আজ: বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১ইং, ১০ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১২ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৬ মে ২০২১, বৃহস্পতিবার |


kidarkar

যেখানে অবস্থান করছেন সেখানেই ঈদ উদযাপন করুন: প্রধানমন্ত্রী

শেয়ারবাজার ডেস্ক: বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় আসন্ন ঈদে সবাইকে ছুটোছুটি না করে যে যেখানে অবস্থান করছেন সেখানেই ঈদ উদযাপন করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, করোনাকালীন সময়ে বেঁচে থাকলে আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দেখা হবে। এজন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঈদ উপলক্ষে সবাই ছোটাছুটি করবেন না। যে  যেখানে অবস্থান করছেন সেখানেই ঈদ উদযাপন করুন।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন সংস্থার অবকাঠামো ও জলযানের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় ও বিভিন্ন প্রকল্প এলাকায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে জলযান ও অবকাঠামোর উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

গণভবন প্রান্তে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। অন্যদিকে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরীসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি জানি যে কোভিড-১৯ মহামারি আমাদের দেশের মানুষকে সত্যি খুব কষ্ট দিচ্ছে। আমরা সরকারের পক্ষ থেকে যথাযথভাবে সহযোগিতার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। যারা ক্ষতিগ্রস্ত হতদরিদ্র, কর্মহীন বা দিনমজুর এবং যারা এখন কাজ করতে পারছেন না তাদের সহযোগিতা করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৩৬ লাখ ৫০ হাজার অসহায় মানুষের জন্য আড়াই হাজার টাকা করে নগদ সহায়তা দিয়েছি। তাছাড়া রোজার মাসে দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হচ্ছে।

বৈশ্বিক মহামারি করোনা সংক্রমণের প্রাদুর্ভাব থেকে জনগণকে সুরক্ষা থাকার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই করোনাটা যেন বাংলাদেশ জুড়ে ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্য সকলের কাছে আমার অনুরোধ-স্বাস্থ্যসুরক্ষা মেনে চলুন। আর এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যাতায়াত একেবারে না পারলেই আপনারা করবেন না। কে যে সংক্রমিত আপনি হয়ত জানেন না। কিন্তু সে যখন অন্য জায়গায় যাবে অনেক লোককে করোনা সংক্রমিত করবে। তখন তাদের জীবন নিয়ে সমস্যা দেখা দিবে, সেটা যেন না হয়। সেজন্যই আমরা কিন্তু যাতায়াত সীমিত করার পদক্ষেপ নিয়েছি। কিন্তু সেই সঙ্গে দেশের মানুষের আর্থিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ডগুলো যেন অব্যাহত থাকে সেটাও সীমিত আকারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চালানোর চেষ্টা করে যাচ্ছি।

শেখ হাসিনা বলেন, যারা বিত্তশালী আছেন তারা দুস্থদের সহযোগিতা করবেন। এটা আরও বেশি সওয়াবের কাজ হবে বলে আমি মনে করি। এভাবে আপনারা সবাই নিজেরা সুরক্ষিত থাকেন।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.