আজ: মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১ইং, ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০৮ মে ২০২১, শনিবার |


kidarkar

এবার সুইজারল্যান্ড ও রাশিয়ায় রোড শো করবে বিএসইসি

শেয়ারবাজার ডেস্ক: শেয়ারবাজারের জানান দিতে এবার সুইজারল্যান্ড ও রাশিয়ায় রোড শো করবে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

শেয়ারবাজারকে দুবাই প্রবাসীদের কাছে পরিচিত করতে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে রোড শো করেছিল বিএসইসি। এর পরিপ্রেক্ষিতে এখন বলা হচ্ছে, বিদেশি বিনিয়োগের প্রচুর সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে শেয়ারবাজারে।

দেশের শেয়ারবাজারে বিদেশিদের বিনিয়োগের জন্য এরই মধ্যে সুযোগ দেয়া হয়েছে মিউচ্যুয়াল ফান্ডের বিদেশি ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তা পরিচালক হওয়ার।

আগামী জুনে সুইজারল্যান্ড ও রাশিয়ায় রোড শো করার পরিকল্পনা করেছে বিএসইসি। ১৪ ও ১৫ জুন সুইজারল্যান্ডের জুরিখে এবং ১৭ ও ১৮ জুন রাশিয়ার মস্কোতে রোড শোর তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে।

এবার রোড শোতে নেতৃত্ব দেবেন বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম। এছাড়া অংশ নেবেন কমিশনার অধ্যাপক ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ ও আব্দুল হালিম, নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ সাইফুর রহমান ও মাহবুবুল আলম, পরিচালক আবুল কালাম ও উপপরিচালক মোহাম্মদ রাশিদুল আলম।

সুইজারল্যান্ড ও রাশিয়ায় রোড শো শেষে লন্ডন, রোম, টরেন্টো, হংকং, নিউইয়র্ক, সিঙ্গাপুর, টোকিও, মালয়েশিয়ায় একই আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে বিএসইসির।

বিএসইসির কমিশনার ড. শেখ শামসুদ্দিন বলেন, ‘দুবাইতে আমাদের রোড শোর পর ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। এখনও প্রবাসীসহ বিদেশিরা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। ইউরোপের দেশগুলোতেও আমাদের অনেক প্রবাসী বসবাস করেন। তারাও দেশে বিনিয়োগে আগ্রহী। আমরা প্রবাসীসহ বিদেশিদের সঙ্গেও বিনিয়োগ বিষয়ে আলোচনা করব।’

তিনি বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করবে আমরা নির্ধারিত তারিখে এটি করতে পারব কি না। যদি পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হয়, তাহলে অবশ্যই তারিখ পরিবর্তন করতে হবে।’

দুবাইতে ‘দ্য রাইজ অব বেঙ্গল টাইগার: পটেনশিয়ালস অব বাংলাদেশ ক্যাপিটাল মার্কেট’ শিরোনামে ৯ থেকে ১২ ফেব্রুয়ারি রোড শো করেছিল বিএসইসি।

সেখানে ডিজিটাল পদ্ধতিতে বিও হিসাব খোলা, ডিজিটাল বুথ উদ্বোধন করা হয়। এছাড়া প্রবাসীদের দেশের বিনিয়োগ সম্ভাবনাসহ পুঁজিবাজারকে উপস্থাপন করা হয়। আয়োজন করা হয় একাধিক সভা-সেমিনার। একই সঙ্গে ইসলামি শরিয়ার সুকুক বন্ডের বিষয়ে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে দেশের বড় বড় অনেক প্রতিষ্ঠান এখন সুকুক বন্ডের বিষয়ে আগ্রহী। এসব বন্ডে বিদেশিরাও বিনিয়োগে আগ্রহী হচ্ছে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.