আজ: শুক্রবার, ১৫ অক্টোবর ২০২১ইং, ৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৮ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার |



kidarkar

বড় জরিমানার কবলে মুন্নুর দুই প্রতিষ্ঠান

শেয়ারবাজার ডেস্ক: কারসাজির মাধ্যমে শেয়ার দর বাড়িয়ে বিপুল পরিমাণ শেয়ার বিক্রি ও আয় বাড়িয়ে দেখানোর অভিযোগে মুন্নু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালকসহ করপোরেট পরিচালককে ১৪ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এর মধ্যে মুন্নু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজের চার পরিচালককে ৪ কোটি টাকা এবং মুন্নু ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনকে ১০ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

চলতি বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি ৭৬১তম কমিশন সভায় পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এ জরিমানা আরোপ করে।

সম্প্রতি ওই ১৪ কোটি টাকা জরিমানা মওকুফের জন্য আবেদন জানায় মুন্নুর দুটি প্রতিষ্ঠান। তবে সার্বিক দিক বিবেচনা করে প্রতিষ্ঠান দুটির ওপর আরোপিত জরিমানা মওকুফের আবেদন নামঞ্জুর করেছে বিএসইসি। ফলে মুন্নুর দুই প্রতিষ্ঠানকে গুণতে হচ্ছে ১৪ কোটি টাকা জরিমানা।

শেয়ার কারসাজি ও আয় বাড়িয়ে দেখানোর কারণে কোম্পানি দুটি বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ ক্ষুণ্ন করেছে বলে মনে করে বিএসইসি। ফলে বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষায় মুন্নুর প্রতিষ্ঠান দুটির জরিমানা মওকুফের আবেদন নামঞ্জুর করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

বিএসইসি জানায়, মুন্নু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজের চার জন পরিচালককে এক কোটি টাকা করে মোট ৪ কোটি টাকা এবং মুন্নু ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের ১০ কোটি টাকা জারিমানা মওকুফের আবেদন নামঞ্জুর করা হয়েছে। এ বিষয়ে বিএসইসি’র এনফোর্সমেন্ট বিভাগ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম এসব তথ‌্য নিশ্চিত করেছেন। তবে মুন্নু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজের কোম্পানি সচিব নাসির উদ্দিনের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এদিকে, বিএসইসি জানিয়েছে, মুন্নু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ রুলস, ১৯৮৭ এর ধারা ১২ (১) (২), ২০১৮ সালের ২০ জুন জারিকৃত কমিশনের একটি নির্দেশনা ও সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স, ১৯৬৯ এর সেকশন ১৭ (বি) লঙ্ঘন করেছে। এ কারণে কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ প্রত্যেক পরিচালককে (স্বতন্ত্র পরিচালক ব্যতীত) এক কোটি টাকা করে জরিমানা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। এছাড়া, মুন্নু ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন লিমিটেডের বিরুদ্ধে শেয়ার কারসাজির মাধ্যমে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স, ১৯৬৯ এর সেকশন ১৭ (ই) (২) (৩) ও (৫) লঙ্ঘনের রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে কারসাজির মাধ্যমে মুন্নু সিরামিকস ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ারের দাম বেড়ে সর্বোচ্চ ৪৪১ টাকায় উন্নীত হয়। এছাড়া, স্ক্র্যাপ বিক্রির মাধ্যমে আয় দেখিয়ে হঠাৎ করেই কোম্পানিটির প্রান্তিক প্রতিবেদনে মুনাফা বাড়িয়ে দেখানো হয়। একইভাবে কারসাজির মাধ্যমে ওই সময়ে মুন্নু জুট স্ট্যাফলার্সের (বর্তমান নাম- মুন্নু অ্যাগ্রো অ্যান্ড জেনারেল মেশিনারি) শেয়ারের দাম মাত্র দুই মাসে ১৯৬ শতাংশ বাড়ানো হয়। কারসাজির ফলে ২০১৯ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি এই কোম্পানির শেয়ারের দাম সর্বাচ্চ ২ হাজার ১৪৪ কোটি টাকায় উন্নীত হয়। কারসাজির মাধ্যমে দর বাড়িয়ে ওই সময়ে মুন্নু গ্রপের ওই দুই কোম্পানির বিপুল পরিমাণের শেয়ার বিক্রি করে করপোরেট পরিচালক মুন্নু ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন।

এদিকে, ২০১৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর শেয়ার কারসাজিতে সম্পৃক্ততার কারণে আইনগত ব্যবস্থার অংশ হিসেবে মুন্নু ওয়েলফেয়ার থেকে ধারণকৃত মুন্নু সিরামিকস ও মুন্নু জুটের শেয়ার ফ্রিজ (শেয়ার ক্রয়-বিক্রয়, হস্তান্তর, বন্ধকসহ সব ধরনের লেনদেন) করার সিদ্ধান্ত নেয় বিএসইসি। এছাড়া, মুন্নু সিরামিকের শেয়ার লেনদেন, আর্থিক প্রতিবেদনে অনিয়ম ও করপোরেট ঘোষণার মাধ্যমে মুন্নু ওয়েলফেয়ার থেকে শেয়ার বিক্রি সংক্রান্ত বিএসইসির তদন্ত প্রতিবেদন ও ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য এনফোর্সমেন্ট বিভাগে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন। এরই ধারাবাহিকতায় কোম্পানিটির সব পরিচালক এবং করপোরেট পরিচালক প্রতিষ্ঠানকে মোট ১৪ কোটি টাকা জরিমানা করা হয়।

সূত্র: রাইজিং বিডি

১ টি মতামত “বড় জরিমানার কবলে মুন্নুর দুই প্রতিষ্ঠান”

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.