আজ: বুধবার, ১৬ জুন ২০২১ইং, ২রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৯ মে ২০২১, বুধবার |


kidarkar

দেশে ফিরলেন ভারত থেকে আটকে পড়া ১৩৩ জন, ২ জন করোনা আক্রান্ত

শেয়ারবাজার ডেস্ক: চুয়াডাঙ্গার দর্শনা উপজেলার জয়নগর চেকপোস্ট দিয়ে দেশে ফিরেছেন ভারতে আটকে পড়া আরও ১৩৩ বাংলাদেশি নারী-পুরুষ। তাদের মধ্যে দু’জন করোনায় আক্রান্ত।

বুধবার (১৯ মে) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত এ সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী ১৩৩ যাত্রী দেশে ফেরেন।

দর্শনা জয়নগর চেকপোস্টে পৌঁছালে তাদের হেলথ স্ক্রিনিং ও করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করা হয়।

এসময় ভারতফেরত দু’জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়। পরে সব প্রক্রিয়া শেষে সেখান থেকে তাদের বাস ও মাইক্রোবাসে করে  নির্ধারিত কোয়ারেন্টিন চুয়াডাঙ্গা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) ও যুব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে।

সেখানে তারা নিজ খরচে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকবেন। এছাড়া করোনা আক্রান্ত দু’জনকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে নেওয়া হয়েছে।

দর্শনা ইমিগ্রেশন সূত্র জানিয়েছে, তৃতীয় দিনের মতো চুয়াডাঙ্গার দর্শনা চেকপোস্ট দিয়ে ১৩৩ জন বাংলাদেশি নাগরিক দেশে এলেন। তারা সবাই করোনা মহামারিতে ভারতে গিয়ে আটকা পড়েছিলেন। দেশে প্রবেশের পর চেকপোস্টের সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন ও আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে।

দর্শনা চেকপোস্টের অস্থায়ী হেলথ স্ক্রিনিং বুথের চিকিৎসক ডা. অমিত কুমার বিশ্বাস জানান, দেশে ফেরা সবার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। সেইসঙ্গে এন্টিজেন টেস্টের মাধ্যমে সবার করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। এ প্রক্রিয়ায় ভারতফেরত দুই পুরুষের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। যদিও তাদের ভারতে করোনা টেস্টের রিপোর্ট নেগেটিভ ছিল।

চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরা পারভীন জানান, ভারত থেকে ফিরে আসা ১৩৩ জনের মধ্যে করোনা আক্রান্ত দু’জনকে অ্যাম্বুলেন্সে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে। বাকি ১৩১ জনকে টিটিসি ও যুব উন্নয়ন ভবনে নেওয়া হয়েছে। সেখানে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে বাড়ি ফেরার অনুমতি দেওয়া হবে।

১ টি মতামত “দেশে ফিরলেন ভারত থেকে আটকে পড়া ১৩৩ জন, ২ জন করোনা আক্রান্ত”

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.