আজ: বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২ইং, ১২ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

০১ সেপ্টেম্বর ২০২১, বুধবার |



kidarkar

লভ্যাংশ না দেয়া কোম্পানি বিএসইসি’র নজরদারিতে

শেয়ারবাজার ডেস্ক: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত যেসব কোম্পানি লভ্যাংশ দিচ্ছে না, তাদের ওপর নজরদারি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

বিএসইসির একটি সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

সূত্র বলছে, বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষার জন্য এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ ছাড়া ব্যবসায়িক মুনাফায় থাকা সত্ত্বেও সম্প্রতি কিছু কোম্পানি সর্বশেষ হিসাব বছরের (৩১ ডিসেম্বর, ২০২০ ও ৩০ জুন, ২০২১) নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড প্রদান করছে না। ফলে বিষয়টি বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ পরিপন্থি বলে মনে করে কমিশন। তাই বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ বিঘ্নিত না হওয়ার লক্ষ্যে ডিভিডেন্ড প্রদান না করা কোম্পানিগুলোর ওপর নজরদারি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন।

এছাড়া, যেসব কোম্পানি লভ্যাংশ প্রদান করছে না, সেসব কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ পুনর্গঠনসহ অন্যান্য করণীয় নির্ধারণের বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করছে বিএসইসি।

তথ্য মতে, ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর সর্বশেষ সমাপ্ত হিসাব বছরে পুঁজিবাজারে আর্থিক খাতে তালিকাভুক্ত কোম্পানি প্রাইম ফাইন্যান্স শেয়ারহোল্ডারদের জন্য কোনো ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেনি। এর আগে ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর সর্বশেষ সমাপ্ত হিসাব বছরে আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক শেয়ারহোল্ডারদের কোনো ডিভিডেন্ড দেয়নি।

এদিকে, ২০২১ সারের ৩০ জুন সর্বশে সমাপ্ত হিসাব বছরে সি পার্ল বিচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আর এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স শেয়ারহোল্ডারদের ২ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এর আগে ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ও ৩০ জুন, ২০২০ হিসাব বছরের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৩৩ কোম্পানি শেয়ারহোল্ডারদের কোনো ডিভিডেন্ড দেয়নি। এর মধ্যে মুনাফা করেও লভ্যাংশ দেয়নি ৪ কোম্পানি। ডিভিডেন্ড না দেওয়ার ব্যাখা জানতে চেয়ে কোম্পোনিগুলোর পরিচালনা পর্ষদসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কমিশনে তলব করা হয়।

বিএসইসি’র নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, সর্বশেষ হিসাব বছরে যেসব কোম্পানি ডিভিডেন্ড প্রদান করছে না, সে সব কোম্পানি বিএসইসির নজরদারিতে রয়েছে। এসব কারণে ইতিপূর্বে অনেক কোম্পানির পর্ষদ পুনর্গঠন করা হয়েছে। আর এ কাজটি কমিশন অভ্যাহত রাখবে। সাধারণ বিনিয়োগকারীরা যাতে ডিভিডেন্ড পেতে পারে সে বিষয়ে কমিশন খুবই আন্তরিক। বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষার্থে কমিশন যা যা করণীয় তাই করবে।

৩ উত্তর “লভ্যাংশ না দেয়া কোম্পানি বিএসইসি’র নজরদারিতে”

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.