আজ: সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ইং, ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

সর্বশেষ আপডেট:

১৫ নভেম্বর ২০২১, সোমবার |



kidarkar

সুগন্ধি চাল রপ্তানিতে পাওয়া যাবে না প্রণোদনা

ব্যাংক প্রতিবেদক: ২০২০ সালের ৩০ জানুয়ারি জারি করা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনায় চাল রপ্তানিতে ১৫ শতাংশ হারে প্রণোদনা দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছিলো। সে নির্দেশনা বহাল থাকলেও সুগন্ধি চাল রপ্তানির ক্ষেত্রে প্রণোদনা প্রযোজ্য হবে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সোমবার (১৫ নভেম্বর) কেন্দ্রীয় ব্যাংকের জারি করা নির্দেশনাটি সকল অনুমোদিত ডিলার ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ও প্রিন্সিপাল অফিসে পাঠানো হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সরকারি সিদ্ধান্তক্রমে স্পষ্ট করা যাচ্ছে ২০২০ সালের ৩০ জানুয়ারি জারি করা নির্দেশনাটি সুগন্ধি চালের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না।

আগে জারি করা নির্দেশনায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলেছিল, রপ্তানি বাণিজ্যকে উৎসাহিত করতে দেশে উৎপাদিত ধান থেকে প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমে উৎপাদিত চাল রপ্তানির বিপরীতে সরকার এই প্রণোদনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

দেশে উৎপাদিত ধান সংগ্রহের মাধ্যমে নিজস্ব কারখানায় প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমে উৎপাদিত চাল রপ্তানির ক্ষেত্রে নিট এফওবি মূল্যের ওপর ১৫ শতাংশ হারে প্রক্রিয়াকারী-রপ্তানিকারকরা এই প্রণোদনা পাবেন। বিশেষায়িত অঞ্চলে (ইপিজেড, ইজেড) অবস্থিত প্রতিষ্ঠান থেকে রপ্তানির ক্ষেত্রে এ সুবিধা পাওয়া যাবে না। চাল রপ্তানির ক্ষেত্রে ব্যবহৃত মোড়ক সামগ্রীসহ অন্যান্য উপকরণের ওপর ডিউটি ড্র-ব্যাক ও শুল্ক বন্ড সুবিধা গ্রহণ করা হলে প্রণোদনা দেওয়া হবে না।

প্রণোদনার আবেদনে যেসব শর্ত দিয়েছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক সেগুলো হলো: রপ্তানিকৃত পণ্যের হ্যান্ডলিং, মানোন্নয়ন, প্রক্রিয়াজাতকরণে নির্বাহকৃত ব্যয় এবং অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক পরিবহন এবং ফ্রেইট চার্জ পরিশোধজনিত ব্যয়ের বিপরীতে ডব্লিউটিও বিধি অনুযায়ী আলোচ্য প্রণোদনা দেওয়া হবে।

রপ্তানি ঋণপত্র/চুক্তিপত্রের আওতায় রপ্তানি পরবর্তী পর্যায়ে প্রণীত দলিলাদি কিংবা ডকুমেন্টারি কালেকশনের মাধ্যমে প্রত্যাবাসিত রপ্তানি আয়ের বিপরীতে অনুমোদিত ডিলার ব্যাংক শাখায় রপ্তানিকারক প্রণোদনার জন্য নির্ধারিত ফরমে আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিটি রপ্তানির স্বপক্ষে আবেদনপত্রের সাথে যথাযথ সরকারি কর্তৃপক্ষের অনুমতিপত্র থাকতে হবে।

রপ্তানির স্বপক্ষে প্রয়োজনীয় দলিলাদি যেমন-জাহাজীকরণের প্রমাণস্বরূপ পরিবহন কর্তৃপক্ষের ইস্যুকৃত এবং প্রত্যয়নকৃত বিল অব লোডিং/এয়ারওয়ে বিল, কমার্শিয়াল ইনভয়েস, প্যাকিং লিস্ট, বিল অব এক্সপোর্ট (শুল্ক কর্তৃপক্ষের ইস্যুকৃত ও পরীক্ষিত হওয়ার স্বপক্ষে পরিবহন কর্তৃপক্ষের প্রত্যয়নকৃত) পূর্ণাঙ্গ সেট ইত্যাদি দাখিল করতে হবে।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.