আজ: শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১ইং, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

৩১ মে ২০২১, সোমবার |


kidarkar

কমিশন কারো পোর্টফোলিও ম্যানেজ করে না: বিএসইসি চেয়ারম্যান

শেয়ারবাজার রিপোর্ট:

বিএসইসি বা স্টক এক্সচেঞ্জ কারো পোর্টফোলিও ম্যানেজ করে না বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম। তিনি বলেন, কে কোন শেয়ার কিনবে বা বিক্রি করবে, এটা আমরা নির্ধারণ করি না।

শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, ক্যাপিটাল মার্কেটে আমরা খেয়াল করেছি, বিভিন্ন সময় না জেনে, না বুঝে ও ভুল সিদ্ধান্তের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ করে। কিন্তু পরবর্তীতে এই ভুলের কারণে তারা নিয়ন্ত্রক সংস্থাসহ স্টক এক্সচেঞ্জকে দায়ী করে।

সোমবার (৩১ মে) দুপুরে রাজধানীর জীবন বীমা টাওয়ারে বাংলাদেশ একাডেমি ফর সিকিউরিটিজ মার্কেটস (বিএএসএম) এর নতুন ক্যাম্পাসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

আগে ক্যাপিটাল মার্কেটের যে লক্ষ্য নিয়ে দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলাম, তা গুটি গুটি পায়ে এগিয়ে চলেছে। তবে মূল লক্ষ্যের কোনোটাই অর্জন করতে পারি নাই। আমরা করার চেষ্টা করছি। সামনের দিনগুলোতে আমাদের লক্ষ্য প্রস্তুত করা আছে, আমরা সেদিকেই এগিয়ে যাচ্ছি।

বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, পুঁজিবাজারে নিয়ন্ত্রক সংস্থার মনিটরিং বা সুপারভিশনে কিছু ভুল থাকতে পারে। কোন ধরনের ম্যানপুলেশন বা অপরাধ সংঘটিত হলে, তার দায়িত্ব আমাদের। কিন্তু কারো ব্যক্তিগত পোর্টফোলিও ম্যানেজ করার দায়িত্ব আমাদের না।

অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত বলেন, আমরা চাই একজন বিনিয়োগকারী তার সঠিক জ্ঞানের মাধ্যমে বিনিয়োগ করবে। যার মাধ্যমে সে তার কষ্টের অর্থের ভালো রিটার্ন অর্জন করবে। আর বিনিয়োগকারীদের এই জ্ঞান অর্জনের জন্য আমরা পুঁজিরবাজার নিয়ে ট্রেনিং প্রোগ্রাম করি। এছাড়া যারা বিনিয়োগকারীদের লেনদেনের সঙ্গে সম্পৃক্ত, সেইসব ডিলারদেরও শিক্ষার দরকার আছে।

একটা বেকার ছেলেকে এনে ডিলার হিসেবে চাকরী দিয়ে দিলেই হবে না উল্লেখ করে বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, ডিলারদেরকে ট্রেনিং দিতে হবে। তা না হলে সেতো ঠিকমতো কাজ করতে পারবে না। এছাড়া তারা ভুলের কারণে পুঁজিবাজার ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে। সে না বুঝে বিনিয়োগকারীদেরকে এমন একটা জিনিস বলল, যা মুহূর্তেই বাজারে প্যানিক তৈরী করতে পারে। তাই ডিলারদেরকেও শিক্ষা অর্জন করতে হবে।

এখানে স্থায়ী নিয়োগের পাশাপাশি অভিজ্ঞদের এনে ট্রেনিং দেওয়া হবে জানিয়ে শিবলী রুবাইয়াত বলেন, প্রথম দফায় আমরা অথোরাইজড ডিলারদেরকে ট্রেনিং দেওয়ার প্রোগ্রাম হাতে নিয়েছি।

তিনি বলেন, ডেভেলপ ওয়ার্ল্ড বলতে যা বুঝি, সেখানে দেখবেন উন্নতির একটা নিজস্ব বাহন হচ্ছে শিক্ষার হার এবং সেটা ৮০-৯০ শতাংশের নিচে হলে এগিয়ে যাওয়া যায় না। কারণ কিছু মানুষ বুঝলে আর কিছু মানুষ না বুঝলে এই জনগোষ্ঠী নিয়ে আগানো যায় না।

একটি শিক্ষিত জনগোষ্ঠী ছাড়া কোন দেশ উন্নতি করতে পারে না জানিয়ে শিবলী রুবাইয়াত বলেন, যার একটা প্রকৃত উদাহরণ হচ্ছে শ্রীলঙ্কা। শ্রীলঙ্কাকে যখন উপনিবেশিকরা শাসন করেছে, তখন থেকেই তাদের লিটারেসি ৯০ শতাংশের উপরে। শুরু থেকেই তারা উন্নত জীবনযাপন করে আসছিল। মাঝখানে তারা কিছুটা পিছন দিকে চলে যায়। তা না হলে তারা অনেক উপরের দিকে থাকত।

অনুষ্ঠানে বিএসইসির কমিশনার অধ্যাপক ড. শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ, ড. মিজানুর রহমান ও আব্দুল হালিম উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.