিয়ে আনা, আইনগুলো সহজ করা এবং আইপিওতে আবেদন করতে সেকেন্ডারি বাজারে ন্যূনতম ৫০ হাজার টাকা বিনিয়োগ থাকার প্রস্তাব দেওয়া হয়।

বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের চিফ অপারেটিং অফিসার সাইফুর রহমান মজুমদার এবং বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স এসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) প্রেসিডেন্ট সাইদুর রহমান সহ বাজার সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

 

আপনার মন্তব্য

Top